Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ বৃহস্পতিবার, মে ২০১৯ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

ক্যান্সার প্রতিরোধ করবেন যেভাবে

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০১৯, ১২:১২ PM
আপডেট: ২৩ মার্চ ২০১৯, ১২:১২ PM

bdmorning Image Preview


ক্যান্সার কোষ বিভাজন সংক্রান্ত রোগসমূহের সমষ্টি। এখনও পর্যন্ত এই রোগে মৃত্যুর হার অনেক বেশি। কারণ প্রাথমিক অবস্থায় ক্যান্সার রোগ সহজে ধরা পড়ে না, ফলে শেষ পর্যায়ে গিয়ে ভালো কোন  চিকিৎসা দেয়াও সম্ভব হয় না। বাস্তবিক অর্থে এখনও পর্যন্ত ক্যান্সারের চিকিৎসায় পুরোপুরি কার্যকর কোনও ওষুধ আবিষ্কৃত হয়নি। ক্যান্সার সারানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়।

তবে প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পরলে এই রোগ সারানোর সম্ভাবনা অনেকাংশ বেড়ে যায়। ২০০ প্রকারেরও বেশি ক্যান্সার রয়েছে। প্রত্যেক ক্যান্সারই আলাদা আলাদা এবং এদের চিকিৎসা পদ্ধতিও আলাদা। বর্তমানে ক্যান্সার নিয়ে প্রচুর গবেষণা হচ্ছে এবং এ সম্পর্কে নতুন নতুন অনেক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। বেশিরভাগ ক্যান্সারের ঝুঁকির অন্যতম কারণ অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, স্থূলতা ও অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস।

ক্যান্সারের সাধারণ লক্ষণ

মানবদেহে যে সকল স্থানে ক্যান্সার ধরা পড়েছে তা হল প্রস্টেট গ্রন্থি, স্তন, জরায়ু, অগ্ন্যাশয়, রক্তের ক্যান্সার, চামড়ায় ক্যান্সার ইত্যাদি। একেক ক্যান্সারের জন্য একেক ধরনের লক্ষণ বা উপসর্গ থাকে। তবে সাধারণ কিছু লক্ষণ হচ্ছে:

১।খুব ক্লান্ত বোধ করা

২।ক্ষুধা কমে যাওয়া।

৩।শরীরের যে কোনজায়গায় চাকা বা দলা দেখা দেয়া

৪।দীর্ঘস্থায়ী কাশি বা গলা ভাঙা

৫।মলত্যাগে পরিবর্তন আসা (ডায়রিয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য কিংবা মলের সাথে রক্ত যাওয়া)

৬। জ্বর রাতে ঠান্ডা লাগা বা ঘেমে যাওয়া

৭।অস্বাভাবিকভাবে ওজন কমা

৮।অস্বাভাবিক রক্তপাত হওয়া

৯।ত্বকের পরিবর্তন দেখা যাওয়া

১০।মানসিক অস্বস্তি

ক্যান্সার প্রতিরোধে করনীয়

১. অ্যালকোহল মুক্ত থাকুন
অ্যালকোহল যেমন- রাম, মদ, বিয়ার, ব্রান্ডি ইত্যাদি খাওয়ার অভ্যাস ছেড়ে দিন। অ্যালকোহল পানের সঙ্গে অনেক ধরনের ক্যানসার জড়িত। যেমন- স্তন ক্যান্সার, লিভার ক্যানসার, গলায় ক্যানসার ইত্যাদি।

২. ধূমপান পরিহার করুন
ধূমপান মারাত্মক ক্ষতিকর। দেহের যে কোষগুলোতে ক্যানসার বাসা বাঁধতে পারে, ধূমপান সে কোষগুলোতে ক্যানসার ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। তাই ক্যানসারকে দূরে রাখতে অবশ্যই ধূমপান ত্যাগ করতে হবে।

৩. খাদ্য তালিকা
খাদ্য তালিকায় সবজি, ফল এবং প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার রাখুন। এগুলো বাওয়েল বা মলাশয় ক্যানসারের আশঙ্কা দূর করে। পুষ্টিকর খাবার দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয়।

৪.পারিবারিক ইতিহাস
বংশ বা পরিবারে ক্যানসারঘটিত কোনো ইতিহাস রয়েছে কিনা তা খুঁজে দেখুন। যেমন- পরিবারের কারও স্তন ক্যান্সার থাকলে আপনারও এ সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আর এটা অনেকটাই বাস্তব হয়ে থাকে।

৫. সূর্যের আলো এড়িয়ে চলুন
অতিরিক্ত সূর্যের আলোতে ম্যালিগনান্ট মেলানোমার থাকে যাতে ত্বকে ক্যানসারের আশঙ্কা রয়েছে। তাই গরমকালে সূর্যের আলো সবসময় এড়িয়ে চলুন।

৬. রাসায়নিক পদার্থ
নানা ধরনের খাবার, দূষিত বায়ু এবং দূষিত পানি থেকে আমরা বিভিন্ন ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ গ্রহণ করি। এসব পদার্থ ক্যানসারের কারণ হতে পারে। তাই যতটুকু সম্ভব এসব থেকে দূরে থাকতে হবে।

৭. ওজন নিয়ন্ত্রণ
অতিরিক্ত ওজন মোটেও ভালো নয়। নিজের ওজন নিয়ন্ত্রণ ক্যানসার থেকে দূরে থাকার বড় একটি উপায়। নিজের উচ্চতার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

Bootstrap Image Preview