Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ রবিবার, ডিসেম্বার ২০১৯ | ১ পৌষ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

পেঁয়াজ নিয়ে বিপাকে মজুদদাররা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৪৩ AM
আপডেট: ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৪৩ AM

bdmorning Image Preview


প্রশাসনের অব্যাহত অভিযান, নতুন পেঁয়াজের সরবরাহ বৃদ্ধি ও সরকারি উদ্যোগে আমদানির প্রভাবে সারা দেশে ঘণ্টায় ঘণ্টায় কমছে পণ্যটির দাম। ক্রেতারাও পেঁয়াজ কেনা কমিয়ে দিয়েছেন। লোকসানের ভয়ে চাহিদার চেয়ে কম পেঁয়াজ সরবরাহ করছেন খুচরা বিক্রেতারা। অনেক বিক্রেতা বিক্রিই বন্ধ করে দিয়েছেন। এতে এবার পেঁয়াজ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মজুদদাররা। পচে যাওয়ার আশঙ্কায় মজুদ পেঁয়াজ দ্রুত বিক্রির জন্য আড়তদারদের তাগাদা দিচ্ছেন তারা। এদিকে একদিন পিছিয়ে আজ থেকে দেশে আসছে সরকারি উদ্যোগে উড়োজাহাজের মাধ্যমে আমদানি করা পেঁয়াজ। সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির মাধ্যমে এগুলো বিক্রি করা হবে।  

গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, দেশি পেঁয়াজ খুচরায় কেজিপ্রতি ২০০ টাকার নিচে বিক্রি হচ্ছে। মিয়ানমারেরটা

১৯০ ও মিসরেরটা ১৭০ টাকায় বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। তবে মহল্লার খুচরা দোকানে এখনো অনেকে ২০০-২২০ টাকা কেজিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। আর শ্যামবাজারে দেশি পুরনো পেঁয়াজের কেজি ১৪০-১৫০ টাকা, দেশি নতুন ৯০-১০০ টাকা, মিয়ানমার ১০০-১২০ টাকা, মিসরের নিম্নমানের ৬০ টাকা ও ভালো মানের ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

শ্যামবাজারের পাইকারি আড়তদার আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘গত তিন দিন ধরে বেচাকেনা একেবারে নেই বললেই চলে। বাজারে দাম কমায় এই অবস্থা তৈরি হয়েছে। মূলত দাম বাড়লে বিক্রি বাড়ে আর কমলে কেউ কিনতে চায় না। এখন মজুদ পেঁয়াজ পচে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। আবার বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসা শুরু করেছে। প্রতিদিন এর পরিমাণ বাড়ছে। এভাবে চলতে থাকলে কয়েক দিনের মধ্যে দাম অর্ধেকে নেমে আসবে।’

এদিকে পেঁয়াজের দাম কমায় বিপাকে পড়েছেন রাজধানীর খুচরা বিক্রেতারাও। তাদের ভাষ্য, বেশি দাম দিয়ে পেঁয়াজ কিনে এখন কেজিতে ৫০ টাকা পর্যন্ত লোকসান দিতে হচ্ছে। কারওয়ান বাজারের বিক্রেতা জুয়েল বলেন, ‘২২০ টাকা কেজি দামে পেঁয়াজ কিনে এখন ১৭০ টাকা দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। ঘণ্টায় ঘণ্টায় দাম কমায় ক্রেতারাও পেঁয়াজ কেনা কমিয়ে দিয়েছেন। পেঁয়াজ নিয়ে এখন বড় বিপাকে আছি।’

উড়োজাহাজে আসবে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ : সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে আমদানি করা ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ উড়োজাহাজের মাধ্যমে আনা হবে। এর মধ্যে আজ বুধবার একটি যাত্রীবাহী উড়োজাহাজে আসবে প্রথম চালান। পেঁয়াজ আনার জন্য ১০টি ফ্লাইট ভাড়া করা হয়েছে। এছাড়া জলপথে আমদানি করা ১২ হাজার টন পেঁয়াজ আগামী ২৫ নভেম্বর চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছবে। এসব পেঁয়াজ সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির মাধ্যমে বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পরিস্থিতির সুযোগ নেওয়ায় পেঁয়াজের দাম বাস্তবের তুলনায় অনেক বেশি বেড়েছে। পণ্যটির দাম যত বেড়েছে, সব ব্যবসায়ী সহযোগিতা করলে এতটা নাও বাড়তে পারত। এছাড়া ভারত রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েও তা রক্ষা না করায় বাংলাদেশের বাজার প্রভাবিত হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশে চাহিদার সমান পেঁয়াজ উৎপাদন হলেও স্বাভাবিক নষ্টের কারণে বছরে ৭-৯ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়, যা প্রধানত ভারত থেকে আসে। প্রতি বছর সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বরে গড়ে ১ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়। এ বছর তা সম্ভব হয়নি। দেশে উৎপাদনের মাধ্যমেই চাহিদা মেটানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কৃষকরা যাতে ন্যায্য দাম পায় সেজন্য আমদানি বন্ধ বা উচ্চ করারোপের চিন্তা করা হচ্ছে। এছাড়া কৃষকদের কম সুদে ঋণ প্রণোদনা দেওয়া হবে।

এক দিন পিছিয়ে উড়োজাহাজে পেঁয়াজ আসছে আজ : মিসর থেকে এস আলম গ্রুপের আমদানি করা পেঁয়াজের চালান গতকাল মঙ্গলবার দেশে পৌঁছার কথা ছিল। কিন্তু শিডিউলজনিত জটিলতায় এক দিন পিছিয়ে আজ গভীর রাতে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ওই পেঁয়াজ পৌঁছবে। পেঁয়াজবাহী সৌদি এয়ারলাইনসের ফ্লাইট এসভি-৩৮০২ সৌদিতে ট্রানজিট নেওয়ার কারণে এই দেরি বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

চট্টগ্রামে টিসিবির পেঁয়াজ কিনতে ক্রেতাদের ভিড় : চট্টগ্রাম ব্যুরো জানিয়েছে, নগরীতে টিসিবির উদ্যোগে ৪৫ টাকা কেজি দরে ৬টি ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। এসব ট্রাক থেকে পেঁয়াজ কিনতে ভিড় করছেন ক্রেতারা। পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক হওয়ার আগ পর্যন্ত বিক্রি অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন টিসিবি চট্টগ্রামের আঞ্চলিক কর্মকর্তা জামাল উদ্দিন।

জেলায় জেলায় কমছে পেঁয়াজের দাম : রাজধানীর বাইরে বিভিন্ন জেলায়ও পেঁয়াজের দাম কমেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। একই সঙ্গে অব্যাহত রয়েছে প্রশাসনের অভিযান। দিনাজপুরের হিলিতে এক দিনের ব্যবধানে দেশি পেঁয়াজের দাম কেজিতে ১০-২০ টাকা কমে ১৪০-১৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে বাড়তি দাম নেওয়ায় তিন ব্যবসায়ীকে ২১ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সিলেটে সিটি মেয়র আরিফুল হকের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়েছে সিটি করপোরেশন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এ সময় বাড়তি দামে পেঁয়াজ বিক্রির দায়ে তিন ব্যবসায়ীকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

Bootstrap Image Preview