Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ৩০ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০২০ | ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

রাশিফল অনুযায়ী কেমন যাবে ২০২০

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৪২ PM
আপডেট: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৪২ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


নিজের ভাগ্য নিজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায় শতকরা ৯০ থেকে ৯৬ ভাগ। বাকিটা নিয়তি। ২০২০ সাল সমাগত। সব রাশির জাতক–জাতিকাদের জন্য ২০২০ সাল কেমন যাবে—‘নিউমারলজি’ বা ‘সংখ্যা-জ্যোতিষ’ পদ্ধতি প্রয়োগ করে এবারের প্রচ্ছদ আয়োজনে তাই জানাচ্ছেন কাওসার আহমেদ চৌধুরী।

মীন ১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ। ভর # ৩

নতুন অতিথিকে একটু বেশি হাসিমুখে অভ্যর্থনা জানাতে হয়। ২০২০ সমাগত। বছরটিকে প্রাণখোলা আনন্দে স্বাগত জানান। কেননা ২০২০ আপনার জন্য নানা ধরনের শুভবার্তা বয়ে নিয়ে আসবে। এর মধ্যে যেমন সামাজিক সাফল্য থাকবে, তেমনি থাকবে ব্যক্তিগত সাফল্য। যে ভালোবাসাটা আগে পাননি, এখন তা পাবেন। গানের মধ্যে আছে: শেষ হয় রাতের আঁধার/ দূর নয় আলোর দুয়ার। এই কথাটি বছরের শুরুতেই মনে মনে জপতে থাকবেন। আঁধার যতই গাঢ় হোক, রাত্রি তো একসময় শেষ হবেই। সেই উজ্জ্বল ভোরের অপেক্ষায় থাকুন। সুভা জরুর আয়েগি অর্থাৎ ভোর নিশ্চয় আসবে। আপনাকে নববর্ষের শুভকামনা।

মেষ ২১ মার্চ-২০ এপ্রিল। ভর # ৬

 

যদিও বাংলাদেশ এখন শীতের হাতে বন্দী, এরপরে আসবে বসন্ত। মেষ রাশিকে এই বসন্তের অগ্রদূত বলা হয়। মেষ হচ্ছে তারুণ্যের প্রতিনিধি। তার সমস্ত কর্মকাণ্ড তারুণ্যে ভরপুর। ওদিকে সে আবার একজন নেতা। ২০২০ সালে তার নেতৃত্বের নতুন বিকাশ ঘটবে। ফুলে ফুলে নতুন পাতায় ভরে যাবে তার জীবন। অন্যকেও সে সামনে অগ্রসর হতে অনুপ্রাণিত করবে। প্রিয় মেষ, নিজের শক্তি ও গুণ সম্পর্কে সচেতন হোন এবং নিজের ও অন্যের জীবনকে সার্থক করে তুলুন। জয় হোক আপনার!

বৃষ ২১ এপ্রিল-২১ মে। ভর # ১

২০২০ সাল আপনার জন্য নতুন সৌভাগ্য বয়ে আনবে। বৃষ সাধারণত খ্যাত তাঁর মধুর কণ্ঠস্বরের কারণে। আলোচ্য বর্ষে তাঁর কণ্ঠস্বরের প্রভাব অনেক দূর ব্যাপৃত হবে। স্মরণশক্তি মানুষের একটি প্রধান অবলম্বন। স্মরণশক্তি বেশি না থাকলে কোনো কাজে চূড়ান্ত সাফল্য আসে না। বৃষের এই স্মরণশক্তি খুব তীক্ষ্ণ। রাশির গুণাবলি দিয়ে বৃষ ২০২০-এ নানা রকম সাফল্য অর্জন করবেন। টাকা–পয়সা এবং সম্মান, খ্যাতি—সবই কুড়িয়ে নেবেন। স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। মনের দুঃখগুলো তেমন একটা উঁকি দিতে পারবে না। পক্ষান্তরে সুখস্মৃতিগুলো তাঁকে বারবার উদ্দীপিত করবে। আনন্দের বন্যা ভাসিয়ে নেবে তাঁকে। এই বর্ষটিতে বৃষের জন্য রইল আমাদের অকুণ্ঠ সমর্থন ও শুভেচ্ছা। জয় হোক!

মিথুন ২২ মে-২১ জুন। ভর # ৬

নতুন বছর মানেই নতুন জীবন, নতুন আনন্দের বার্তা। এ বছর মিথুনের দায়দায়িত্ব যেমন বাড়বে, আনন্দটাও তেমনই বাড়বে। হাতে ভালো টাকা–পয়সা থাকবে। কারও কারও চাকরি পরিবর্তন হবে। চাকরিতে উন্নতিও হবে। স্বজনের ভালোবাসা তাদের ঘিরে থাকবে। মিথুন নারী-পুরুষের মমতার স্পর্শে জেগে উঠবে অন্যরা। নিজের এবং অন্যের জীবনে পরিবর্তন আনাই তো মিথুনের প্রধান কাজ। এ কাজে মিথুন নিশ্চয় সফল হবেন। আমরা তাঁর নিরন্তর কল্যাণ কামনা করি।

কর্কট ২২ জুন-২২ জুলাই। ভর # ২

হাতের কাজ থামিয়ে দেবেন না। ২০২০ সালে আপনাকে অব্যাহতভাবে কাজ করে যেতে হবে। কাজ থামালে ছন্দপতন হয়। কাজের গতি কমে যায়। যেহেতু এ বছর আপনার অনেক সাফল্য পাওনা আছে, সে কারণেই আপনাকে লাগাতার কাজ করে যেতে হবে। কোনো ওজর-আপত্তির আশ্রয় নেবেন না। রাশিগতভাবে আপনি খুব সৃজনশীল মনের অধিকারী। যেকোনো ধরনের কাজেই ওই সৃজনশীলতার সর্বোচ্চ ব্যবহার করুন। খ্যাতি ও সম্মান—দুটোই আসবে। আলোচ্য বর্ষে আপনি অনেক মানুষের ভালোবাসা পাবেন। নিজেকে সেই ভালোবাসার উপযুক্ত করে তুলুন। সার্থক হোক আপনার ২০২০!

সিংহ ২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট। ভর # ১

ক্রিকেটের টি–টোয়েন্টি খেলাটা কী, তা জানেন তো? ২০২০ আপনার জন্য ওই টি–টোয়েন্টি ক্রিকেট ম্যাচের মতো হতে যাচ্ছে। এটি আপনার প্রচণ্ড বেগে এলোপাতাড়ি ব্যাট চালাবার মৌসুম। চার এবং ছক্কা হাঁকানোর সময়। যত ব্যাট চালাবেন ততই রানের অর্থাৎ সাফল্যের পাহাড় গড়ে উঠতে থাকবে। তবে সঙ্গী খেলোয়াড়ের নিরাপত্তা নিয়ে সব সময় ভাববেন। তিনি আউট হয়ে গেলে সেটা আপনারও ক্ষতি। অবশ্য কারও দ্রুত আউট হওয়ার সম্ভাবনা আমি দেখি না। দাদা-দিদিরা, আনন্দ নিয়ে জীবনের খেলা খেলে যান। জয় আপনাদেরই হবে।

কন্যা ২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর। ভর # ২

২০২০ সালে আপনার জীবনে উদিত হতে যাচ্ছে এক নতুন উজ্জ্বল সূর্য। কুয়াশা ভেদ করে আপনি নতুনভাবে জ্বলে উঠবেন। যেকোনো প্রতিযোগিতায় আপনার স্থানই হবে সবার ওপরে। আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে চলুন। সাফল্য যেন আপনার মনে অহংকার এনে না দেয়। অতীত সাফল্যকে মনে রেখেই সামনের সাফল্যগুলোকে হস্তগত করুন। আপনার সাফল্য মানেই আমাদেরও সাফল্য। জয় হোক আপনার।

তুলা ২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর। ভর # ২

২০২০ সালে এসে তুলা তাঁর জীবনের এক নতুন মোড়ে এসে উপনীত হয়েছেন। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এখন তিনি আরও সাহসী ও দক্ষ হয়ে উঠবেন। পরাজয় না মানাই তুলা নারী-পুরুষের রাশিগত চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। এই বৈশিষ্ট্যই তাঁকে চূড়ান্ত বিজয়ের দিকে নিয়ে যাবে। নতুন আনন্দে ভরে উঠবে জীবন। জয় হোক আপনার, তুলা।

বৃশ্চিক ২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর। ভর # ২

তৈরি হয়ে যান বৃশ্চিক মহোদয় এবং মহোদয়া। ঝাঁকুনি দিয়ে এসে গেল ২০২০। ট্রেন যেমন একটা ঝাঁকুনি দিয়ে যাত্রা শুরু করে, আপনাদেরও ঠিক তেমনই। নতুন যাত্রা, নতুন গন্তব্য। পিছে পড়ে থাক পুরোনো জঞ্জাল। তাজা মন নিয়ে জাপটে ধরুন নতুন বন্ধুত্ব এবং নতুন আনন্দের উৎসবকে। এই আনন্দের সময় পুরোনো বন্ধুদের ভুলে যাবেন না। তাঁরাই আপনার প্রকৃত শুভানুধ্যায়ী। আপনার সামনে অনেক টাকা এবং অনেক যশ দেখতে পাচ্ছি। টাকা যখন আসবে তখন আমাকেও যেন তার কিছু ভাগ দিতে ভুলবেন না। জয় হোক বৃশ্চিক, আপনার।

ধনু ২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর। ভর # ৯

২০২০ আপনার সামনে এক নতুন বার্তা নিয়ে হাজির হয়েছে। বছরটিকে হাসিমুখে বরণ করে নিন। গোমড়া মুখে বসে থাকার কোনো কারণই নেই। দেখতে পাচ্ছেন না সামনের ওই সাফল্য ও আনন্দের হাতছানি? একটুও কি লোভ হচ্ছে না? লোভ কথাটা সব সময় নেগেটিভ অর্থে নেওয়া ঠিক নয়। আমি যে লোভের কথা বললাম সেই লোভে পুণ্য হয়, জীবন পরিপূর্ণ হয়। এ বছর আপনার একা পথ চলতেও সমস্যা হবে না। যিনি একা তিনিই তো সবচেয়ে শক্তিশালী। আলোচ্য বছরে আপনি আপনার এই শক্তি প্রমাণের যথেষ্ট সুযোগ পাবেন। আপনার প্রতি লোকের সম্মান বহুগুণ বেড়ে যাবে। এ বছর আপনার মেধা ও প্রতিভা সকলকে মুগ্ধ করবে। মানবতার কাজে আপনি এগিয়ে যাবেন। পেশাজীবীরা নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে আরও বেশি প্রতিষ্ঠা পাবেন। কাজেই প্রিয় ধনু, সামনের লক্ষ্যটাকে স্থির রেখে তিরের গতিতে এগিয়ে যান। লক্ষ্যভেদ আপনাকে করতেই হবে। আমরা জানি আপনি তা পারবেন।

মকর ২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি। ভর # ৩

মকর নারী-পুরুষের জন্য বিশাল আনন্দের বার্তা নিয়ে চলে আসছে ২০২০। আপনার মধ্যে বজায় থাকবে শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা। বাড়বে কাজ, বাড়বে সাফল্য ও আনন্দ। বন্ধুর সংখ্যাও বেড়ে যাবে। আসবে অনেক নতুন নতুন অনুরাগী। টাকা–পয়সার কমতি হবে না। ভ্রমণও হবে। একটু-আধটু মনের দুঃখকে পাত্তা দেবেন না। ওটা তো সবারই থাকে। আপনার গভীর ভালোবাসা দিয়ে চারপাশের সবাইকে ঘিরে রাখুন। শুভ হোক আপনার নতুন বছর!

কুম্ভ ২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি। ভর # ৯

২০২০ সালে এসে আপনার অর্থ ও খ্যাতি যোগ দেখা যায়। এ বছরে আপনার নেতৃত্বগুণের নতুন বিকাশ ঘটবে। সামাজিক প্রভাব বেড়ে যাবে। সবার আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে বিরাজ করবেন আপনি। কমপক্ষে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভ্রমণ হবে, যে ভ্রমণ থেকে আসবে সাফল্য ও আনন্দ। প্রাসঙ্গিক ক্ষেত্রে কোনো কুম্ভ আত্মজীবনী লেখার কাজে হাত দিতে পারেন। কুম্ভ একটি প্রেরণার নাম। কুম্ভের দৃষ্টান্ত সহজেই অন্যকে উজ্জীবিত করে। এসব কথা বিবেচনা করে সামনে এগিয়ে চলুন।

সূত্র- প্রথম আলো 

Bootstrap Image Preview