Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ শনিবার, মার্চ ২০২০ | ১৪ চৈত্র ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

ভাবীকে হত্যার উদ্দেশ্যে কোপাল দেবর 

জুয়েল রানা, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ০৪ মে ২০১৯, ০৭:৫২ PM
আপডেট: ০৪ মে ২০১৯, ০৭:৫২ PM

bdmorning Image Preview


কুমিল্লার তিতাস উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামে জায়গা জমির ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাসলিমা আক্তার (৩৫) নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে তারই দেবর মোঃ জামাল মিয়া ও দেবরের স্ত্রী পিংকি আক্তার।

শনিবার (৪ মে) সকালে এ ঘটনাটি ঘটে। আহত তাসলিমা আক্তার মুমূর্ষ অবস্থায় তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এঘটনায় তিতাস থানায় দেবর ও দেবরের স্ত্রীরসহ ৩ জনের নাম উল্লেখ করে আহতের স্বামী মোঃ শাহ আলম (৪৫) বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকালে দূর্গাপুর গ্রামের মৃত আঃ খালেকের ছেলে মোঃ জামাল মিয়া (৩৫) ও তার স্ত্রী পিংকি (২৫) জায়গা জমির কোন্দলের জের ধরে তার আপন বড় ভাই মোঃ শাহ আলমের স্ত্রী তাসলিমা আক্তারকে রামদা ও হাতুরি দিয়ে ডান হাতে, দুই পায়ের হাটুর নিচে কোপ দেয় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিঠিয়ে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম করে।

এসময় তাসলিমার আক্তারের চিৎকারে শুনে প্রতিবেশীরা আসে এবং ঘটনাস্থল থেকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। 

এছাড়াও জানা যায়, ভিকটিম তাসলিমা আক্তার ও তার স্বামী শাহ আলমের সাথে জায়গা সম্পত্তি নিয়ে পূর্ব শত্রুতা রয়েছে আসামি জামালের। আজ থেকে ৪/৫ মাস আগে ভিকটিমের সাথে জমি নিয়ে ঝগড়াঝাটি ও কথাকাটি হয় উভয়ের মধ্যে এবং তখন জামাল তাসলিমাকে আঘাত করে এবং তখন তাসলিমার হাতে থাকা গরম পানি জামালের উপর ছুড়ে মারে তাসলিমা। গরম পানিতে জামালের শরীরের বিভিন্ন অংশ সামান্য ঝলসে যায়। 

তারই প্রতিশোধ নেয়ার জন্য প্রায় ২ মাস পর তাসলিমাকে একা পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগালি শুরু করে। ভিকটিম তার প্রতিবাদ করলে জামাল মিয়া, রিপন মিয়া, জামালের স্ত্রী পিংকি আক্তারসহ আরও কয়কজন তাকে লাঠিসোটা রামদা দিয়ে কুপিয়ে ও আঘাত করে হত্যার উদ্দেশ্যে। ভিকটিমের অবস্থা গুরুতর দেখে জামাল পালিয়ে যায়। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত জামাল মিয়ার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় তিতাস থানার এস আই আঃ রহমান (মামলার তদন্ত কর্মকর্তা) বলেন, অভিযোগ পেয়েছি এবং শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
 

Bootstrap Image Preview