Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০২০ | ৬ আশ্বিন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

সমকামী প্রেমে রাজি না হওয়ায় খুন হলেন শান্তনু 

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ১০:৪০ AM
আপডেট: ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ১০:৪০ AM

bdmorning Image Preview
বাঁ দিকে- মৃত শান্তনু ভট্টাচার্য, ডান দিকে খুনি শুভঙ্কর


ফেসবুকে তাদের পরিচয় এবং বন্ধুত্ব। এক পর্যায়ে সমলিঙ্গের ঐ বন্ধুর থেকে সমকামী প্রেমের প্রস্তাব আসে কোচবিহারের মাধ্যমিক পড়ুয়া শান্তুনু ভট্টাচার্যের কাছে। শান্তনু রাজি না হওয়ায় ফেসবুক ঐ বন্ধুর হাতে নির্মমপভাবে খুন হতে হয় তাকে। খুনের তদন্তে নেমে এমনটাই মনে করছে পুলিশ।

গ্রেফতার করা হয়েছে শুভঙ্কর ঘোষ নামে মূল অভিযুক্তকে। তাকে জেরা করে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

গত মঙ্গলবার বিকেলে কোচবিহার শহর লাগোয়া হরিণচওড়া এলাকায় তোর্সা নদীর পাড় থেকে শান্তনু ভট্টাচার্যের নিথর দেহ উদ্ধার হয়। তার এবছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। তার অস্বাভাবিক মৃত্যুতে রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করে। পুলিস তার মোবাইল খতিয়ে দেখে শুভঙ্করের নাম জানতে পারে। কোতোয়ালির ঘুঘুমারি এলাকার বাসিন্দা শুভঙ্করের সঙ্গে শান্তনুর ফেসবুকে পরিচয় হয়। তারপর বন্ধুত্ব। দুজনে বেশ কয়েকবার দেখাও করে। এরপরই শান্তনুর প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে শুভঙ্কর। শান্তনু সেই সম্পর্কে যেতে রাজি হয়নি বলে দাবি শুভঙ্করের।

জেরায় পুলিস জানতে পেরেছে, শান্তনু শুভঙ্করের সঙ্গে যোগাযোগ কমিয়ে দেয়। এরপরই ক্ষোভ বাড়তে থাকে শুভঙ্করের। পুলিস জানিয়েছে, মঙ্গলবার বিকালেও শুভঙ্করের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিল শান্তনু। তারপর তারা তোর্সার চরে দেখা করে। সেখানেই সম্ভবত কথা কাটাকাটি হয় দুজনের। শান্তনুর গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে টান দেয় শুভঙ্কর। অচৈতন্য অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে শান্তনু। শুভঙ্কর এরপর বাড়ি চলে যায়। বাড়ি থেকে ছুরি নিয়ে ফের ওই এলাকাতেই ফেরে সে। মৃত্যু নিশ্চিত করতে শান্তনুর গলায় ছুরি চালিয়ে দেয়। শ্বাসনালি কেটে যায় শান্তনুর।

অভিযুক্ত গ্রেফতার হওয়ার পরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন শান্তনুর প্রতিবেশীরা। পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবি তুলেছেন তাঁরা।

Bootstrap Image Preview