Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

টিকা আমদানিতে সরকারি শর্তগুলো আগে জানলে বেক্সিমকো ঝুঁকি নিতো নাঃ পাপন

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১২:১৮ PM
আপডেট: ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১২:১৮ PM

bdmorning Image Preview
ছবিঃ সংগৃহীত


ভ্যাকসিন আমদানি বিষয়ে সরকারের কাছে এক ডলার করে চেয়েছিল বেক্সিমকো। করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা আমদানির বিষয়ে সরকারি শর্তগুলো আগে জানলে বেক্সিমকো ঝুঁকি নিতো না বলে জানিয়েছেন বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাপন।

এ প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘ইনিশিয়ালি আমরা যখন করেছিলাম আমাদের ধারণা ছিল কিছু লাভ তো থাকবেই। আমরা সরকারের কাছে চেয়েছিলাম ১ ডলার। অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন সরকার সরাসরি নিচ্ছে। এখানে সবাই ভাবছে আমাদের মাধ্যমে। ভ্যাকসিনের মূল্য কিন্তু সরকার সরাসরি ঠিক করেছে। আমাদের তো কমিশন একটা লাগবে। আমাদের দেশে যে ওষুধ আসে তার ২০ শতাংশ কমিশন পায় আমদানিকারক। তাই আমরা চিন্তা করেছি যে ৮০ পয়সা (আমেরিকান ডলার) এমনিতেই পেয়ে যাবো। আর সেখানে কোনো দায় দায়িত্ব নাই, কাজ নাই। সেই জায়গায় আমরা ১ ডলার চেয়েছিলাম সেফসাইডে থাকার জন্য।’

বেক্সিমকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘সরকার সেটা মেনে নিয়ে যে শর্ত দিয়েছে সেটা যদি আগে জানতাম আমরা অবশ্যই এর মধ্যে যেতাম না। এই শর্ত মেনে ১ ডলারে এই রিস্ক কেউ নেবে বলে আমার মনে হয় না। তারপরও লাভ হতে পারে সেটা জানি না তো। লসের চান্সটা শুধু একটু চিন্তা করেন। যদি কোল্ড চেইন মেইনটেইন না হয়, বোতল ভাঙা থাকে, খালি থাকে, আমার কিন্তু সরকারকে দিতে হবে। আমাকে ৮ ডলারেই কিনে দিতে হবে। আমি কিন্তু ৩ ডলারে কিনতে পারবো না।’

সব জেলায় ভ্যাকসিন পৌঁছাতে হবে জানিয়ে পাপন বলেন, ‘শুধু পৌঁছানো নয়, কোথাও কোল্ড চেইন ব্রেক হয়নি সেটা আমাদের প্রমাণ করতে হবে। এখন ধরা যাক, কোনো শিপিং কার্টনে বাইরের দিকে ঠিক আছে। খোলার পর দেখা গেল ভেতরে দুই তিনটা ভাঙা। সবসময় কেনার পরিমাণের সঙ্গে অতিরিক্ত কয়েক শতাংশ সরকার ক্রয়ের আগে ধরে। কিন্তু সরকার একদম ৩ কোটি ডোজই হিসাব করেছে এই ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে। এখন যদি ড্যামেজ হয় কিংবা কোনো এক্সিডেন্টে ক্ষতি হয় এর সব দায় বেক্সিমকোর।’

Bootstrap Image Preview