Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ সোমবার, ডিসেম্বার ২০১৯ | ১ পৌষ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

মহাদেবপুরে ধানের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

ইউসুফ আলী সুমন, মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ১৬ মে ২০১৯, ০৮:৫০ PM
আপডেট: ১৬ মে ২০১৯, ০৮:৫৮ PM

bdmorning Image Preview


সরকার ঘোষিত মূল্যে কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয়ের দাবিতে নওগাঁর মহাদেবপুরে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে উপজেলা খাদ্য গুদামের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়। 

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। 

নওগাঁ জেলা বাসদের সমন্বয়ক জয়নাল আবেদিন মুকুলের সভাপতিত্বে অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন, জেলা বাসদের সদস্য কালিপদ রায়, মঙ্গল কিস্কু, কৃষক আব্দুস সালাম, রাজীব দাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রান্তিক কৃষকের গোলার ধান শেষ হয়ে যাচ্ছে। অথচ সরকার এখনও ধান ক্রয় প্রক্রিয়া শুরু করেনি। সরকার মোটাজাতের প্রতি মণ ধানের দাম ১ হাজার ৪০ টাকা বেঁধে দিলেও বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায়। এতে প্রতি মণ ধানে কৃষকের ক্ষতি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা।

জয়নাল আবেদিন বলেন, দেশে যে কৃষি নীতি চলছে, তা কৃষকের নীতি নয়। তাঁর কারণ সরকার ১২ লাখ মেট্রিক টন চাল কিনছেন আর ধান কিনছেন মাত্র দেড়শ মেট্রিক টন। ১২ লাখ মেট্রিক টন চাল কিনে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনতে পারতেন। সরকার প্রতি কেজি ধানের দাম ২৬ টাকা নির্ধারণ করে ধান কেনার ঘোষণা দিয়েছে। সে হিসেবে এক মণ ধানের দাম হয় ১ হাজার ৪০ টাকা। ক্ষুদ্র কৃষক ও বর্গা চাষিদের গোলার ধান শেষ হয়ে যাচ্ছে, অথচ সরকার এখনও ধান ক্রয় প্রক্রিয়া শুরুই করে নাই।

তিনি আরও বলেন, অতি সত্বর মৌসুমের শুরুতেই সরকারের দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে ক্রয়কেন্দ্র খুলে কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা। ধান ক্রয়ের বরাদ্দ বাড়িয়ে অন্তত ১২ লাখ মেট্রিক টন করা উচিত।

Bootstrap Image Preview