Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ রবিবার, ডিসেম্বার ২০১৯ | ১ পৌষ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

প্রবল স্রোতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৩:২২ PM
আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৩:২২ PM

bdmorning Image Preview


পদ্মায় উজানের পানির প্রবল স্রোতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। স্রোতের প্রতিকূলে চলতে গিয়ে বিকল হচ্ছে ফেরি। দেখা দিয়েছে ফেরি সংকট। পারাপারে লাগছে দ্বিগুণ সময়। পদ্মার উভয়পাড়ে আটকে পড়ছে হাজারেরও বেশি পণ্যবোঝাই ট্রাক। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে ঘাটে আটকে থাকছে যাত্রীবাহী বাস। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

দুই থেকে তিনদিন ধরে পার হতে না পারায় সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন ট্রাকচালক ও সহযোগিরা। সেই সাথে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘাটে আটকে থাকা বাস ও ছোট গাড়ির যাত্রীরাও পড়েছেন বিপাকে।

বাংলাদেশ ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা ঘাটের উপমহাব্যবস্থাপক আজমল হোসেন বলেন, পাটু্রিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে চলাচলকারী ১৫টির মধ্যে বিকল রয়েছে চারটি ফেরি। বাকি ১১টি ফেরি দিয়ে পারাপার করা হচ্ছে যানবাহন। স্রোতের বিপরীতে চলতে ফেরিগুলোকে নদী পার হতে সময় লাগছে দ্বিগুণেরও বেশি। এতে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে গেছে। ইঞ্জিন দুর্বল হওয়ায় কয়েকটি ফেরি স্রোতের বিপরীতে চলতে পারছে না। ফলে বিপুল সংখ্যক গাড়ি পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় আছে। এই সংকট মোকাবেলায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আরো দুটি ফেরি চাওয়া হয়েছে। বিকল ফেরিগুলো পাটুরিয়া ভাসমান কারখানায় মেরামত করা হচ্ছে। সেগুলো দ্রুত ফেরি বহরে যুক্ত হবে এবং কয়েকদিনের মধ্যেই আরও দুটি ফেরি এই রুটে যুক্ত হবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে দৌলতদিয়া অভিমুখী রো রো ফেরি কেরামত আলী স্রোতের টানে তিন কিলোমিটার ভাটিতে চলে যায়। বারবার স্রোতের বিপরীতে চলার চেষ্টা করলে ফেরিটির ইঞ্জিনের সাইলেন্সার পাইপে আগুন ধরে যায়।

বিআইডব্লিউটিসি পাটুরিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মহিউদ্দিন রাসেল বলেন, ছোট-বড় ২০টি গাড়ি ও যাত্রী নিয়ে গতকাল বিকেল ৫টার দিকে ফেরিটি পাটুরিয়া ঘাট থেকে দৌলতদিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। প্রবল স্রোতের বিপরীতে ফেরিটি দেড়ঘণ্টা চেষ্টার পর দৌলতদিয়া ঘাটের কাছে যায়। কিন্তু দৌলতদিয়া ঘাটের কাছে নদীতে স্রোত বেশি থাকায় ফেরিটি বারবার চেষ্টা করেও ঘাটে ভিড়তে পারেনি। স্রোতের বিপরীতে দফায় দফায় চেষ্টা করার কারণে এক পর্যায়ে ফেরিটির ইঞ্জিনের সাইলেন্সার পাইপে আগুন ধরে যায়। ইঞ্জিন দুর্বল থাকায় এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে ফেরির বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয়নি। ফেরিতে থাকা গাড়ি বা যাত্রীদেরও কোনো ক্ষতি হয়নি। উদ্ধারকারী জাহাজের সহায়তায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টার পর ফেরিটিকে দৌলতদিয়া থেকে পাটুরিয়া ফিরিয়ে আনা হয়। ফেরিতে থাকা গাড়ি ও যাত্রীদের অন্য ফেরিতে নিরাপদে দৌলতদিয়া ঘাটে পাঠানো হয়েছে।

পাটুরিয়া ঘাট পুলিশ কন্ট্রোল রুমের ট্র্যাফিক ইন্সপেক্টর আরাফাত রাসেল বলেন, নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। পানি বাড়ার ফলে পন্টুন ডুবে যাচ্ছে। একারণে প্রতিদিনই পন্টুন সরিয়ে উপরে ওঠানো হচ্ছে। ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় ঘাটে বিপুল সংখ্যক গাড়ি আটকা পড়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ি পার করা হচ্ছে। আটকা পড়ছে ছয়শ পণ্যবাহী ট্রাক। পচনশীল, জরুরি পণ্য এবং শিশুখাদ্য বহনকারী ট্রাক ছাড়া অন্য ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখা হয়েছে।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, যানজট এড়াতে ও যাত্রীদের সুবিধার্থে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে। ট্রাক টার্মিনালে ও ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ট্রাক আটকে রাখা হয়েছে। গত ৪দিন ধরে ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখা হয়েছে। এখনও ট্রাক আসছে। ফলে সমস্যা আরো বাড়ছে। একারণে ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়কে ট্রাক চলাচল না করে তাদের বিকল্প পথ ব্যবহার করতে অনুরোধ করা হয়েছে।

Bootstrap Image Preview