Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ বুধবার, অক্টোবার ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

আবরার হত্যা: প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে যা বললো ১০ আসামি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৪:২৭ PM
আপডেট: ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৪:২৭ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যার কারণ ভিন্নমত। 

সামাজিক যোগাযোগ-মাধ্যম ফেসবুকে তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সাম্প্রতিক কয়েকটি চুক্তির সমালোচনা করেন। আর এ সমালোচনার কারণেই পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে আবরার ফাহাদকে।

আর তাঁকে মেরেছেন তাঁরই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা, তাঁরা সবাই ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী।

আবরার হত্যা মামলায় রিমান্ডে থাকা ১০ আসামি গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছেন ডিবির ঢাকা দক্ষিণের এডিসি রাজিব আল মাসুদ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তিনি এ তথ্য জানান। এ ঘটনায় যেই জড়িত থাকুক তাকে আইনের আওতায় আনার অঙ্গীকার করেন তিনি।

এডিসি রাজিব আল মাসুদ বলেন, প্রাথমিকভাবে তারা যেটা বলেছে, যে হত্যার মোটিভ টি আসলে হত্যার জন্য ছিল না। মরাপিট করতে করতে এক পর্যায়ে  ভিকটিম মারা যায়। যাদেরকে আমরা ধরেছি, তারা মারপিট অংশ গ্রহণ করেছে, এরকমটা স্বীকার করেছে।

তিনি বলেন, এজাহারের নাম থাকলে যে কেউ আসামি হবে। বিষয়টা এমন না। বিষয়টা তদন্ত সাপেক্ষে বের করতে হবে। এর ঘটনার সাথে যারা জড়িত ছিল, প্রাথমিক ভাবে তারা ধরা পড়েছে।

আমরা তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি, যাদের নাম পেয়েছি, তাদের নাম নোট করেছি। সে ক্ষেত্রে অমিত শাহ কেনো অন্য কেউ যদি থাকে তাদেরকেও ধরা হবে।

এদিকে বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে একটি ছাত্র সংগঠনের জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি উঠেছে সাধারণ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের কাছ থেকে।

বুয়েটের ইলেক্ট্রনিক এন্ড ইলেট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের একজন সাধারণ শিক্ষার্থী যিনি নিজেকে রাহাত নামে পরিচয় দিতে চান, তিনি বলেন, শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতির নামে যা চলছে তা অবশ্যই বন্ধ হওয়া উচিত। এসব অত্যাচারগুলা বন্ধ হতে হলে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ হওয়া উচিত।’

Bootstrap Image Preview