Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৭ বুধবার, মার্চ ২০১৯ | ১২ চৈত্র ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

৬২ বছর ধরে মূক-বধিরের অভিনয় স্ত্রীর সঙ্গে!

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০১৯, ১১:২৬ AM
আপডেট: ১০ মার্চ ২০১৯, ১১:২৮ AM

bdmorning Image Preview


স্ত্রীর কথা শুনতে যাতে না হয় এ কারণে টানা ৬২ বছর ধরে মূক-বধিরের অভিনয় করেছেন এক ব্যক্তি। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। সত্যিটা জানতে পেরে স্বামীর বিরুদ্ধে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা করেছেন এক স্ত্রী। শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও বিস্ময়কর এ ঘটনাটি ঘটেছে আমেরিকার কানেটিকাটের ওয়াটারবারি এলাকায়।

জানা গেছে, ৮৪ বছর বয়সী ব্যারি ডাওসন গত ৬২ বছরে একটা কথাও বলেননি তার স্ত্রী ৮০ বছর বয়সী ডরোথির সঙ্গে। এ কারণে ডরোথি তাকে বোবা ও বধিরই ভাবতেন। স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ চালিয়ে যেতে ডরোথি ইশারার সাহায্যে কথা বলার ভাষা শিখেছিলেন। যদিও সেই ভাষা শিখতে ডরোথির দুই বছরেরও বেশি সময় লেগেছিল। 

ডরোথি জানান, যখন তিনি ইশারায় কথা বলার ভাষা ভালভাবে রপ্ত করে ফেলেছিলেন তখনই তার স্বামী ইশারায় জবাব দেওয়া বন্ধ করে দেন। 

ডরোথি আরো জানান, ‘ব্যারি এত বছর ধরে বাড়িতে বোবা হয়ে প্রতারণা করেছেন। অথচ একটি বারের জন্য আমি সেটা বুঝতে পারিনি। সম্প্রতি ইউটিউবে তার একটা ভিডিও আমার চোখে পড়ে। যেখানে সে একটা বারে চ্যারিটির জন্য গান গাইছিল। ওটা দেখার পর আমার সব ভুল ভেঙে যায়।’ 

ব্যারি ও ডরোথি দম্পতির ৬ টি সন্তান রয়েছে। শুধু স্ত্রী-ই নন, ব্যারির সন্তান, নাতি-নাতনী সবাই এতদিন ব্যারিকে বোবাই মনে করতো।

স্বামী ব্যারির এমন অমানবিক আচরণ কিছুতেই মানতে পারছেন না ডরোথি। বিবাহবিচ্ছেদের পাশাপাশি এ কারণে এতদিন ধরে এভাবে তার উপর মানসিক অত্যাচার ও চাপ তৈরি করার জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণও দাবি করেছেন তিনি। 

এ প্রসঙ্গে ব্যারি ডাওসনের আইনজীবী রবার্ট সানচেজ দাবি করেন, স্ত্রীকে ঠকানোর কোনো উদ্দেশ্য ছিল না তার মক্কেলের। তাহলে তাদের সংসার এত বছর টিকতে পারতো না। 

এই ব্যাপারে ওই আইনজীবী  বলেন, ‘আমার মক্কেল শান্ত প্রকৃতির। বেশি কথা বলতে পছন্দ করেন না। অন্যদিকে তার স্ত্রী তাকে খুবই বিরক্ত করতেন। এ কারণে বাধ্য হয়েই তিনি বোবা সেজে ছিলেন সংসার বাঁচানোর জন্য’।

আদালতে এখন তাদের বিবাহবিচ্ছেদ ও ক্ষতিপূরণের মামলাটি বিচারধীন আছে।

Bootstrap Image Preview