Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৫ বুধবার, নভেম্বার ২০২০ | ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

আছলাম সওদাগরকে মন্ত্রী হিসেবে চায় কুড়িগ্রামবাসী

মোঃ মনিরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ০৬ জানুয়ারী ২০১৯, ১১:৫৮ AM
আপডেট: ০৬ জানুয়ারী ২০১৯, ১১:৫৮ AM

bdmorning Image Preview


উত্তরের অবহেলিত এলাকা কুড়িগ্রাম-১ (নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী) আসনের এমপি আছলাম হোসেন সওদাগরকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী উপজেলাসহ কুড়িগ্রাম জেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ।

দেশ স্বাধীনের পর এ আসনে আওয়ামী লীগের কোনো এমপি বা মন্ত্রী না থাকায় সংসদে গিয়ে এলাকার সমস্যার কথা বলার কেউ সুযোগ পায়নি। ফলে চলমান সরকারের সকল প্রকার উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত এই অঞ্চলের জনসাধারণ। নদীবেষ্টিত এই অঞ্চলে অনেক প্রতিভাবান ব্যক্তি থাকলেও কারও ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি।

বরাবরই কুড়িগ্রাম জেলা থেকে গেছে দারিদ্রের শীর্ষে। এর কারণ হিসেবে ভৌগোলিক ও রাজনৈতিক বৈষম্যকে দায়ী করছেন বিশ্লেষকরা। ফলে শিক্ষা, কর্মসংস্থান অর্থনৈতিকসহ বিভিন্ন দিক থেকে পিছিয়ে এসব অঞ্চলের খেটে খাওয়া মানুষ। সবদিক থেকে উন্নয়নের অপার সম্ভাবনা সত্বেও সরকারদলীয় কোনো এমপি-মন্ত্রী না থাকায় এসব অঞ্চলের দারিদ্রতার কারণ হিসেবেও উল্লেখ করেন অনেকে। 

সম্ভাবনাময় এই জেলায় উন্নয়নের অংশ হিসেবে সোনাহাট স্থলবন্দর একটি রাজস্ব আয়ের উৎস সমূহের মধ্যে অন্যতম। তাই এই অঞ্চলে একজন মন্ত্রী হলে এই আসনের দুই উপজেলাসহ জেলার অন্যান্য উপজেলাগুলোও হবে অনেক উন্নত। বাড়বে সরকারের আয়ের উৎস। তখনই মুছে যেতে পারে দরিদ্র নামটি। 

স্থানীয়রা বলছেন স্বাধীনতা পরবর্তী এ আসনে আমরা কখনও আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রী দেখিনি। এবার বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এমপি পেয়েছি। আমারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বঙ্গকন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে এমপি উপহার দিয়েছি। আমাদের দাবি এ আসনের নির্বাচিত প্রার্থী আছলাম ভাইকে মন্ত্রী করা হোকে। 

নাগেশ্বরী প্রেক্লাবের সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, দুধকুমরের উপর সেতু নির্মাণ, নদী খনন, নদী শাসন, বাঁধ নির্মাণ, নন এমপিও স্কুল কলেজগুলোকে এমপিওভুক্ত করা, সড়ক পাকা করণ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎসহ সকল প্রকার উন্নয়নের জন্য আছলাম ভাইকে মন্ত্রী করা আমাদের জোর দাবি। 

ভূরুঙ্গামারী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক মন্টু বলেন, আমরা প্রধানন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী ও বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আছলাম ভাইয়ের নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে এমপি নির্বাচিত করেছি। আমাদের এ অঞ্চল অনেক পিছিয়ে তাই আমাদের আছলাম ভাইকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই। 

প্রভাষক রফিকুল ইসলাম বলেন, এই অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহ এবং শিল্প কারখানা না থাকায় বেকারত্ব ও দারিদ্র্য সমস্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। এ সমস্যা দূরীভূত করতে গ্যাস সরবরাহসহ ইপিজেডের মত শিল্পাঞ্চলের প্রয়োজন। আর এ আশা পূরণ করতে হলে চাই সরকারদলীয় মন্ত্রী। 

নাগেশ্বরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজাম্মেল হক প্রধান বলেন, আমরা সকলে সম্মিলিতভাবে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করেছি। একইভাবে আমাদের সমন্বিত দাবি আছলামের নামটা মন্ত্রীসভায় থাকবে। 

উল্লেখ্য, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম-১ আসনে ৮জন প্রার্থী ভোট যুদ্ধ করে আছলাম হোসেন সওদাগরের নৌকা মার্কা ১ লাখ ২২হাজার ১৪ ভোট পেয়ে স্বাধীনতা পরবর্তী আওয়ামী লীগের প্রথম এমপি নির্বাচিত হন। তাঁর নিকটতম ঐক্যফ্রন্ট-বিএনপি মনোনিত প্রার্থী সাইফুর রহমান রানার ধানের শীষ পায় ১ লাখ ১৭ হাজার ৯শ ৩৫ ভোট।

এ আসনের কোন কেন্দ্রে ভোট প্রদান সংক্রান্ত কোন ব্যক্তি বা দলের অভিযোগ মেলেনি। ভোটাররা নির্বিঘ্নে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পেরেছেন। অন্তত এই কথা চিন্তা করে বঙ্গবন্ধু কন্যা; প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসলাম সওদাগরকে মন্ত্রী পরিষদে জায়গা দিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী তথা কুড়িগ্রামের প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতারা।

 

Bootstrap Image Preview