Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ বুধবার, আগষ্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

প্রকৃত অর্থে হজের ব্যয় বাড়েনি, বরং কমেছে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৯:২৪ PM
আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৯:২৪ PM

bdmorning Image Preview


ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ এডভোকেট শেখ মো: আব্দুল্লাহ বলেছেন, অন্যান্য বছরের স্বাভাবিক ব্যয় বৃদ্ধির সাথে তুলনা করলে এ বছর প্রকৃত হিসেবে হজের ব্যয় বাড়েনি, বরং ব্যয় কমেছে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আজ বেলা সাড়ে ১১ টায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত বছর ২০১৮ সালের প্যাকেজ-১ এর হজযাত্রীদের সর্বসাকুল্য ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৯২৯ টাকা। এ বছর হজযাত্রীদের  বিমান ভাড়া প্রস্তাব করা হয়েছিল ১ লাখ ৪৮ হাজার ১৯১ টাকা যা গত বছরের তুলনায় ২০ হাজার টাকা বেশী। এর সাথে এ বছর সৌদি আরব সরকার কর্তৃক কর বৃদ্ধি করা হয়েছে ২৪ হাজার ৯৮১ টাকা। সে হিসেবে এ বছর ২০১৯ সালের প্যাকেজ-১ এর হজযাত্রীদের জন্য সর্বমোট খরচ প্রস্তাব করা হয়েছিল ৪ লাখ ৪২ হাজার ৯১০ টাকা। কিন্তু এ বছর মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক প্যাকেজ-১ এর হজযাত্রীদের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৫১৬ টাকা। প্রকৃত হিসেবে গত বছরের চেয়ে এ বছর ২৪ হাজার ৪১০ টাকা ব্যয় কমেছে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, গত বছর ২০১৮ সালের প্যাকেজ-২ এর হজযাত্রীদের সর্বসাকূল্য ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল ৩ লাখ ৩১ হাজার ৩৬০ টাকা। এ বছর হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া প্রস্তাব করা হয়েছিল ১ লাখ ৪৮ হাজার ১৯১ টাকা যা গত বছরের তুলনায় ২০ হাজার টাকা বেশি। এর সাথে সৌদি আরব সরকার কর্তৃক কর বৃদ্ধি করা হয়েছে ১৯ হাজার ৩৫ টাকা। সে হিসেবে এ বছর ২০১৯ সালের প্যাকেজ-২ এর হজযাত্রীদের জন্য সর্বমোট খরচ প্রস্তাব করা হয়েছিল ৩ লাখ ৭০ হাজার ৩৯৫ টাকা। কিন্তু এ বছর মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক প্যাকেজ-২ এর হজযাত্রীদের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকা।  প্রকৃত হিসেবে গত বছরের চেয়ে এ বছর ২৬ হাজার ৩৯৫ টাকা ব্যয় কমেছে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, মূলত রাজকীয় সৌদি সরকার কর্তৃক সার্ভিস চার্জ বৃদ্ধি, অতিরিক্ত কর আরোপ এবং পরিবহন ব্যয় গত বছরের দ্বিগুনের বেশি করায় ১৫ হাজার ৩২৬.৫০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছরের অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জের উপর ১২% কর আরোপ করায় ৩৭০৯ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

এছাড়া সৌদি সরকার কর্তৃক কর আরোপ করায় আরও ২৫.২৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্যাকেজ-১ এর হজযাত্রীদের জন্য এ বছর ট্রেন ভাড়া শতভাগ বৃদ্ধি পাওয়ায় ট্রেন ভাড়া ৫৯৪৫.৫০ টাকা পেয়েছে। রাজকীয় সৌদি সরকার কর্তৃক সর্বমোট  ২৫,০০৬.২৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সৌদি সরকার কর্তৃক ব্যয় বৃদ্ধির বিষয়টি বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সকল দেশের হজযাত্রীদের জন্য প্রযোজ্য।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় সর্বনিম্ন খরচ হবে সরকারি ব্যবস্থাপনার প্যাকেজ-২ এর সমান। কোন মতেই এর নীচে নেয়া যাবে না। কারণ তা করা হলে হজযাত্রীদের সেবার মান হ্রাস পাবে। হজযাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়বে। যা কোন মতেই আমরা সহ্য করব না।

প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর পরই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসরণ করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, অন্যান্য সকল মন্ত্রণালয় ও হজ্ব এজেন্সীজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)সহ আমরা সকলে মিলে হজব্যবস্থাপনার উন্নতির লক্ষ্যে নিরলসভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি। হজের খরচ কমানোর বিষয়ে আমরা সর্বাত্নক প্রচেষ্টা চালিয়েছি। সে কারণে এ বছর হজের প্রকৃত খরচ কমেছে।

এ সময় ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: আনিছুর রহমানসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Bootstrap Image Preview