Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৩ বৃহস্পতিবার, আগষ্ট ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

আজ পবিত্র "জামাত-উল-বিদা"

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ মে ২০২০, ১০:১৮ AM
আপডেট: ২২ মে ২০২০, ১১:১১ AM

bdmorning Image Preview
সংগ্রহীত


বিশ্বজুড়ে মুসলমানরা শীঘ্রই পবিত্র রমজান মাসে রোজাব্রত পালন ও সংযম সাধনার এবং ইবাদত-বন্দেগির পর ঈদদুল ফিতর উদযাপন শুরু করবে। এই মাসের শেষ জুম্মা (শুক্রবার) চলাকালীন ইসলামের অনুসারীরা জামাত-উল-বিদা পালন করে। এই দিনটি অত্যন্ত তাত্পর্যপূর্ণ এবং মাসের আধ্যাত্মিক গুরুত্বের সাথে একত্রিত। সারা বিশ্বের মুসলমানরা মসজিদে একত্র হয়ে নামাজ পড়েন, পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন এবং সদকা করেন। এ বছর জামাত-উল- বিদা শুক্রবার ২২ই মে পালন করা হবে।

ইসলামে শুক্রবারের তাত্পর্য রয়েছে এবং এ দিন দুপুরে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। ধর্মপ্রাণ মুসলমান পবিত্র রমজান মাসকে বিদায়ের বার্তা জানাতে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করবেন। এ দিন জুমার নামাজ শেষে মহান আল্লাহর দরবারে ক্ষমা ও রহমত কামনা করেন মুসল্লিরা। আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন- শ্রেষ্ঠ দিন জুমার দিন। এ দিনে হজরত আদম আলাইহিস সালামকে সৃষ্টি করা হয়েছিল। এ দিনে তাঁকে জান্নাতে বসবাস করতে দেয়া হয়েছিল। এ দিনেই তাঁকে সেখান থেকে পৃথিবীতে নামিয়ে দেয়া হয়েছিল। আবার কেয়ামতও হবে জুমার দিনে। মোটকথা বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা এ দিনের সাথে জড়িত। '‘আজ আমি তোমাদের জন্য তোমাদের ধর্ম পরিপূর্ণ করে দিলাম। তোমাদের প্রতি আমার অনুগ্রহ পূর্ণাঙ্গ করলাম এবং ইসলামকে তোমাদের ধর্ম হিসেবে মনোনীত করলাম’"- উম্মতে মুহাম্মদির শ্রেষ্ঠত্বের ঘোষণা সংবলিত সূরা মায়েদার এ তিন নম্বর আয়াতটি নাজিল হয়েছিল ৯ জিলহজ জুমার দিনে।

মোট কথা সাধারণভাবে জুমার দিনের এসব গুরুত্ব মাহাত্ম্য রয়েছে। রমজান মাসের কারণে এ মাহাত্ম্য অনেকগুণ বেড়ে যায়- যা বলার অপেক্ষা রাখে না। আর রমজানের শেষভাগের প্রতিটি দিনই স্মরণ করিয়ে দেয় বহুগুণ ছওয়াব লাভের সুযোগ চলে যাচ্ছে বলে।

আজ পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবার। প্রতি বছর, জামাত-উল- বিদা আনন্দ এবং উত্সাহের সাথে উদযাপিত হয়, যা আরেক বিচারে তা ঈদুল ফিতরের আগমনী বার্তা ঘোষণা করে। করোনাভাইরাস মহামারী নিয়ন্ত্রণের জন্য লকডাউন মেনে চলা প্রত্যেক নাগরিকের কর্তব্য, তাই প্রত্যেকে তাদের বাড়ি থেকে নামাজ পড়বো এবং জনসমাবেশ এড়াবো। মুসলিমরা শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য আল্লাহর নেয়ামত কামনা করে। এমন গুরুত্বপূর্ণ দিনের মূল্যায়ন করা ও সদ্ব্যবহার করা রোজাদারদের জন্য অবশ্য কর্তব্য।

Bootstrap Image Preview