Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০২ মঙ্গলবার, জুন ২০২০ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ঢাকা, ২৫ °সে

'দিছি শেষ করে, ও আর বাঁচবে না' মসজিদে কোপানোর পর উল্লাসে মাতল তারা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ মে ২০১৯, ০৯:০৬ PM
আপডেট: ০৮ মে ২০১৯, ০৯:০৬ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


মাদারীপুরের রাজৈরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মজিবর বেপারী (৫০) নামে একজনকে মসজিদের ভেতর কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে আমগ্রাম ইউনিয়নের মঠবাড়ি গ্রামে। নিহত মজিবর বেপারী একই এলাকার মৃত নওয়াব আলী বেপারীর ছেলে।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নিহত মজিবর বেপারীর সাথে তার ফুফাতো ভাই একই এলাকার আশরাফ আলী ও লিংকন মোল্লার মধ্যে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার মাগরিবের নামাজ পড়ার সময় মসজিদে জুতা রাখা নিয়ে মজিবর ও লিংকনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে লিংকন ও আশরাফ লোকজন নিয়ে মজিবরকে হত্যার পরিকল্পনা করে। তারাবির নামাজ শুরুর আগেই মজিবর মসজিদে আসলে তারা মসজিদের ভেতরে প্রবেশ করে পেছন থেকে এলোপাতাড়িভাবে কোপাতে থাকে। এ মুহূর্তে আত্মরক্ষার্থে মজিবর দৌড় দেয়। এ সময় প্রতিপক্ষরা তাকে পিছু ধাওয়া করে কোপাতে থাকে। তার চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে লিংকন তার লোকজন নিয়ে সটকে পড়ে।

গুরুতর আহতাবস্থায় রাজৈর হাসপাতালে নেওয়ার পথে মজিবর মারা যায়। মজিবরকে কোপানোর পর তার নির্মম প্রতিপক্ষরা এলাকায় উল্লাস করে জানায়, 'দিছি শেষ করে, ও আর বাঁচবে না'।

নিহত মজিবরের স্ত্রী নাছিমা বেগম জানায়, জুয়েল ইউপি নির্বাচনে মেম্বার পদে দাঁড়িয়েছিল। তাকে ভোট না দেওয়ায় আমার স্বামীকে মারার জন্য লিংকন, আশরাফ এবং জুয়েল এর আগেও দুইবার চেষ্টা করেছে। মঙ্গলবার তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে তারা আমার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ঘটনার পর তারা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান মিয়া জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষরা মজিবরকে মসজিদের ভেতর কুপিয়ে আহত করে। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

Bootstrap Image Preview