Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০২০ | ১২ আশ্বিন ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

আখ খেতে ৪ টন ওজনের সোনার মুখোশ, মিলতে পারে আরও

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারী ২০১৯, ০৩:৩২ PM
আপডেট: ২৬ জানুয়ারী ২০১৯, ০৩:৩২ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


আখ খেতে ট্রাক্টর দিয়ে চাষ করছিলেন এক কৃষক। হঠাৎ এক শব্দ হয়ে আটকে গেল ট্রাক্টর। এরপর মাটির নীচ থেকে উদ্ধার হলো প্রায় চার টন ওজনের একটি সোনার মুখোশ।

ঘটনাটি ঘটেছিল ১৯৯২ সালের পূর্বে কলম্বিয়ার কাকা উপত্যকায়। এরপরই প্রকাশ্যে আসে মালাগানা সংস্কৃতির বেশ কিছু অজানা তথ্য।

সোনার মুখোশটি পাওয়ার পর সেটি লুকিয়ে রাখেন ওই কৃষক। কিন্তু এতো বড় বিষয় চাপা থাকেনি বেশিদিন। মুখোশটি পেতে খুন, লুঠপাটসহ রক্তক্ষয়ী বিভিন্ন ঘটনা ঘটে। এরপর প্রায় ৫০০ বর্গমিটার বিস্তৃত ওই জমিতে শুরু হয় খননকাজ।

প্রত্নতাত্তিকরা পরবর্তীতে সেখানে আবিষ্কার করেন ইয়ামাস, ইয়োতোকো, সোনসো ও মালাগানা সংস্কৃতি। এটি ৩০০ খ্রিস্টপূর্ব থেকে ৩০০ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত প্রায় ৬০০ বছর পর্যন্ত স্থায়িত্ব ছিল এই সভ্যতার। এই সংস্কৃতিকে বলা হত কালিমা সংস্কৃতি।

মাটির নীচে সন্ধান মিলেছিল এই সভ্যতার নানা সামগ্রীর। এসবের মধ্যে এর মধ্যে অন্যতম একটা সোনার চিমটে, যা ভ্রূ ঠিক করতে ব্যবহার করতেন প্রাচীনকালের অভিজাত ব্যক্তিরা।

এছাড়া প্রায় ১৫০টি মুখোশ ও গয়না মিলেছিল এই খননের ফলে। মিলেছিল প্রায় তত্কালীন আড়াই কোটি টাকা মূল্যের মুদ্রাও। কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোতার মুসেও দেল ওরো অর্থাৎ সোনার সংগ্রহশালায় রাখা রয়েছে এই প্রত্নসামগ্রীগুলো।

ইতিহাসবিদরা জানান, মৃত্যুর পর সমাধিস্থ করার সময় এই মারাত্মক বড় মুখোশ পরানো হত সেই সময়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের। এদের মধ্যে পুরোহিত ও অভিজাত ব্যক্তিরাও ছিলেন।

Bootstrap Image Preview