Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৯ রবিবার, আগষ্ট ২০২০ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

হযরত খানজাহানের ৫৬০তম ওফাত দিবস উপলক্ষে ওরস

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৩৫ PM
আপডেট: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৩৫ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


হযরত খানজাহানের (রহ.) ৫৬০তম পবিত্র ওফাত দিবসে দুই দিনব্যাপী ওরস সোমবার বাদ-আসর থেকে মাজার শরীফে শুরু হয়েছে।

হযরত খানজাহানের ওফাত দিবসে দুই দিনব্যাপী ওরস, ধর্মীয় সমাবেশ ও দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে মাজার শরীফে জড়ো হয়েছেন হাজার হাজার ভক্ত-আশেকান।

এ ভক্ত-আশেকানদের কেউবা দলবেঁধে হযরত খানজাহানের (রহ.) উদ্দেশ্য করে মারফতি গান গাইছেন, কেউবা রোগমুক্তির আশায় মানতের মুরগি-ছাগল কুমিরকে খাওয়াতে দীঘিতে ছুঁড়ে মারছেন। অনেকে আবার মাজার জিয়ারতসহ পবিত্র কোরআন পাঠ করছেন।

পবিত্র ওরসকে ঘিরে মাজার প্রাঙ্গণে নানরকম পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানিরা। হযরত খানজাহানের (রহ.) পবিত্র ওফাত দিবসের ওরস অনুষ্ঠান সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে সম্পন্ন করতে জেলা ও পুলিশ প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

হয়রত শহজালারের (রহ.) সিলেটের পর দেশের দ্বিতীয় আধ্যাত্বিক রাজধানী হযরত খানজাহানের (রহ.) বাগেরহাট। ইউনেস্কোর ঘোষিত মসজিদের শহরতলীতে চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন হযরত খানজাহানের (রহ.)। তিনি ছিলেন একজন সেনাপতি, সাধক, ধর্মপ্রচারক ও সুশাসক।

ঐতিহাসিকদের মতে, প্রায় ৬শ'বছর আগে গৌড়ের সুলতান নাসিরউদ্দিন মাহমুদ শাহের প্রতিনিধি হিসেবে যুদ্ধ করতে করতে যশোরের বারোবাজার হয়ে বাগেরহাটে এসে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বিশাল রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। এই অঞ্চলজুড়ে ঐতিহাসিক ষাটগম্বুজসহ ৩৬০টি মসজিদ নির্মাণ ও সুপেয় পানির চাহিদা মেটাতে ৩৬০টি দীঘি খনন করেন।

তার মাজার শরীফের গায়ে পাথরে খোদাই করা শিলালিপি অনুযায়ী হযরত খানজাহানের (রহ.) ১৪৫৯ সালের এই দিনে এশার নামাজরত অবস্থায় ৯০ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন।

বাংলাদেশে ইসলাম প্রচারের ক্ষেত্রে যে সব ওলি-আউলিয়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন, হযরত খানজাহানের (রহ.) তাদের মধ্যে অন্যতম। জনসাধারণের কাছে তিনি ছিলেন এক অলৌকিক ক্ষমতাবান মহাপুরুষ।

মাজার শরীফের প্রধান খাদেম শের আলী ফকির জানান, হযরত খানজাহানের (রহ.) ওফাতের পর প্রতিবছর তার ভক্ত ও অনুরাগীরা ওফাত দিবস পালন করে আসছেন। এ বছর হযরত খানজাহানের (রহ.) ৫৬০তম পবিত্র ওফাত দিবসে তার মাজার শরীফে দুই দিনব্যাপী ওরস, ধর্মীয় সমাবেশ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

সোমবার বাদ-আসর থেকে মাজার শরীফে শুরু হয় অনুষ্ঠান। মঙ্গলবার ভোরে ফজরের নামাজের পর আখেরী মোনাজান ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে মাজার শরীফে আসা হাজার হাজার ভক্ত-আশেকানের মাঝে ওরসের তবারক বিতরণের মধ্যে শেষ হবে হযরত খানজাহানের (রহ.) ৫৬০তম পবিত্র ওফাত দিবসের অনুষ্ঠান।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজ আফজাল জানান, হযরত খানজাহানের (রহ.) ৫৬০তম পবিত্র ওফাত দিবস উপলক্ষে গোটা মাজার শরীফ এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশের পক্ষ থেকে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। ট্রাফিক ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে।

ওফাত অনুষ্ঠান শুরুর আগেই গোটা মাজার শরীফ এলাকায় হাজার হাজার ভক্ত-আশেকানদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে।

Bootstrap Image Preview