Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

বান্দরবানে ৪ পপি ক্ষেত ধ্বংস, আফিমের ৬০ কেজি রস উদ্ধার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:২৯ PM
আপডেট: ২৪ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:২৯ PM

bdmorning Image Preview


পার্বত্য বান্দরবান জেলায় বিপুল পরিমাণ আফিম বাগান ধ্বংস করেছে র‌্যাব সদস্যরা। জেলার রুমা উপজেলার দুর্গম কেওক্রাডং এলাকায় র‌্যাব-৭’র একটি দল এ অভিযান চালায়। এ সময় ৪টি পপি ক্ষেত ধ্বংস করার পাশাপাশি প্রায় ৬০ কেজি পপির (আপিমের) রস উদ্ধার করা হয়।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল ৭টা থেকে দুপুর পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব-৭ অধিনায়ক লে. কর্নেল মশিউর রহমান জানান, রুমার একটি দুর্গম এলাকায় নিষিদ্ধ পপি চাষ হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রুমা সদর থেকে ২০ কিলোমটার দূরে কেওক্রাডং-এর আশপাশে কয়েকটি গভীর জঙ্গল ও পাহাড়ি ঝিরি ঝরণায় অভিযান চালানো হয়। একই সময় প্রায় ৭ একর এলাকাজুড়ে এসব ক্ষেত থেকে ৬০ কেজির পপির রস উদ্ধার করা হয়। তবে অভিযানের সময় ঘটনাস্থলে কাউকে পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও জানান, ক্ষেতের মালিককে খোঁজা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে বলে জানান তিনি। বান্দরবানের মিয়ানমার সীমান্তবর্তী রুমা থানছি ও আলীকদমের দুর্গম এলাকায় স্থানীয় পাহাড়ি ও বেশ কিছু সন্ত্রাসী বাহিনী লাভজনক এই পপি চাষ করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে। পপি বাগান থেকে উৎপাদিত আফিম সীমান্ত পথে মায়ানমার ও ভারতে পাচার করতেন।

রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম চৌধুরী বলেন, র‌্যাব থেকে বিষয়টি আমাদের জানানো হয়নি, তবে তারা এই বিষয়ে মামলা করলে রুমা থানায় করবে।

প্রসঙ্গত, সর্বশেষ গত বছরের ৬ মার্চ সেনাসদস্যরা বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার কুরুকপাতা ইউনিয়নের লারনিং পাড়ায় ৩৫ শতক জমির উপর করা পপি বাগান ধবংস করে। এছাড়াও বান্দরবানের মিয়ানমার সীমান্তবর্তী রুমা থানচি ও আলীকদমের দুর্গম এলাকায় স্থানীয় পাহাড়ি ও কিছু দুবৃবত্ত দীর্ঘদিন থেকে পপি চাষ করে আসছে। পপি বাগান থেকে উৎপাদিত আফিম সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমার ও ভারতে পাচার হয়ে থাকে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

Bootstrap Image Preview