Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ শনিবার, ডিসেম্বার ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

রাজাকারের সন্তানের পতন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের উত্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০১৯, ০১:৩৬ PM
আপডেট: ২৭ নভেম্বর ২০১৯, ০২:৩২ PM

bdmorning Image Preview


মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১২ ডিসেম্বর। নির্বাচন ঘীরে ইতোমধ্যে দৌড় ঝাপ শুরু করেছেন প্রার্থীরা।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সালাহ উদ্দিন হেলালী কমল তার বিপরীতে ছিলেন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বিভিন্ন স্থাপনায় অগ্নিসংযোগ করাসহ নানা ধরনের দেশ বিরোধী কাজে যুক্ত   আবু বক্কর চৌধুরীর পুত্র বিআইডব্লিউটিএ’র তালিকাভূক্ত নদী দখলকারী ও মহেশখালী উপজেলা বিএনপির সাবেক নেতা আব্দুল খালেক চৌধুরী। তবে জমি দখলের অভিযোগে আব্দুল খালেক চৌধুরীকে অযোগ্য ঘোষণা করেছেন আদালত।

জানাগেছে, আব্দুল খালেক দীর্ঘ ২০ বছর বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রকাশিত বই ‘সমৃদ্ধ কক্সবাজার’ ও ‘তৃণমূল’ নামে দু’টি বইয়ে আব্দুল খালেকের নাম পরিচয় রয়েছে গ্রামের ঠিকানাসহ। এছাড়া কক্সবাজার বিএনপি’র জেলা কমিটির তালিকায় এখনো নাম আছে তার।

মহেশখালী থানা বিএনপির সভাপতি ড. আব্দুল মোতালেব-সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম এম.কমে’র কমিটির ২৮ নম্বর সদস্য ছিলেন সদ্য নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান নির্বাচনের মনোনয়ন পাওয়া এই আব্দুল খালেক।

অভিযোগ আছে ২০১৪ সালের নির্বাচনের পরে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করেন বহুল আলোচিত খালেক চেয়ারম্যান। মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ এক নেতার আত্মীয় হওয়ার সুযোগ নিয়ে মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বনে যান আব্দুল খালেক ।

মহেশখালী উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল করিম বলেন, “ক্ষমতা বদলের সাথে সাথে রূপ বদলে যায় খালেকের। এক সময় তিনি বিএনপি’র রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও পরবর্তী সময়ে সুবিধাবাদী হিসেবে তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন।”

শাপলাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওসমান সরওয়ার বলেন, “এক সময় বিএনপি রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন খালেক চেয়ারম্যান। উপজেলা সভাপতির ভায়েরা হওয়ার সুবিধা নিয়ে তিনি এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।”

অন্যদিকে, ২০০৬ সাল থেকে প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় সাংবাদিকতায় যুক্ত ছিলেন মুক্তি যোদ্ধার সন্তান কমল। পেশাগত জীবনের বাইরে সৃজনশীল ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেকে জড়িত রেখেছেন।

 

তিনি জানান, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে বেশ কিছুদিন ধরে ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে মানুষের ঘরে ঘরে যাচ্ছেন কমল।

সালাহ উদ্দিন হেলালী কমল বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে যে দেশপ্রেম ও চেতনা ভেতরে কাজ করছে, সেটিই আমাকে এই নির্বাচনে টেনে এনেছে। আমি শাপলাপুরের সন্তান। এই শাপলাপুরের মানুষের উন্নয়নে আমার মরহুম বাবার অনেক স্বপ্ন ছিল। আমি তার স্বপ্ন যেমন বাস্তবায়ন করতে পারি,অবহেলিত জনগনের পাসে থাকতে চাই,আমার বাবার অসামপ্ত কাজ সম্পূর্ণ করা।জনগনের সেবা করা।শাপলাপুর ইউনিয়নকে মহেশখালির মডেল ইউনিয়নে রুপান্তর করতে চায়।

তিনি বলেন, টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থা নির্মাণ, ভূমির সর্বোত্তম ব্যবহার, নিত্য-নতুন উৎপাদন প্রণালি আবিষ্কার, নারীদের জন্য কুটিরশিল্প, যুবকদের জন্য কারিগরি বিদ্যালয়, ভকেশনাল ট্রেনিং, তরুণদের জন্য পাঠাগার-সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, শিশুদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশের জন্য সৃজনশীল কর্মসূচি, স্থানীয় জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিয়মিত ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পসহ ইউনিয়নটিকে ডিজিটাল ইউনিয়নে রূপান্তরসহ শতভাগ সাক্ষরতা নিশ্চিত করতে চাই আমি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শাপলাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা  মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন হেলালী ছিলেন দলের ত্যাগী সংগঠক।

সালাহ উদ্দিন হেলালী কমল সাংবাদিক হিসেবে  কাজ করেছেন ইন্ডিপেন্ডেন টিভির (তালাশ) এর সিনিয়র রিপোর্টার। তিনি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি ও আল জাজিরায়ও কাজ করেছেন।

Bootstrap Image Preview