Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৭ রবিবার, মার্চ ২০২১ | ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে চলছে সন্ত্রাসী হামলা!

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৩৭ PM
আপডেট: ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৩৭ PM

bdmorning Image Preview
ছবিঃ সংগৃহীত


আগামী ৩০ জানুয়ারি ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে তৃতীয় ধাপের পৌর নির্বাচন। এতে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও দু’জন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবারের নির্বাচনে ত্রিমুখি লড়াই হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সেক্ষেত্রে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীর গলার কাঁটা হতে পারেন বলে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন। যার সুফল পেতে পারে বিএনপি এবং অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী।

কোটচাঁদপুর পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন- আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী শাহাজাহান আলী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে সাবেক মেয়র ও পৌর বিএনপির আহ্বায়ক সালাহউদ্দীন বুলবুল সিডল, নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে সতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র জাহিদুল ইসলাম জাহিদ এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল প্রতীকে নির্বাচন করছেন পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ন আহ্বায়ক শহিদুজ্জামান সেলিম।

গত ১১ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্ধের পর সব প্রার্থীই বেশ জোরে-সোরেই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন। তবে গত সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনের অভিজ্ঞতায় এবারের পৌর নির্বাচন কতটা সুষ্ঠু হবে তা নিয়ে ভোটারদের মাঝে দুঃচিন্তা শেষ নেই। তারপরও চলছে প্রার্থীদের নিয়ে ভোটারদের চুলচেরা বিশ্লেষণ। যত ভোটের দিন এগিয়ে আসছে ততোই ভোটের মাঠ উত্তপ্ত হচ্ছে।

ইতোমধ্যে ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে গত দুই দিনে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন স্বতন্ত্র দুই প্রার্থীর কর্মীরা। গুরুতর আহত হয়ে রবিউল নামে একজন স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ সকল ঘটনায় থানায় অভিযোগ দাখিলও করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কোটচাঁদপুর থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) মাহাবুবুল আলম বলেন, দুটি অভিযোগ আমি পেয়েছি। আমার দুই দারোগা বিষয়টি তদন্ত করছেন।

নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী সালাউদ্দীন বুলবুল সিডল বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া নিয়ে ভোটারদের মধ্যে ভীতি কাজ করছে। ভোটারদের ভোট দেয়ার পরিবেশ থাকলে আমি শতভাগ আশাবাদী জয়লাভ করবো।

আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী শাহাজাহান আলী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ভোটাররা নৌকা প্রতিককেই বেছে নিবে। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটাদের মাঝে খুশির ইমেজ তৈরী হয়েছে। সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশেই ভোট হবে বলে তিনি আশাবাদী।

স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন, আমার বিগত দিনের কর্মকাণ্ড বিবেচনা করেই ভোটাররা পুনরায় আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। তিনিও ভোট সুষ্ঠু হওয়ার আংশকার কথা জানান।

আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুজ্জামান সেলিম বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের সুখ দুংখের সাথে জড়িয়ে আছি। নৌকা প্রতীক না পেলেও করোনার শুরু থেকে এখনো পর্যন্ত ভয়ভীতি উপেক্ষা করে দিনরাত সাধারণ মানুষের জন্য যা মেহেনত করেছি বা করছি এগুলো তারা মনে রেখেই তারা আমার মোবাইল ফোন মার্কাকেই জয়ী করবে ইনশাল্লাহ।

এবারের পৌর নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১২জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভা এলাকার মোট ভোটার সংখ্যা ২৭হাজার ৪শত ৯৩জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩হাজার ৪শত ৮৫জন এবং মহিলা ভোটার ১৪হাজার ৮জন। ৯টি ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১৪টি।

Bootstrap Image Preview