Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৫ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

স্কুলে পুলিশের ক্যাম্প, জরাজীর্ণ ভবনে চলছে পাঠদান

ভোলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১১ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:২৮ PM
আপডেট: ১২ এপ্রিল ২০১৯, ০৬:৩০ PM

bdmorning Image Preview


ভোলার মনপুরা উপজেলার বিচ্ছিন্ন চরনিজাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবনে স্থাপন করা হয়েছে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প। আর পুরানো ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে আতংক নিয়ে ক্লাস করছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।

পুরানো ভবনে ছাদে রয়েছে ফাটল ও পিলারগুলো পলেস্তার খসে পড়ে দুর্বল হয়ে গেছে। যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়ে বড় ধরনে দুঘর্টনা ঘটতে পারে এমন আতংক নিয়ে দিন কাটছে ছাত্র-শিক্ষক ও অভিভাবকদের।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছেন, অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পের ভবনটি জরাজীর্ন হওয়ায় ও নির্বাচন কালীন অস্থায়ীভাবে স্কুলের নতুন ভবনে এই ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। তারপরও চলে গেছে ৪ মাস কিন্তু ক্যাম্প স্থানান্তরের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি সরশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

সূত্রে জানা যায়, বঙ্গোপসাগেরর বুক চিরে জেগে ওঠা ছোট্ট একজনপদ চরনিজাম। এখানকার শিশুদের লেখা-পড়ার জন্য ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয় এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি। চরের একমাত্র বিদ্যালয়টিতে ২ শত ৪৬ জন শিক্ষার্থী লেখা-পড়া করছে। পুরানো ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে গত বছর এখানে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি আধুনিক তিনতলা পাকা ভবন নির্মাণ করে। শিক্ষার্থীদের জন্য ভবনটি নিমর্তি হলেও নতুন ভবনে ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে না। গত ১৫ ডিসেম্বর ভবনটিতে স্থাপন করা হয়েছে পুলিশ ক্যাম্প।

পুলিশের জন্য ব্যবহৃত আগের ভবটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ও নির্বাচনকালীন সময়ে ভবনটি ব্যবহারের অনুমতি দেয় স্থানীয় প্রশাসন। নতুন তিনতলা ভবনে আনন্দ উল্লাসের মধ্য দিয়ে কাশ শুরুর মাত্র তিন দিনের মাথায় শিক্ষার্থীদেরকে আবার পুরানো ভবনে ক্লাস করতে বাধ্য করায় হতাশ হয়ে পড়েছে ছাত্র-শিক্ষক থেকে শুরু করে অভিভাবকরা।

চরনিজাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর শিক্ষার্থী লিজা, আছমা, বাচ্চুসহ অনেকে জানান, আমরা নতুন স্কুলে পড়ছিলাম ভাল লাগছিলো, আমাদের এই স্কুলে পড়তে ভয় লাগে, কখন জানি ভাইঙ্গা আমাদের মাথার উপর পড়

ওই স্কুলের সহকারি শিক্ষক ওলি ওল্লা জানান, পুরানো ভবনে ছাদে ফটল ও পিলারগুলো খসে পড়েছে কখন জানি ভবনটি ভেঙ্গে পড়বে এই আতংক নিয়ে ক্লাস করতে হচ্ছে।

চরনিজাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম জানান, আজ (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত নতুন ভবনে অবস্থান রয়েছে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প। আমরা নতুন ভবনে উঠেছিলাম। কিন্তু ইউএনও স্যার এবং ওসি স্যার এসে নতুন ভবনে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও শিক্ষার্থীদের একাধিক অভিভাবকরা জানান, পুরনো ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে আমাদের সন্তানেরা পড়া-লেখা করতে গেলে সবসময় টেনশন করি, ছেলে-মেয়েরা কি অবস্থায় আছে।

মনপুরা শিক্ষা অফিসার মিজানুর রহমান জানান, নির্বাচনের জন্য স্কুলের নতুন ভবনে ক্যাম্প স্থাপনের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছে। দুই এক দিনের মধ্যে অন্যত্র ক্যাম্পটি সরিয়ে নেওয়া হবে।

চরনিজাম পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ হারুন অর রশিদ জানান, ক্যাম্পের পুরানো ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় স্কুল ভননে স্থানান্তর করা হয়েছে। তবে আমরা সন্তুষ্টচিত্তে ভবনটি ব্যবহার করতে পারছি না। একদিকে পুলিশের হাতিয়ারগুলোর নিরাপত্তা থাকে না। অন্যদিকে স্কুলের ছেলে-মেয়েদের পড়া লেখার বিঘ্ন ঘটে।

মনপুরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বশির আহমেদ জানান, চরনিজাম পুলিশ ক্যাম্পটির পুরনো ভবন জরাজীর্ণ হওয়ায় ও নির্বাচনকালীন সময়ে অস্থায়ীভাবে পুলিশ ক্যাম্পটি বিদ্যালয়ের নতুন ভবনে স্থাপন করা হয়। তবে তিন দিনের মধ্যে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পটি স্থানান্তর করা হচ্ছে।

Bootstrap Image Preview