Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

লাখো জনতাকে কাঁদিয়ে চির বিদায় নিলেন এমপি মান্নান

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:৫৩ PM
আপডেট: ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:৫৩ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


সোনাতলা-সারিয়াকান্দির লাখো জনতাকে কাঁদিয়ে চিরবিদায় নিলেন বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান এমপি। তার মরদেহ রাষ্ট্রীয় মর্যাদা শেষে নিজ গ্রামের বাড়ি বগুড়ার সারিয়াকান্দি কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টায় সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে তার মরদেহ বগুড়ার সোনাতলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজ মাঠে নিয়ে আসা হয়। এরপর লাশবাহী গাড়িতে করে সোনাতলা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রায় ঘন্টাকালব্যাপী সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় মরদেহ দেখার জন্য। শুধু সোনাতলা নয়, পার্শ্ববর্তী গাবতলী, সাঘাটা, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হাজার হাজার মানুষ এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমায়। বিভিন্ন মাধ্যমে লাখো জনতা উপস্থিত হয় ওই স্টেডিয়াম মাঠে।

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া তার বক্তব্য বলেন, আব্দুল মান্নান একজন কর্মবীর মানুষ ছিলেন। তার প্রচেষ্টায় সোনাতলা-সারিয়াকান্দির চেহারা পাল্টে গেছে।

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক তার বক্তব্যে বলেন, ইতিহাসের স্বর্ণাক্ষরে আব্দুল মান্নানের নাম লেখা থাকবে। তার অভাব কোনদিন পূরণ হবে না। এ ধরনের ত্যাগী নেতার মৃত্যুতে শুধু দল নয়, দেশেরও ক্ষতি সাধিত হলো।

এসময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন শফিক, বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ, এমপি মনোয়ার চৌধুরী, পদোন্নতি প্রাপ্ত পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মুঞ্জুরুল আলম মোহন, আসাদুর রহমান দুলু, বগুড়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোজাম্মেল হক লালু, বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু, সাবেক সভাপতি আখতারুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক এড. জাকির হোসেন নবাব, উপজেলা চেয়ারম্যান এড. মিনহাদুজ্জামান লীটন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শফিকুর আলম, সহকারী কমিশনার ভুমি ছালমা আকতার, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আশরাফুর রহমান, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ডাবলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল করিম শ্যাম্পু, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম বুলু, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম নান্নু, শাহিদুল বারী খান রব্বানী, ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শামছুল হক, রোস্তম আলী মন্ডল, জুলফিকার রহমান শান্ত, অসীম কুমার জৈন নতুন, প্রভাষক রুহুল আমিন, আলী তৈয়ব শামীম, অধ্যক্ষ আব্দুল মালেক, নবীন আনোয়ার কমরেড, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিউর রহমান রানা, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিষ্টারসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

এরপর সংসদ সদস্য ও বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নানের মরদেহ রাষ্ট্রীয় মর্যাদা (গার্ড অব অনার) প্রদান করা হয়। তার কফিনে ডেপুটি স্পিকার, কৃষিমন্ত্রী, জেলা প্রশাসক, বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ, বগুড়া প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, জেলা ছাত্রলীগ, সোনাতলা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠন, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়।

এরপর শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম মাঠে সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে লাশবাহী আলিফ মেডিকেল সার্ভিসের এম্বুলেন্সে করে তার মরদেহ বগুড়ার সারিয়াকান্দি সারিয়াকান্দি ডিগ্রী কলেজ মাঠে বিকাল সাড়ে ৩টায় নিয়ে যাওয়া হয়। সকাল থেকে প্রিয় সন্তানের মরদেহ শেষবারের মতো দেখার জন্য সকাল থেকে ভিড় জমাতে থাকে ওই কলেজ মাঠে হাজার হাজার বিভিন্ন বয়সী লোকজন। প্রিয় সন্তানের মরদেহ এক নজর দেখার জন্য শুধু কলেজ মাঠ নয়, আশপাশের রাস্তায় প্রায় এক কিলোমিটার জুড়ে রাস্তায় অবস্থান নেয় লোকজন। প্রায় তিন ঘন্টা সবার জন্য মরদেহ দেখার সুযোগ করে দেয়া হয়। এরপর তৃতীয় নামাজে জানাজা শেষে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন স্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়। তার নামাজে জানাজায় হাজার হাজার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার নজরুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর, আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম, অতি: জেলা প্রশাসক আব্দুল মালেক, অতি: পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ম. আব্দুর রাজ্জাক, অ্যাড. রেজাউল করিম মন্টু, ডা: মোস্তফা আলম নান্নু, অধ্যক্ষ প্রফেসর সামস উল আলম জয়, টি জামান নিকেতা, অধ্যক্ষ শাহাদত আলম ঝুনু, মাসুদুর রহমান মিলন, সুলতান মাহমুদ খান রনি, মাফুজুল ইসলাম রাজ, আল রাজি জুয়েল, মাশরাফি হিরো, জাপা নেতা অধ্যক্ষ মোকছেদুল আলম, আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান সফিক, সারিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মুনজিল আলী সরকার, শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ রিজু, গাবতলী উপজেলা চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিন, শাজাহানপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন সান্নু, সারিয়াকান্দি পৌর মেয়র আলমগীর শাহী সুমন, কাহালু পৌর মেয়র হেলাল উদ্দিন কবিরাজ তার নামাজে জানাজায় উপস্থিত ছিলেন। তারা মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

এর আগে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তার কফিনে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার ড. শিরিন শারমিন, ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, বিরোধী দলীয় নেতা সহ সহকর্মীবৃন্দ ও রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান। আব্দুল মান্নানের মরদেহ দেখার পর হাজার হাজার মানুষ চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি। কান্নায় ভেঙে পড়েন বিভিন্ন বয়সের এবং বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষেরা।

Bootstrap Image Preview