Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২০২০ | ১০ মাঘ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

বিএনপিতে সরকারের এজেন্ট ঢুকে পড়েছে : ফখরুল

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:০২ PM
আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:০২ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


বিএনপিতে সরকারের এজেন্ট ঢুকেছে বলে দাবি করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, ‘বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে দলের মধ্যে সরকারের এজেন্ট ঢুকে পড়েছে। আমি দলের সবাইকে আহ্বান করব, সরকার পতন আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার।’

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রোববার (১৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের মধ্যে এ অবৈধ সরকারের বিভিন্ন এজেন্ট ঢুকে পড়েছে, ঢুকে বিভিন্নভাবে আমাদের মধ্যে পার্থক্য সৃষ্টি করতে চায়, বিভিন্ন রকম কথা বলে আমাদের বিভ্রান্ত করতে চায়।’

ফখরুল বলেন, ‘আমি বলতে চাই, কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। আমরা সবাই ঠিক আছি। শুধু তৃণমূল নয়, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের এবং যারা জাতীয়তাবাদের রাজনীতি বিশ্বাস করে সব দেশপ্রেমিক এক আছে। আমাদের দরকার শুধু শক্তি সঞ্চয় করে সঠিক সময়ে সঠিক জায়গায় আঘাত করা। সেই আঘাতের জন্য আমরা প্রস্তুত হচ্ছি।’

অবিলম্বে নতুন নির্বাচন না দিলে সরকারকে জনগণের মুখোমুখি হতে হবে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে সরকারপ্রধানের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা খুব পরিষ্কার করে বলতে চাই, সময় নেই। অবিলম্বে এ পার্লামেন্ট বাতিল করুন, পার্লামেন্ট বাতিল করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সে তত্ত্বাবধায়ক সরকার যেটা আগে ছিল, সেটি গঠন করে একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের অধীনে অবিলম্বে নির্বাচন দিন। অন্যথা জনগণের আন্দোলন আপনাকে ফেস করতে হবে। তখন আর আপনি কোনো সময় পাবেন না।’

দেশের বুদ্ধিজীবীদের প্রতি অনুরোধ রেখে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধার সঙ্গে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করছি। আমি আজকে বাংলাদেশের প্রতিটি বুদ্ধিজীবীর কাছে আহ্বান জানাতে চাই, উঠে দাঁড়ান আপনাদের পূর্বসূরিদের মতো জেগে উঠুন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, বাংলাদেশের মুক্তিকে রক্ষা করার জন্য সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসুন।’

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে ও সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, সেলিমা রহমান, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, শিরিন ‍সুলতানা, আবদুস সালাম আজাদ, শহীদুল ইসলাম বাবুল।

এছাড়া অঙ্গ সংগঠনের মধ্যে যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, উলামা দলের শাহ মো. নেছারুল হক, মৎস্যজীবী দলের রফিকুল ইসলাম মাহতাব, মহিলা দলের সুলতানা আহমেদ, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদও বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে বিএনপির ফজলুল হক মিলন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, বিলকিস ইসলাম, রফিক শিকদার, দেবাশীষ মধু, হেলেন জেরিন খান, নজরুল ইসলাম তালুকদার, আব্দুর রহিম, রফিক হাওলাদারসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Bootstrap Image Preview