Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৩ শুক্রবার, ডিসেম্বার ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

সাংবাদিক হৃদয়ের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:১৩ PM
আপডেট: ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:১৩ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


সম্পূর্ণ ব্যাক্তিগত উদ্যোগে গত জুন মাস থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দুই হাজার বৃক্ষরোপণ করেছেন মৌলভীবাজারের তরুণ সাংবাদিক হৃদয় দেবনাথ।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই জানিয়ে তিনি বলেন, আমার দেশে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে বন জঙ্গল উজাড় করে ফেলা হচ্ছে; যার ক্ষতিকর প্রভাব ইতোমধ্যে প্রতীয়মান। পৃথিবীতে সুস্থ সবলভাবে বেঁচে থাকতে হলে বিশুদ্ধ অক্সিজেন প্রয়োজন আর এই অক্সিজেনের সম্পূর্ণটাই আসে বৃক্ষ থেকে। অথচ সেই জীবন রক্ষাকারী বৃক্ষকেই উজাড় করে ফেলছি আমরা।

 ''আর নয় বৃক্ষ নিধন-আমরা করবো সবুজায়ন'' এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গত জুন মাস থেকে সম্পূর্ণ ব্যাক্তিগত উদ্যোগে বিভিন্ন এলাকায় ধারাবাহিক বৃক্ষরোপণ করে যাচ্ছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, গত জুন মাসে বাহুবল উপজেলার মিরপুর এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দুইশ বৃক্ষরোপণ করেছি। শুরুতে আমার কিছুটা আর্থিক সংকট ছিল। কিন্তু সে সময়ে আমার ছেলে রাজদ্বীপ তার স্কলারশিপ থেকে প্রাপ্ত টাকা দিয়ে আমাকে গাছের চারা কিনে দিয়েছিলেন। আমার ছেলেও প্রকৃতিপ্রেমী আর তাই সেও আমার এ সমস্ত কার্যক্রমে অংশ নেয়।

হবিগঞ্জ জেলা সদরের রামপুর, কুমিল্লা জেলার শ্রীনগর, মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া থেকে শুরু করে শমসেরনগর এবং বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) বিকেলে কুলাউড়ার দত্তগ্রাম এবং হিংগাজি বাজার এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করেছি। বৃক্ষরোপণের ধারাবাহিক এ কার্যক্রমে আগামী ১৬ ই ডিসেম্বর লাউয়াছড়ার গহীন বনে প্রায় এক হাজার গাছ রোপণের প্রস্তুতি নিয়েছি। লাউয়াছড়ায় বিভিন্ন প্রজাতির মধ্যে বেশিরভাগই থাকবে ফলজ গাছ যাতে করে বন্যপ্রাণীদের খাবারের যোগান হিসেবে কাজ করে।

বন্যপ্রাণীর পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্যের অভাবের কথা তুলে ধরে তিনি উল্লেখ করেন, খাদ্য সংকটে প্রায়শই বিভিন্ন বন্যপ্রাণী লোকালয়ে চলে যায়। অজ্ঞতার কারণে কেউ কেউ বিপন্ন এসব বন্য প্রাণী পিটিয়ে মেরে ফেলেন। লাউয়াছড়ায় যদি পর্যাপ্ত ফলজ গাছ থাকতো তাহলে বন্যপ্রাণীরা খাদ্য সংকটে লোকালয়ে গিয়ে মারা পড়তোনা। এ বিষয়টি বিশেষ বিবেচনায় এনে লাউয়াছড়ার ভেতরে ফলজ গাছ লাগানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

উল্লেখ্য, বৃক্ষ সংরক্ষণ ও গবেষণায় গণমাধ্যমে ধারাবাহিক প্রতিবেদন তুলে ধরে সচেতনতা তৈরী করায় সিলেট বিভাগীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরষ্কার-২০১৮ অর্জন করেন সাংবাদিক হৃদয়। বর্তমানে তিনি দেশের স্বনামধন্য টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভি ও জাতীয় দৈনিক সময়ের আলোতে মৌলভীবাজার জেলায় কর্মরত।  

Bootstrap Image Preview