Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ৩০ শুক্রবার, অক্টোবার ২০২০ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

কেউ হয়তো জানবেও না আমাদের হৃদয়ে একে অপরের জন্য কতটা জায়গা: জেমেস

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৮:০০ PM
আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৮:০০ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


জেমস-বাচ্চু। একই সঙ্গে উচ্চারিত দুটো নাম। বাংলা ব্যান্ডের সবচেয়ে জনপ্রিয় এ জুটির পথচলার শুরু সেই ৮০'র দশক থেকে।কনসার্টে অংশ নিতে এখন বরগুনায় অবস্থান করছেন জেমস। আইয়ুব বাচ্চু আর নেই—সেখানেই খবরটা পান তিনি। বন্ধ করে দেন অনুষ্ঠানের সাউন্ডচেক আর প্র্যাকটিস পর্ব। বিমর্ষ হয়ে পড়েন। ঘটে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ।

২০১৮ সালে শেষ ভাগে এসে একা হয়ে গেলেন নগরবাউল। দীর্ঘদিনের সঙ্গী এলআরবি তার সেই গানটি গাইতে গাইতে ছায়া হয়ে মিলিয়ে গেলেন।

‘আর বেশি কাঁদালে উড়াল দেব আকাশে’। কে কাঁদিয়েছে আইয়ুব বাচ্চুকে এ কথা আর কোনদিনও জানা যাবে না! জানা যাবে না গিটারের জাদুকরের অভিমানের রঙ কি! ‘জেমস কোথায়’? 

বৃহস্পতিবার স্কয়ার হাসপাতাল প্রাঙ্গণে সবচেয়ে বেশিবার এসেছে এই প্রশ্নটি। কেননা, আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ রয়েছে এই হাসপালটিতেই।

বেলা ১২ টার দিকে ফোনে পাওয়া যায় জেমসকে। সংবাদটি শোনার পর সুরসাথী হারানোর এক যন্ত্রণা ফুঁটে ওঠে নগরবাউলের কন্ঠে।

সরকারের উন্নয়ন মেলায় অংশ নিতে বর্তমানে বরিশালে রয়েছেন জেমস। দুঃখ ভারাক্রান্ত কন্ঠে বলেন, ‘রকস্টার এভাবে চলে গেলেন? ক্ষতিটা অপূরণীয়’

একটু থেমে আর্দ্রকণ্ঠে জেমস বলেন, ‘উনি অত্যন্ত উদার মনের মানুষ ছিলেন। প্রচণ্ড রসাত্মবোধ ছিল তার মধ্যে। ওনার সাথে আমার যে সম্পর্কটা সেটা আসলে বলে বোঝানো যাবে না। বিভিন্ন সময়ে কারণে-অকারণে আমরা একজন আরেকজনের পাশে ছিলাম। সম্পর্কের এই গভীরতার কথা কখনও বোঝাতে পারবো না। কেউ হয়তো জানবেও না আমাদের হৃদয়ে একে অপরের জন্য কতটা জায়গা।’

এরকম আক্ষেপ থেকে জেমস ফিরে যান ৮০'র দশকে। বলেন, ‘বাচ্চু ভাইর সঙ্গে পথচলা শুরু সেই ৮০'র দশকে। এক সঙ্গে কত পাগলামি-গান, সুখ-দুঃখ, মান-অভিমান। দীর্ঘ এ যাত্রার স্মৃতিচারণ ফুরোবার নয়।’ 

অ্যালবামের যুগ উল্লেখ করে জেমস বলেন, আমাদের দুজনের মিক্সড অ্যালবাম যে পরিমানে শ্রোতাপ্রিয়তা পেয়েছিলো তা ছিল ভাবনারও অতীত। সেই আইয়ুব বাচ্চু বেঁচে নেই। আমার ঘাড়ে কতশত স্মৃতি রেখে চলে গেলেন। মেনে না নেওয়ার মত একটা দিন আজ। আজকের কনসার্টটি আমি বাচ্চু ভাইর নামে উৎস্বর্গ করছি।’

এরপর জেমস বললেন, ‘আমি এখন বরগুনা আছি। এটা আমার জন্য দুর্ভাগ্যজনক। ঢাকায় থাকলে ছুটে যেতে পারতাম। বরগুনা স্টেডিয়ামে আজ সন্ধ্যায় একটি রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে গাইতে হচ্ছে। আমি খবরটি পেয়েই মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের (আসাদুজ্জামান নূর) সঙ্গে কথা বলেছি। সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আজকের কনসার্টটি উনাকে (আইয়ুব বাচ্চু) ডেডিকেটেড করে করবো। কতটা প্রাণখুলে গাইতে পারবো জানি না।’

Bootstrap Image Preview