Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ শনিবার, আগষ্ট ২০২০ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

পূজার জায়গায় পূজা, নির্বাচনের জায়গায় নির্বাচন: ইসি সচিব

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:৪৮ PM
আপডেট: ১৪ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:৪৮ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


স্বরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণের তারিখ পরিবর্তনের রিট আবেদন খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্ট। ফলে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারিতেই ভোটের আয়োজন করতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে শাহাবাগ অবরোধ করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা।

এমতাবস্থায় ৩০ জানুয়ারিকে সামনে রেখেই কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর। তিনি বলেছেন, আগামী ৩০ জানুয়ারি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যেসব কক্ষে সরস্বতী পূজা হবে সেগুলো বাদ দিয়ে অন্য কক্ষগুলোতে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আয়োজন করা হবে।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

ইসির জ্যেষ্ঠ সচিব বলেন, তাত্ত্বিক দিক থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পূজা হওয়ার কথা থাকলেও কিন্তু হয় না। যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হবে, সেখানে তারা পূজা করবেন। তাদের জন্য আলাদা জায়গা থাকবে। পূজার জায়গাগুলোকে ছেড়ে দিয়েই বাকি রুমগুলোতে ভোট হবে। যেখানে পূজা হবে সেই কক্ষ বাদ দিয়ে অন্য কক্ষগুলোতে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হবে। পূজার জায়গায় পূজা চলবে, নির্বাচনের জায়গায় নির্বাচন চলবে।’

এসময় সাংবাদিকরা জানতে চান পূজা দেখতে সাধারণ মানুষ যাবে, এতে কেন্দ্রের পরিবেশ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রে ভোটাররা যেতেই পারবেন। অবাধে ভোট দিতে পারবেন। আর পূজা যেখানে হবে সেটা তো বলাই হলো যে, যে সাইটে পূজা হবে, সেটা আলাদা করাই থাকবে। সেখানে মানুষ যেতে পারবে।’

আলমগীর বলেন, ‘নির্বাচন মানে এমন নয় যে সেটা মারামারির জায়গা, অতএব সেখানে পূজা করা যাবে না। পূজা যেখানে হবে এমন নয়তো যে, সেখানে নির্বাচন করা যাবে না। দুটোই করা যাবে একসাথে। নির্বাচন ও পূজা দুটোই পবিত্র কাজ।’

ইসি সচিব আলমগীর বলেন, আদালত উভয় পক্ষের কথা শুনেছেন। তারাও বিবেচনা করে দেখেছেন, ৩০ জানুয়ারি সর্বোত্তম দিন। এ জন্য তারা মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন। তারা বলেছেন, ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন করতে কমিশনের কোনো বাধা নেই। আমরা ৩০ জানুয়ারিকে সামনে রেখেই কাজ করে যাচ্ছি। তারা আপিল করতে চাইলে সেটা করতে পারেন।

এদিকে হাইকোর্টে দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা রানা দাশগুপ্ত।

Bootstrap Image Preview