Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৭ রবিবার, সেপ্টেম্বার ২০২০ | ১২ আশ্বিন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

সালথায় ইজিপিপির ৪০ দিনের কাজের শুরুতেই ব্যাপক অনিয়ম

আবু নাসের হুসাইন, সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ১০ মে ২০১৯, ০৫:৪৩ PM
আপডেট: ১০ মে ২০১৯, ০৫:৪৪ PM

bdmorning Image Preview


অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি) ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের আওতায় ফরিদপুরের সালথায় কর্মসূচির কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুটি ইউনিয়নের প্রকল্পে লেবার কম থাকায় দুইটি প্রকল্প বন্ধ করে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। 

জানা যায়, অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি) এর আওতায় উপজেলার যদুনন্দী ইউনিয়নের বড়খারদিয়া কুমার নদী হতে সাতগুদির বিল পর্যন্ত কাকটা খাল কৃষিকাজের উপযোগী করে পুনঃখনন প্রকল্পে ৭৩ জন অতি দরিদ্র লেবার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রকল্প সভাপতির যোগসাজশে অতি দরিদ্র লেবারের পরিবর্তে রবিবার (৫ মে) থেকে বৃহস্পতিবার (৯ মে) পর্যন্ত বেকু মেশিন দিয়ে কম খরচে খাল খনন করছে। এতে সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অতি দরিদ্র লেবাররা। 

এবিষয়ে প্রকল্প সভাপতি ইউপি সদস্য তোরাপ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমি নামে মাত্র প্রকল্প সভাপতি, সব দায়দায়িত্ব চেয়ারম্যানের।

ইউপি চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মুন্সী বলেন, লেবারও ছিল, বেকু মেশিনও ছিল। এলাকার মানুষের সুবিধার্থে বেকু মেশিন ব্যবহার করা হচ্ছে। 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাজী লিয়াকত হোসেন বলেন, অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির কাজে বেকু মেশিন দিয়ে কাজ করা সম্পূর্ণ অনিয়ম। আমরা কাজের আগে মিটিংয়ে সকল চেয়ারম্যান ও প্রকল্প সভাপতিদের বেকু মেশিন ব্যাবহার না করার নির্দেশ দিয়েছিলাম। বেকু মেশিন ব্যবহার করার জন্য প্রকল্প বন্ধ করার জন্য জরুরিভাবে নোটিশ করা হবে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাকছুদুল ইসলাম বলেন, কোন প্রকার বেকু মেশিন দিয়ে কর্মসূচির কাজ করা যাবে না। যেসব প্রকল্পে অনিয়ম দেখবো, সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এর আগে বুধবার (৮ মে) সোনাপুর ইউনিয়নের মিনাজদিয়া প্রকল্প ও ভাওয়াল ইউনিয়নের কামদিয়া প্রকল্পে লেবার কম থাকায় কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।  

Bootstrap Image Preview