Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ বৃহস্পতিবার, আগষ্ট ২০১৯ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

সীমান্তে শতাধিক রাউন্ড গুলি ছুড়েছে বিজিপি, বিজিবির টহল জোরদার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৫:১২ PM
আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৫:১২ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের নোম্যান্সল্যান্ডে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) শতাধিক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েছে। তবে, কি কারণে বিজিপি রোহিঙ্গা শিবিরের কাছে এভাবে গুলিবর্ষণ করেছে তা এখনো জানা যায়নি। অবশ্য বাড়তি সতর্কতা হিসেবে সীমান্তে টহল জোরদার করেছে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি।

সোমবার রাত সাড়ে ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত থেমে থেমে সীমান্তের কয়েকটি পোস্ট থেকে এ গুলি চালায় তারা। এতে তুমব্রু সীমান্তের নোম্যান্সল্যান্ডে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় অনেকে বাংলাদেশের ভূখণ্ডে চলে আসেন।

ঘুনধুম ইউনিয়নের ইউপি সদস্য দিল মোহাম্মদ ভুট্টো ও আবদুল গফুর বলেন, ভোরে সীমান্তের নোম্যান্সল্যান্ড এলাকায় বিজিপি কয়েকটি অস্থায়ী পোস্ট ও ক্যাম্প থেকে শতাধিক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। এতে সীমান্তের স্থানীয় বাসিন্দা ও রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বিজিবি-১৭ ব্যাটালিয়নের মেজর ইকবাল বলেন, তুমব্রু সীমান্তের ৩৪-৩৬ পিলারের বিপরীতে মিয়ানমারের নয়টি পোস্ট এবং একটি ক্যাম্প রয়েছে। কিছু পোস্ট থেকে গতকাল রাতে গুলিবর্ষণ করা হয়।

১২০-২৫ রাউন্ডের মতো গুলি ছুড়েছে তারা। এগুলো ফাঁকা গুলি নাকি দুই পক্ষের মধ্যে ‘গোলাগুলি’ তা আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। গুলিতে নোম্যান্সল্যান্ডে থাকা রোহিঙ্গাদের মাঝে আতঙ্ক ছড়ায় সীমান্তে টহল জোরদার করেছে বিজিবি।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের আগস্টে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী জাতিগত নিধন চালায়। সে সময়ে প্রাণ বাঁচাতে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

এদের মধ্যে প্রায় ৫ হাজার রোহিঙ্গা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের নোম্যান্সল্যান্ডে অবস্থান নেন। সেখানেই তাদের খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা দিচ্ছে রেডক্রস।

Bootstrap Image Preview