Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ মঙ্গলবার, জুন ২০২১ | ৭ আষাঢ় ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

ইসরাইলে ক্ষমতা বদল; বিশ্বজুড়ে গণমাধ্যম বন্ধ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ জুন ২০২১, ০৬:০৩ PM
আপডেট: ০৮ জুন ২০২১, ০৬:০৩ PM

bdmorning Image Preview


ইসরায়েলের নতুন সরকার নিয়ে সংসদে রোববার ভোট হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির পার্লামেন্টের স্পিকার ইয়ারিভ লেভিন। এর মাধ্যমে ইসরায়েলের ১২ বছরের শাসক বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বিদায়ঘণ্টা বাজবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লেভিন মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ভোটের দিন ঘোষণা করেন বলে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এদিকে হঠাৎ করে বিশ্বজুড়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের সাইটগুলো বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। বিশ্বজুড়ে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের পরিষেবা ভেঙ্গে পড়েছে। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সরকারি ওয়েবসাইটেও সমস্যা দেখা দেয়।  সংবাদ মাধ্যমগুলোর মধ্যে মঙ্গলবার ব্লুমবার্গ, গার্ডিয়ান, সিএনএন, বিবিসি, নিউইয়র্ক টাইমস ও ফিনান্সিয়াল টাইমসে সমস্যা দেখা দেয়। 

বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টার দিকে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ওয়েবসাইটে ঢুকে এরর মেসেজ দেখা যায়। অ্যামাজন ডটকমের রিটেইল সাইটেও ঢোকা যাচ্ছিল না। এ ছাড়া পিন্টারেস্ট, রেডিট, ভিমিওর সাইটও বন্ধ পাওয়া যায়।

ব্রিটিশ সরকারের ওয়েবসাইটও বন্ধ পাওয়া গেছে। এ ছাড়া জনপ্রিয় দুই ওভার দ্য টপ (ওটিটি) সার্ভিস হুলু, এইচবিও ম্যাক্সেও দেখা দিয়েছে বিভ্রাট।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ফাস্টলি নামের একটি ক্লাউড নেটওয়ার্কিং কোম্পানিতে প্রযুক্তিগত জটিলতায় এ সমস্যা দেখা দেয়।

তবে আল-জাজিরার মতো কয়েকটি সাইটে এখনও সমস্যা দেখা যায়নি। এ-সংক্রান্ত সংবাদটি ব্রেকিং হিসেবে প্রচার করে আল-জাজিরা।

ফাস্টলির কর্মকর্তারা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, তাদের সিডিএন সার্ভিসে সমস্যা আছে কি না, সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ফাস্টলি আরও জানায়, তাদের সার্ভিস নেয়া অধিকাংশ সাইটের পারফরম্যান্সে ত্রুটি দেখা গেছে।

এদিকে 

ইসরায়েলের পার্লামেন্টের স্পিকার ইয়ারিভ লেভিন বিবৃতিতে বলেন, ‘রোববার পার্লামেন্টে বিশেষ অধিবেশনে নতুন সরকার নিয়ে বিতর্ক ও ভোট হবে।’

ইসরায়েলের ডানপন্থি, বামপন্থি, মধ্যপন্থি ও আরবভিত্তিক ধর্মীয় দল নিয়ে গঠিত জোট সংসদে আস্থা ভোট অর্জনে সক্ষম হলে রোববারই ওই জোট দেশটির নতুন সরকার হিসেবে শপথ নেবে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর স্থলাভিষিক্ত হবেন কট্টর ডানপন্থি ইয়ামিনা পার্টির নেতা নাফতালি বেনেট।

গত বুধবার নাফতালি বেনেট ও ইসরায়েলের মধ্যপন্থি দল ইয়েশ আতিদের নেতা ইয়ার লাপিদ নেতানিয়াহুকে ক্ষমতা থেকে সরাতে নতুন জোট সরকার গঠনে ঐকমত্যে পৌঁছান।

ওই দিন ইয়ার লাপিদ ঘোষণা করেন, নাফতালি বেনেটের সঙ্গে মিলে জোট সরকার গঠনের ব্যাপারে আলোচনা সফল হয়েছে।

চুক্তি অনুযায়ী, জোট সরকারের প্রথম দুই বছর ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হবেন বেনেট। শেষ দুই বছর ইয়ার লাপিদ প্রধানমন্ত্রিত্বের দায়িত্ব পালন করবেন।

পার্লামেন্টের স্পিকার লেভিনকে আগামীকাল বুধবার নতুন সরকার নিয়ে ভোট নিতে আহ্বান জানিয়েছিলেন বেনেট। একই সঙ্গে নেতানিয়াহুর প্রতি ক্ষমতা ছাড়ারও আহ্বান জানান তিনি।

ইসরায়েলের ডানপন্থি ও কট্টর ডানপন্থিদের মধ্যে তিক্ত পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার সহিংসতার আশঙ্কা করে দেশটির অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংস্থা।

সংস্থার প্রধান নাদাভ আরগামান এক বিবৃতিতে কোনো নাম উল্লেখ না করে বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুবই সহিংস ও উসকানিমূলক আলোচনা আমাদের চোখে পড়েছে।

‘নির্দিষ্ট কিছু সংগঠন বা ব্যক্তি এ ধরনের আলোচনায় জড়িয়েছেন। এর জেরে বেআইনি ও সহিংস কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে শারীরিক আক্রমণ হতে পারে।’

ইসরায়েলের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ধর্মীয় দলকে উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থেকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন নিরাপত্তা সংস্থার প্রধান আরগামান।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সম্ভাব্য জোটকে ‘মারাত্মক বামপন্থি সরকার’ হিসেবে অভিহিত করেছিলেন নেতানিয়াহু।

ইসরায়েলে দুই বছরের কম সময়ের ব্যবধানে চারবার নির্বাচন হয়। চলতি বছরের মার্চে অনুষ্ঠিত হয় চতুর্থ নির্বাচন। কোনো নির্বাচনেই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাননি দুর্নীতির অভিযোগ থাকা নেতানিয়াহু।

নেতানিয়াহুর বিদায়ে সহিংসতার শঙ্কাঃ দাপটের সঙ্গে টানা এক যুগ ইসরায়েল শাসন করেছেন প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। দেশটির ইতিহাসে কোনো সরকারপ্রধান এত দিন শাসনক্ষমতায় থাকতে পারেননি।

২৩ মার্চের নির্বাচনে নেতানিয়াহুর দল লিকুদ পার্টি আশানুরূপ আসন না পাওয়ায় তার ক্ষমতা ধরে রাখা নিয়ে অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়। গত সপ্তাহে ইসরায়েলের বিরোধী কয়েকটি দল জোটবদ্ধ হয়ে নেতানিয়াহুর প্রধানমন্ত্রিত্বের পদ একেবারে নড়বড়ে করে দিয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে রোববার বলা হয়, ১২ বছর পর ইসরায়েলের রাজনৈতিক পটপরিবর্তন হতে যাচ্ছে। সম্ভাব্য সহিংসতার কথা জানিয়েছেন দেশটির অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংস্থার প্রধান।

নিরাপত্তা সংস্থার প্রধান নাদাভ আরগামান এক বিবৃতিতে কোনো নাম উল্লেখ না করে বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুবই সহিংস ও উসকানিমূলক আলোচনা আমাদের চোখে পড়েছে।

‘নির্দিষ্ট কিছু সংগঠন বা ব্যক্তি এ ধরনের আলোচনায় জড়িয়েছেন। এর জেরে বেআইনি ও সহিংস কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে শারীরিক আক্রমণ হতে পারে।’

ইসরায়েলের মধ্যপন্থি দল ইয়েশ আতিদের নেতা ইয়ার লাপিদ ও কট্টর ডানপন্থি ইয়ামিনা পার্টির নেতা নাফতালি বেনেট বুধবার রাতে নেতানিয়াহুকে ক্ষমতা থেকে সরাতে নতুন জোট সরকার গঠনে ঐকমত্যে পৌঁছান।

ইয়ার লাপিদ বুধবার ঘোষণা করেন, নেতানিয়াহুকে ক্ষমতাচ্যুত করতে নাফতালি বেনেটের সঙ্গে মিলে জোট সরকার গঠনের ব্যাপারে আলোচনা সফল হয়েছে।

ইসরায়েলের সম্ভাব্য জোট সরকারে রয়েছে বামপন্থি, উদারপন্থি, ডানপন্থি, জাতীয়তাবাদী ও কয়েকটি ধর্মীয় দল। ইসরায়েলের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ক্ষমতার ভাগ পেতে যাচ্ছে ইসলামপন্থি রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড আরব লিস্টও।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অবশ্য সম্ভাব্য জোটকে ‘মারাত্মক বামপন্থি সরকার’ হিসেবে অভিহিত করেছেন নেতানিয়াহু।

ইসরায়েলের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ধর্মীয় দলকে উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থেকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন নিরাপত্তা সংস্থার প্রধান আরগামান।

আরগামানের সতর্কবার্তা অনেক ইসরায়েলিকে ১৯৯৫ সালের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। সে সময় ফিলিস্তিনের সঙ্গে শান্তিচুক্তি অসলো অ্যাকর্ডে সই করার উদ্যোগ নেয়ায় কট্টর ইহুদি ডানপন্থি এক ব্যক্তির হাতে প্রাণ হারান ইসরায়েলের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইতজহাক রাবিন।

ইসরায়েলের বামপন্থি দলগুলো দীর্ঘদিন রাবিন হত্যায় বিরোধী দলের তৎকালীন প্রধান নেতানিয়াহুকে দায়ী করে আসছিল। নেতানিয়াহুর উসকানিমূলক বক্তব্যের জেরে রাবিনকে হত্যা করা হয় বলে অনেকের অভিযোগ। অবশ্য ওই অভিযোগ বরাবরই প্রত্যাখ্যান করেছেন নেতানিয়াহু।

 

 

Bootstrap Image Preview