Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৮ শুক্রবার, অক্টোবার ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

বন্যার প্রভাবে অস্থির সবজির বাজার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৭ জুলাই ২০১৯, ১১:১৩ AM
আপডেট: ২৭ জুলাই ২০১৯, ১১:১৩ AM

bdmorning Image Preview


দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যার প্রভাব পড়েছে রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে। দুই সপ্তাহের ব্যবধানে প্রায় সব সবজির দামই বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। টমেটো, গাজর, শসা, বেগুন ও ঝিঙের মতো সবজির কেজিপ্রতি দাম শতকের ঘর ছুঁয়েছে। অন্যদিকে কাঁচামরিচের দাম সবচেয়ে বেশি; বিক্রি হচ্ছে আড়াইশ টাকা কেজি দরে।

ব্যবসায়ীরা জানান, বন্যা ও টানা বৃষ্টির কারণে সব ধরনের সবজির ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। তাই পাইকারি বাজারে সবজির সরবরাহ অনেক কম। সে জন্য দামও চড়া। অস্থির সবজি বাজারে এ সপ্তাহে দাম আরও বেড়ে যাওয়ায় দিশেহারা সাধারণ ক্রেতা। ক্রেতাদের মতে, দেশের সব অঞ্চলে বন্যা না হলেও বিক্রেতারা বন্যার অজুহাতে দাম রাতারাতি বাড়িয়ে দিচ্ছেন। যথাযথ বাজার মনিটরিং হলে এমনটা হতো না।

গতকাল শুক্রবার কারওয়ানবাজার, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও, যাত্রাবাড়ীসহ রাজধানীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। টমেটোর দাম বেড়ে প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৪০ টাকায়। গত সপ্তাহে যা ছিল ১১০ থেকে ১৩০ টাকা। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি। এ ছাড়া বেগুন, শসাসহ ঝিঙে বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকায়।

চলতি সপ্তাহে বেগুনের দাম বেড়েছে সব থেকে বেশি। সপ্তাহ দেড়েক আগেও ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বেগুনের দাম বর্তমানে ৬০ থেকে ৮০ টাকা। অন্যদিকে গোল বেগুনের দাম ছুঁয়েছে একশ টাকা।

কারওয়ানবাজরের সবজি বিক্রেতা আসাদ জামান বলেন, টানা বৃষ্টিতে ক্ষেতে পানি জমে যাওয়ায় মরিচের মতো বেগুনের গাছও নষ্ট হচ্ছে। এ কারণে বেগুনের দাম বেড়ে গেছে।

অন্যদিকে বাজারভেদে কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২২০ টাকা কেজি দরে। ২৫০ গ্রাম কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকায়। কোথাও কোথাও একটু ভালোমানের কাঁচামরিচের পোয়া বিক্রি হতে দেখা গেছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকায়। এ হিসাবে কাঁচামরিচের দাম আড়াইশ টাকারও বেশি। দুই সপ্তাহ আগেও ভালোমানের কাঁচামরিচের কেজি বিক্রি হয়েছে ৮০ টাকায়।

মালিবাগ বাজারের কাঁচামরিচ বিক্রেতা আজগর আলী জানান, বন্যার কারণে এবার মরিচের ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বাজারে যে মরিচ পাওয়া যাচ্ছে তা মূলত আমদানিকৃত মরিচ। হঠাৎ আড়তে মরিচের ঘাটতি পড়ায় দাম অস্বাভাবিক বেড়েছে। আবহাওয়ার পরিবর্তন না হলে দাম আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এদিকে বাজারে করলার কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকা। বরবটি ৬০ থেকে ৭০ টাকা, কচুর লতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি। এ ছাড়া ঢেঁড়স, উসি, ধুন্দুলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকায়। কাঁকরোল ও পটোল বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি। পেঁপের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

Bootstrap Image Preview