Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২০২১ | ২ বৈশাখ ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

অন্তত নারী দিবসে কি নারীকে একটা ছুটি দেয়া যায়?

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ মার্চ ২০১৯, ১০:১৩ AM
আপডেট: ০৮ মার্চ ২০১৯, ০২:২৬ PM

bdmorning Image Preview


একজন নারীর কর্মঘণ্টা দিনে ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে সাত দিন, বছরে ৩৬৫ দিন। কর্মজীবী বা প্রচলিত অর্থে কর্মজীবী নয় প্রতিটি নারীর জন্যে এটি সমান সত্য। পুরুষেরা অফিসে কাজের বাইরে ছুটি ভোগ করেন। নারীরা কি কোনো ছুটি পান? কর্মজীবী নারীরা অফিসের কাজের বাইরে ছুটি-ছাটা পেলেও ঘরে ফিরে আবারো শুরু হয় তাদের আরেক ‘অফিস’: ঘর-সংসার-স্বামী-সন্তান-আত্মীয়...। নারীর জীবনের বড় একটা সময় কেটে যায় কেবল রান্নাঘরেই। পুরুষেরা এ কাজে তাদের সহযোগিতা দূরে থাক বরং তাদের এ অমানবিক পরিশ্রমের কথা স্বীকার করতেই চায় না; ‘আমার মা কিছু করে না’ বা ‘আমার বউ কিছু করে না, ঘরে থাকে’ প্রজন্মান্তরে এমন মিথ্যাচারের সংস্কৃতি আমাদের অস্থি-মজ্জায় মিশে গেছে।

পৃথিবীর অনেক দেশে আন্তর্জাতিক নারী দিবস আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারি ছুটির দিন হিসেবে পালিত হয়। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে রাশিয়া, আফগানিস্তান, আর্মেনিয়া, আজারবাইজান, বেলারুশ, বুরকিনা ফাসো, কম্বোডিয়া, কিউবা, জর্জিয়া, গিনি বিসাউ, ইরিত্রিয়া, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, লাওস, মলদোভা, মঙ্গোলিয়া, মন্টেনিগ্রো, তাজিকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান, উগান্ডা, ইউক্রেন, উজবেকিস্তান, ভিয়েতনাম জাম্বিয়া ইত্যাদি। এর বাইরে নেপাল, চীন, মেসিডোনিয়া, মাদাগাস্কার ইত্যাদি দেশে এই দিনটিতে কেবল নারীরা সরকারি ছুটি ভোগ করতে পারেন।

বিভিন্ন দেশে এ দিনে নারীদের সম্মানে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়; ভারতে দিনটিকে ঘিরে নানা আয়োজনের পাশাপাশি স্বল্প পরিসরে হলেও কর্মজীবী নারীদের তাদের কর্মস্থলে সবচেয়ে বড় পদে কাজ করার সুযোগ দেওয়া হয়। কানাডায় নারীর প্রতি সম্মান জানিয়ে ব্যাংকনোটে যুক্ত করা হয় নারীর ছবি। চীনের মতো জাপানেও নারীর সম্মানে এ দিনে তাদের জন্যে ছুটি ঘোষণার রেওয়াজ আছে।

এ বছর আন্তর্জাতিক নারী দিবসের উপপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে: ব্যালান্স ফর বেটার। বাংলাদেশের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এ বছরের প্রতিপাদ্য উল্লেখ করা হয়েছে: “সবাই মিলে ভাবো, নতুন কিছু করো/নারী-পুরুষ সমতার নতুন বিশ্ব গড়ো’।

বাংলাদেশের অনেক স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে নারীদের মাতৃত্বকালীন ছুটি নেই; এ ছুটি চাইলে তাদের চাকরি ছেড়ে দিতে বলা হয় বা ছাড়তে বাধ্য করা হয়। ঘরের ভেতর তাদের কোনো বিশ্রামের সুযোগ নেই।

এমন এক বাংলাদেশে নারীদের সম্মানে আমরা কি নারী দিবসে অন্তত নারীর জন্যে ছুটি ঘোষণার উদারতা দেখাতে পারি?
বিবেচনার জন্যে ‘যথাযথ মহলের’ প্রতি সবিনয় নিবেদন রইলো!

সজীব সরকার : সহকারি অধ্যাপক; জার্নালিজম, কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ; স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। লেখক ও গবেষক।

Bootstrap Image Preview