Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৭ শুক্রবার, মে ২০২১ | ২৪ বৈশাখ ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

মহানুভবতা!

মো. আবু জাফর সিদ্দিকী, সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০১ জানুয়ারী ২০১৯, ০৩:২৮ PM
আপডেট: ০১ জানুয়ারী ২০১৯, ০৩:২৮ PM

bdmorning Image Preview


শাহানা বেওয়া, বয়স প্রায় ৫৫ বছর। তার মা আয়শা, বয়স প্রায় ৮০ বছর, তাদের বাড়ি সিংড়া পৌর শহরের পরানহাটি মহল্লায়। শাহানা বেওয়া তার মা আয়শাকে খাওয়াতে এনেছে সিংড়ার বিখ্যাত রেস্টুরেন্ট ‘চলনবিলের কুটুম বাড়িতে’ ঘটনাটি সোমবার সন্ধ্যার।

ঠিক সেসময় সেই রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যায় সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম। সেখানে তিনি দুইজন বৃদ্ধা মহিলাকে খেতে দেখে একটু আশ্চর্য হন এবং তাদের জিজ্ঞেস করেন তাদের সম্পর্কের কথা, তখন শাহানা বেওয়া বলেন যে উনি তার মা।

তিনি আরও বলেন, আমার দুই মেয়ে এক ছেলে, ছেলের সংসারে থাকি। দুই মেয়ের মধ্যে শিউলি বড় তার বিয়ে হয়েছে নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলায় এবং ছোট মেয়ে শাবানার বিয়ে হয়েছে সিংড়া উপজেলার মুষ্টিগর গ্রামে। তার মেয়েরা মাঝে মাঝে এসে তাকে কুটুম বাড়ি রেস্টুরেন্টে নিয়ে এসে বিভিন্ন রকম খাবার খাওয়ায়। এজন্য আমি ভাবি যে, আমার বৃদ্ধা মাকেও আমি কুটুম বাড়ি রেস্টুরেন্টে খাওয়াবো। আমার মাকে একদিন বলার পরে তিনি আশ্চর্য হয়ে আমাকে বলেছিলেন চলনবিলের কুটুম বাড়ি আবার কি ? আজ আমি আমার মাকে এখানে নিয়ে এসে অনেক রকম খাবার খাওয়ালাম, আমি আনন্দিত। কথাগুলো খুব মনোযোগ সহকারে শুনছিলেন ওসি মনিরুল ইসলাম। এমন বিরল ঘটনা শুনে অবিভূত ওসি। তিনি আশ্চর্য হলেন এবং দুজনকে মিষ্টি খাওয়ালেন।

অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি শুনে আমি অভিভূত। এ যুগে এমন বিরল ঘটনা চোখেই পড়ে না। আমি একটা বার্তা সবার মাঝে পৌঁছে দিতে চাই, সেটা হলো, এমন সৌহার্দপূর্ণ আচরণ এবং ভালোবাসা যদি প্রতিটি ঘরে ঘরে থাকে তাহলে এই পৃথিবী হবে আরো সৌন্দর্যপূর্ণ। পৃথিবীতে থাকবে শুধু ভালোবাসা আর মায়া-মমতা।

Bootstrap Image Preview