Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ শুক্রবার, জুন ২০১৯ | ৭ আষাঢ় ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

মাইনাস ৩০ ডিগ্রি সে তাপমাত্রায় সবজী চাষ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ মে ২০১৯, ১১:৫৬ AM
আপডেট: ২৮ মে ২০১৯, ১১:৫৬ AM

bdmorning Image Preview


পৃথিবীর প্রায় সর্ব উত্তরে যেখানে মানুষের বসবাস আছে, সেখানে সবজি আবাদ করছেন বেন ভিডমার। তীব্র ঠাণ্ডার মধ্যে তিনি এ ফসল উৎপাদন করছেন। আর্কটিক সার্কেলের প্রান্তে ফসল ফলানোর গল্প জানিয়েছেন তিনি।

এ অঞ্চল শীতের চার মাস অন্ধকারে থাকে। তাপমাত্রা হয় মাইনাস ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর গ্রীষ্মকালে ২৪ ঘণ্টা দিনের আলো থাকে। বেন ভিডমার এ শহরটিকে টেকসই করার কাজে হাত দিয়েছেন। তিনি যে জায়গায় থাকেন, সেটি উত্তর মেরু থেকে এক হাজার কিলোমিটার দূরে। এখানকার বেশির ভাগ খাবার আসে জাহাজে, নরওয়ে থেকে।

ভিডমার বলেন, ‘এখানে সবচেয়ে বেশি কার্বন ডাই-অক্সাইড উৎপন্ন হয়। সে জন্য আমি ভাবলাম যে কিছু একটা করা দরকার। খাদ্য উৎপাদনের মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করি। স্থানীয় খাবার খাওয়া যেমন জরুরি, প্লাস্টিকের ব্যবহার কমানোও তেমনই জরুরি। কিন্তু বেশির ভাগ সবজি আসে প্লাস্টিকে মোড়ানো অবস্থায়।’

এ প্লাস্টিকগুলোকে সাধারণত যত্রতত্র ফেলে দেওয়া হয়ে থাকে। এগুলোকে মূল ভূখণ্ডে পাঠানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন ভিডমার। গ্রীষ্মের সময় তিনি গ্রিনহাউসে সবজি চাষাবাদ করেন। ভিডমারের আশা, তিনি একদিন আবর্জনাবিহীন রেস্টুরেন্ট খুলতে পারবেন। এখন তিনি উৎপাদিত খাবার রেস্টুরেন্টে সরবরাহ করেন। যেসব খাবার থেকে যায়, সেগুলো দিয়ে জৈব সার বানানো হয়। ভিডমার বলেন, ‘আমি মনে করি, আমার কাজ পরিবেশ রক্ষায় ভূমিকা রাখবে।’

Bootstrap Image Preview