Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ মঙ্গলবার, জুলাই ২০২০ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

উপজেলা নির্বাচনঃ সুনামগঞ্জে ওসির বিরুদ্ধে ঘুষ দাবির তদন্ত শুরু

সিলেট প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৩:১০ PM
আপডেট: ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৩:১৭ PM

bdmorning Image Preview


উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ থানার ওসি’র বিরুদ্ধে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর নিকট ৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবি’র অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে।  

সোমবার (১৮ মার্চ) নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শরিফুল ইসলাম ওই অভিযোগের তদন্ত শুরু করেন।

প্রধম ধাপে স্থগিত হওয়া জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত (নৌকা) প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইউসুফ আল আজাদ গত ১২ মার্চ নির্বাচন কমিশন সচিব বরাবর জামালগঞ্জ থানার ওসির বিরুদ্ধে ঘুষ দাবির ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের তারিখ ছিল ১০ মার্চ। ভোট গ্রহনের অনুকুল পরিবেশ না থাকায় ৮ মার্চ নির্বাচন কমিশন থেকে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে চিঠি দিয়ে ওই উপজেলায় ভোট গ্রহন স্থগিত করেন। এরপর ১২ মার্চ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউসুফ আল আজাদ নির্বাচন কমিশন সচিব বরাবর  জামালগঞ্জ থানার ওসির বিরুদ্ধে  ৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবি ও হুমকি ধামকি দেয়ার ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।‘

অভিযোগে আওয়ামী লীগ প্রার্থী উল্লেখ করেন গত ৯ মার্চ রাত ১১টার দিকে লোক মারফত জামালগঞ্জ থানার ওসি আমাকে দাওয়াত দিয়ে থানায় নিয়ে যান। এরপর তিনি আমাকে বলেন নির্বাচনে জয়লাভ করতে হলে পুলিশকে ম্যানেজ করতে হবে। কমপক্ষে ৫ লাখ টাকা না দিলে ম্যানেজ হবেনা। আমি অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি আমাকে বলেন টাকা না  থাকলে  নির্বাচন করে লাভ হবেনা। এরপর থেকেই ওসি আমার কর্মীদের হুমকি ধামকি ও মিথ্যা মামলায় ঢুকিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। 

জামালগঞ্জ থানার ওসি আবুল হাসেমের নিকট অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর সঙ্গে তফসিল ঘোষণার পর থেকে আমার দেখাই হয়নি, তিনি যেভাবে নির্বাচন চাচ্ছেন আমি সেভাবে রাজি না হওয়ায় এই মিথ্যা অভিযোগ করেন।

অভিযোগকারী চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউসুফ আল আজাদ বললেন, ওসি এখন মিথ্যাচার করছেন ঘুষ চাওয়ার বিষয়টি আড়াল করার জন্য, আমি নিজেই তো উনার ডাকে ৯ মার্চ রাতে থানায় গিয়ে উনার সাথে দেখা করেছি, তাহলে কী করে এখন ওসি বলেন তফসীল ঘোষণার পর থেকে আমার সাথে নাকী উনার দেখাই হয়নি। 

মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো.শরিফুল ইসলাম বলেন, ইউসুফ আল আজাদ ও জামালগঞ্জ থানার ওসি আবুল হাসেমকে অভিযোগের বিষয়ে ডাকা হলে তারা সোমবার শুনানিতে উপস্থিত হন এবং উভয়ই লিখিত বক্তব্য দিয়ে গেছেন। তদন্ত রিপোর্ট নির্বাচন কমিশনে পাঠানোর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

Bootstrap Image Preview