Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০১৯ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

পৃথিবীতে আছড়ে পড়তে পারে ১৩ হাজার ফুটের বিশাল গ্রহাণু

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০২:০৮ PM
আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০২:০৮ PM

bdmorning Image Preview


সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন আগামী বছর পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে ‘১৯৯৮ ওআর২’নামের এক গ্রাহাণু। এপ্রিল মাসে পৃথিবীর সাথে এই গ্রহাণুর সংঘাত হতে পারে। ইতিমধ্যেই এই গ্রহাণুটি পর্যবেক্ষণ শুরু করেছেন নাসার বিজ্ঞানীরা।

মহাকাশে ছোট অথবা বড় মাপের বিভিন্ন পাথরের টুকরো ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই ধরনের বস্তু গ্রহাণু নামে পরিচিত। এমনই এক গ্রহাণু পৃথিবীর বুকে আছড়ে পড়ার পর ডায়ানোসর বিলুপ্ত হয়েছিল।

নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন ‘১৯৯৮ ওআর২’গ্রহাণুর ব্যাস ১৩৫০০ফুট। ২০২০ সালের ২৯ এপ্রিল পৃথিবীর গা ঘেঁষে চলে যেতে পারে এই গ্রহাণু। ঐ দিন বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টা ৫৬ মিনিটে পৃথিবীর সবথেকে কাছে থাকবে ‘১৯৯৮ ওআর২’। পৃথিবীর কেন্দ্রবিন্দু থেকে ৩৯ লক্ষ মাইল দূরে থাকবে এই গ্রাহাণুটি।

তবে এই দূরত্ব শুনে নিজেকে সুরক্ষিত মনে করার কিছু নেই। বিভিন্ন কারণে মহাকাশে গ্রহাণুর পথ পরিবর্তন হয়। আর তা হলে পৃথিবীর বুকে আছড়ে পরতে পারে বিশাল এই গ্রহাণুটি।

এর মধ্যে প্রথম কারণ হল ইয়ার্কোভসি এফেক্ট। যা গ্রহাণুর সেমি মেজর অ্যাক্সিসে প্রভাব ফেলতে পারে। বাহ্যিক বা অভ্যন্তরীণভাবে উৎপাদিত তেজস্ক্রিয়তার কারণে গ্রহাণুর তাপমাত্রায় পরিবর্তনের ফলে এই ঘটনা ঘটতে পারে। এর ফলে গ্রহাণুটি ঘুরে যেতে পারে, এমনকি কক্ষপথের পরিবর্তন হতে পারে। ‘১৯৯৮ ওআর২’মহাকাশের অন্যতম উজ্জ্বল ও বড় গ্রহাণু।

এছাড়াও মহাকাশে অন্যান্য গ্রহের পাশ থেকে যাওয়ার সময় সেই গ্রহের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির কারণে গ্রহাণুর পথ পরিবর্তন হতে পারে। এই গ্রহাণু পৃথিবীতে আঘাত করলে পৃথিবীর আবহাওয়া ও বায়ুমন্ডলীয় অবস্থায় বড় পরিবর্তন আসতে পারে।

Bootstrap Image Preview