Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৬ শনিবার, জুন ২০২০ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

চার দশক পর প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী পেল কিউবা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৩৩ PM
আপডেট: ২২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৩৩ PM

bdmorning Image Preview


দীর্ঘ চার দশকেরও বেশি সময় পর প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী পেল কিউবা। গতকাল শনিবার জাতীয় পরিষদে দেশটির পর্যটনমন্ত্রী ম্যানুয়েল মারেরো ক্রুজকে নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেল। খবর বিবিসি।

বৈপ্লবিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রো ১৯৭৬ সালে প্রধানমন্ত্রীর পদ বাতিল করেছিলেন। তারপর থেকে দেশটি প্রধানমন্ত্রী শূন্য ছিল। প্রায় ৪০ বছরের বেশি সময় পর প্রধানমন্ত্রী পেল কিউবা।

চলতি বছরই নতুন সংবিধান পাস হয়েছে কিউবায়। এই নতুন সংবিধান অনুসারেই দেশেটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হলো ৫৬ বছর বয়সী ম্যানুয়েল মারেরোকে। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কিছু অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে দেশটির প্রেসিডেন্টকে। ধারণা করা হচ্ছে সেখান থেকে কিছু দায়িত্ব গ্রহণের জন্যই প্রধামন্ত্রীর পদ পেলেন তিনি।

"সরকারপ্রধান হবেন রাষ্ট্রপতির প্রশাসনিক ডান হাত," রাষ্ট্র পরিচালিত অনলাইন নিউজ আউটলেটে এমনটাই বলেছেন চুবাডেবাট।

তবে সমালোচকরা একে একটি সাজানো ঘটনা বলে আখ্যায়িত করেছেন। কারণ কিউবার কমিউনিস্ট পার্টি এবং দেশটির সেনাবাহিনীই সব ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। সে ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর হাতে থাকছে না তেমন কোনো ক্ষমতা।

ফিদেল কাস্ত্রোর ১৯৫৯ সালের বিপ্লব পতন ঘটিয়েছিল তৎকালীন কিউবান সরকারের। এরপর তিনি নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেন। ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত তিনি পদটিতে বহাল ছিলেন। এরপর ফিদেল দেশটির প্রধানমন্ত্রীত্ব বাতিল করেন। পরে তিনি কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান হন। তিনি রাজ্য কাউন্সিল এবং মন্ত্রীদের পরিষদের সভাপতিও নির্বাচিত হয়েছিলেন।

অসুস্থজনিত কারণে তিনি ২০০৬ সালে তার ভাই রাউল কাস্ত্রোর​হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। ২০১৬ সালে মৃত্যুবরণ করেন এই মহান নেতা।

Bootstrap Image Preview