Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৮ শুক্রবার, অক্টোবার ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

বাতিল করা হয়েছে ইতালির বাংলাদেশ দূতাবাসের অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১ জুলাই ২০১৯, ০৮:১৮ PM
আপডেট: ০১ জুলাই ২০১৯, ০৮:১৮ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


ইতালির রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসে উঠেছিলো অ্যাপয়েন্টমেন্ট বানিজ্যের অভিযোগ। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে দূতাবাসের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সঙ্গে কয়েকজন আ'লীগ নেতার যোগসাজশে এ বানিজ্য করা হচ্ছিল বলে প্রবাসীরা অভিযোগ করেন। তাদের দাবির প্রেক্ষিতে এবার তুলে দেয়া হয়েছে সেই প্রথা।

২৪ জুন দূতাবাস থেকে অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা তুলে আগের নিয়মে সেবা প্রদান শুরু করা হয়েছে। প্রবাসীরা আগের সেবা পুনরায় ফিরে পাওয়ায় বেশ আনন্দিত।

এ বিষয়ে প্রবাসীরা জানান, প্রবাসী বাংলাদেশিরা অনলাইনে তাদের সময়মত অ্যাপয়েন্টমেন্ট না পাওয়ার কষ্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুলে ধরেন। অভিযোগ করেন দূতাবাসের সেবা পেতে অনলাইনে অ্যাপয়নমেন্ট পাওয়া না গেলেও টাকার বিনিময়ে দ্রুত অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া যায়।

যার ফলে প্রবাসীরা দূতাবাসে কর্মরত স্থানীয়ভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত অনভিজ্ঞ অসাধু কর্মকর্তাদের অপসারণ দাবী করে দালালমুক্ত দূতাবাস দেখতে চান।

অভিযোগ উঠেছে দূতাবাস অনলাইনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট চালু করার পর থেকে প্রবাসীরা ভাল সেবা পাচ্ছেনা। কারন হিসেবে জানা যায়, শুধু ১০ থেকে ২০ মিনিটের জন্য সার্ভার খোলা হয়। কোন কোন সময় পাঁচ মিনিটও খোলা রেখেছে বলে ইন্টারনেট পয়েন্ট সেবাকারীরা এ দাবী করেন। এরফলে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে গেছে।

এ নিয়ে রীতিমতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে দূতাবাসের অনিয়ম নিয়ে বাকবিতন্ডা। টাকার বিনিময়ে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। এর পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, সংবাদপত্র ও অনলাইনে সংবাদ প্রচারের পর ব্যাপক সমালোচনার তোপে পড়ে অবশেষে ২৪ জুন দূতাবাস থেকে অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা তুলে আগের নিয়মে সেবা প্রদান শুরু করা হয়েছে।

এ বিষয়ে আম্বিয়া-প্রধান (জাসদ) আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আনিসুজ্জামান বলেন, দীর্ঘদিন অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই দূতাবাসের সকল সেবা প্রবাসীরা ভালভাবেই পেয়ে আসছিল। এ নিয়ে কোন মহলে প্রশ্নও ওঠেনি। হঠাৎ করে কেন অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা চালু হলো আমার তা বোধগম্য নয়।

বরং এ অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা চালুর ফলে দালাল সৃষ্টিসহ অসচ্ছতা দেখা দেয় দূতাবাসে এবং সেবা পেতে প্রবাসীদের লাগামহীন দুর্ভোগ বেড়ে যায়। বর্তমান রোম দূতাবাসের এ ব্যাপারটি টক অব দ্যা টাউনে পরিনত হয়েছে। প্রবাসীদের তোপের মুখে পড়ে ২৪ জুন থেকে অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা বাতিল করেছে রোম বাংলাদেশ দূতাবাস। এ জন্য দূতাবাসকে ধন্যবাদ।

এছাড়াও তিনি আরও বলেন, দূতাবাসে স্থানীয়ভাবে যেসকল লোকবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে তাদের অদক্ষতার কারনে প্রবাসীদের সেবা প্রদান কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

পাশাপাশি প্রবাসীদের সঙ্গে খারাপ, অশুভ আচরনের অভিযোগ রয়েছে। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন ভাইরাল। তিনি রাষ্ট্রদূতকে এ বিষয়টি দেখার অনুরোধ জানান সে সঙ্গে দক্ষ জনশক্তি নিয়োগের মাধ্যমে সৃষ্ট সমস্যা নিরসনের অনুরোধ করেন।

অপরদিকে, রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবাহান সিকদার উল্লেখিত অভিযোগটি নাকচ করে দিয়ে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অভিযোগ ভিত্তিহীন। কেউ যদি অ্যাপয়েন্টমেন্ট টাকার বিনিময়ে পেয়ে থাকে তাহলে ব্যাপারটি দূতাবাসকে অবগত করতে হবে। এটা প্রমানিত হলে দূতাবাস অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহণ করবে।

কিন্তু আমার জানামতে কোনো অভিযোগ দূতাবাসে করা হয়নি। তাই বিষয়টি জানা নেই। প্রবাসীদের সঠিক সেবা দেয়ার কথা বিবেচনা করে অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রথা ২৪ জুন থেকে বাতিল করা হয়েছে। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোনো বিভ্রান্তমূলক পোস্ট দিতেও সতর্ক হতে পরামর্শ দেন প্রবাসীদের।

Bootstrap Image Preview