Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ বুধবার, অক্টোবার ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘ডিজিটাল পর্যটন’ উৎসব পালনের উদ্যোগ নিয়েছে রান বাংলাদেশ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:০৪ AM
আপডেট: ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:০৪ AM

bdmorning Image Preview
নিজস্ব


মুজিববর্ষ-২০২০ উপলক্ষে রান বাংলাদেশের সাথে যৌথভাবে ‘ডিজিটাল পর্যটন’ উৎসব অয়োজন করতে যাচ্ছে  টেকগনাইজ সল্যুশন লিমিটেড।

বছরব্যাপী কর্মসূচি পালনের লক্ষ্যে গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন দিবসে রান বাংলাদেশ ও টেকগনাইজ সল্যুশন মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

এই আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে কক্সকবাজার জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন ডিজিটাল-ট্যুরিজম  বাস্তবায়ন ও পর্যটন শিল্পের উন্নয়নের জন্য দুই সংস্থাকে অনুমতি দিয়েছেন (স্মারক নম্বর- ০৫.২০.২২০০.১১১.০২.০০৪.১৭-১৪৪)।

অপার সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ এ শিল্পে কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে। ২০১৭ সালে বাংলাদেশের জিডিপি খাতে পর্যটন শিল্পের অবদান ছিল ৮৫০.৭ বিলিয়ন টাকা। এ খাতে কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে ২৪ লাখ ৩২ হাজার। একই বছর পর্যটন খাতে বিনিয়োগ এসেছে ৪৩ বিলিয়ন টাকা।

এছাড়া সঠিক তথ্য-উপাত্ত না পাওয়া গেলেও ধারণা করা হয়, গত বছর বাংলাদেশে প্রায় ৫ লাখ বিদেশি পর্যটক ভ্রমণ করেন। মূলত বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পকে ডিজিটালাইজ ও আরো গতিশিল এবং নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই এ আয়োজনের মূল লক্ষ্য।

এ আয়োজন সম্পর্কে রান বাংলাদেশ- এর প্রতিষ্ঠাতা মজিবুর রহমান রানা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন অনুযায়ী বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে এই খাতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে উৎসাহিত করা, নতুন আকর্ষণীয় পর্যটন এলাকা চিহ্নিতকরণ এবং প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনবল তৈরির কাজ করছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে ‘রান বাংলাদেশ’, যার মূল উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যই হলো ‘ডিজিটাল ট্যুরিজম’।

বর্তমান সরকারের উদ্যোগে যে উন্নয়ন সাধিত হয়েছে, তা খুব সহজে অল্প সময় অল্প খরচে জনগণের কাছে পৌঁছাতেই ‘রান বাংলাদেশ’ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।’

টেকগনাইজ সল্যুশন লিমিটেড এর ডিরেক্টর আসসাফফাত সুহৃদ বলেন, আমার গ্রাম আমার শহর বিনির্মাণে তারুণ্যের শক্তি, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি অর্জনে ডিজিটাল বাংলাদেশ, ডিজিটাল পর্যটন বিনির্মাণে ভবিষ্যতের উন্নয়নে কাজের সুযোগ পর্যটনে- এ লক্ষ্যে গ্রামের তৃণমূল পর্যায়ে ডিজিটাল পর্যটন সেবা পৌঁছে দেয়াই এবারের মুজিববর্ষে আমাদের প্রচেষ্টা।

Bootstrap Image Preview