Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৮ সোমবার, মার্চ ২০১৯ | ৪ চৈত্র ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

চকবাজার ট্রাজেডি: ‘ও বেটা, কে দেখবে আমাদের’

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৬:০৭ PM
আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৬:০৭ PM

bdmorning Image Preview


রাজধানীর চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে মারা গেছেন নাটোরের সিংড়ার হতদরিদ্র রিকশাচালক সাইফুল ইসলাম। মৃত সাইফুল ইসলাম উপজেলার হাতিয়ান্দহ ইউনিয়নের নতুনবস্তি পাটকান্দি গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে।

শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ভোরে এলাকায় তার লাশ আনা হলে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার রয়েছে দুই মেয়ে, খাদিজা খাতুন (৮) ও সাদিয়া খাতুন (৬) এবং স্ত্রী খালেদা বেগম।

এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সাইফুল ইসলাম ও তার চাচাতো ভাই রতন আলী প্রায় ১০ বছর ধরে ঢাকার কামরাঙ্গির চরের নুরুল হকের রিকশা ভাড়া নিয়ে চকবাজার এলাকায় তারা ভাড়া খাটতেন। বুধবার রাতে সাইফুল ইসলাম চকবাজার এলাকায় রিকশা চালাতে গিয়ে ভয়াবহ আগুনে মারা যান।

এ দিকে বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ থেকে লাশ শনাক্ত করার পর পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। পরে শুক্রবার সকাল ১০টায় স্থানীয় কবরস্থানে তার দাফন হয়।

মৃত সাইফুল ইসলামের চাচাতো ভাই রতন আলী বলেন, প্রায় ১০ বছর ধরে তারা চকবাজার এলাকায় রিকশা চালায়। বুধবার রাতের ভয়াবহ আগুনে তার ভাই সাইফুল ইসলাম নিখোঁজ হলে বৃহস্পতিবার শাহি মসজিদের সামনে একটি ধ্বংসস্তূপে রিকশা দেখে সাইফুলের নিহতের বিষয়ে নিশ্চিত হন। পরে রাত ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে লাশের গলায় চান্দির মালা দেখে লাশ শনাক্ত করেন।

নিহত সাইফুলের পিতা আব্দুল কাদের কাতর কন্ঠে বলেন, ‘ও বেটা! কে দেখবে তোর শিশু দুই মেয়ে ও আমাদের। অভাবের সংসারে উপার্জনের আর কেউ যে রইল না।’

সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, বিষয়টি তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে জেনেছেন। এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

Bootstrap Image Preview