Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ রবিবার, সেপ্টেম্বার ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

এবার জর্ডানের পশ্চিম তীর দখলের ঘোষণা দিলেন ইসরায়েল

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৮ PM
আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৮ PM

bdmorning Image Preview


ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত জর্ডানের পশ্চিম তীর এলাকা দখলে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর নতুন পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে আরব বিশ্ব।

আগামী সপ্তাহে ইসরায়েলের সাধারণ নির্বাচনের আগে আগে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি হিসেবে মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) এ পরিকল্পনার কথা জানান নেতানিয়াহু।

ওই ঘোষণায় ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফের সরকারে এলে জর্ডান উপত্যকা (পশ্চিম তীর) ও উত্তর মৃত সাগরের (ডেড সি) ওপর ইসরায়েলি সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনার কথা জানাতে চাই আমি।

আসন্ন নির্বাচনে ইসরায়েলি জনগণের সমর্থনে পুরোপুরি ক্ষমতায় এলে খুব দ্রুত ওই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কথা বলেন নেতানিয়াহু। আর তা ইসরায়েলের জন্য এক ঐতিহাসিক সুযোগ হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। যদিও তার বিরোধীরা এ প্রতিশ্রুতিকে নির্বাচনী ‘ভাঁওতাবাজি’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

এদিকে নেতানিয়াহুর এ পরিকল্পনার তীব্র সমালোচনা করেছে জর্ডান ও সৌদি আরব। সেখানে বসবাসরত ফিলিস্তিনিরাও এ ধরনের উচ্চাকাঙ্ক্ষাকে অবৈধ বলে অভিহিত করেছে। 

অন্যদিকে জাতিসংঘ বলেছে, এ ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হলে নতুন করে কোনো শান্তি আলোচনার সুযোগ নস্যাৎ হয়ে যাবে। একই কথা বলেছেন ফিলিস্তিনি মধ্যস্থতাকারীদের প্রধান সায়েব এরেকাত। জাতিসংঘ বলছে, ইসরায়েলের দিক থেকে এমন দখলদারিত্ব আন্তর্জাতিকভাবে বৈধ বলে গণ্য হবে না।

জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আয়মান সাফাদি বলেন, এরকম পরিকল্পনায় ভয়াবহ মাত্রায় সংঘাত বাড়বে। এতে পুরো অঞ্চলেই সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে হুঁশিয়ার করেন তিনি।

এ পরিস্থিতিকে ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ অভিহিত করে মুসলিম দেশগুলোর সংস্থা ওআইসির এক জরুরি বৈঠক ডেকেছে সৌদি আরব।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু এ পরিকল্পনাকে ‘বর্ণবাদী’ বলে নিন্দা জানিয়েছেন। নির্বাচনের আগে আগে অবৈধ, বেআইনি ও সহিংস বার্তা দেওয়ার জন্য তিনি নেতানিয়াহুর কঠোর সমালোচনা করেন।

২২ দেশের সংস্থা আরব লিগও নেতানিয়াহুর এমন পরকল্পনাকে ‘বিপজ্জনক’ বলে অভিহিত করেছে। এটি আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন এবং তা শান্তি আলোচনার ভিত্তিকে ধ্বংস করবে বলে জানায় তারা।

ফিলিস্তিনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা হানা আশরায়ি এ ধরনের ঘোষণাকে ফিলিস্তিনি জনগণ ও আন্তর্জাতিক আইনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ বলে উল্লেখ করেছেন।

Bootstrap Image Preview