Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন করলেন রাষ্ট্রপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯ জানুয়ারী ২০১৯, ০৫:৩১ PM
আপডেট: ০৯ জানুয়ারী ২০১৯, ০৭:১৭ PM

bdmorning Image Preview


আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। আজ বিকাল ৫টা ২০ মিনিটে রাজধানী ঢাকার আগারগাঁও প্রাঙ্গণে মেলাটি শুরু হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি বলেন, নতুন নতুন উদ্ভাবনের ফলে প্রকৃতি দ্রুত পাল্টাচ্ছে। তাই আপনাদেরেক নতুন নতুন ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। এ ক্ষেত্রে তুলনামূলক সুবিধা ও সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে হবে। এতে করে উৎপাদন, কর্মসংস্থা ও বিনিয়োগ বাড়বে। ফলে দেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাবে।

মো. আবদুল হামিদ বলেন, এ বছর কৃষি ও কৃষিজাত পণ্যকে প্রোডাক্ট অব দ্যা ইয়ার ঘোষণা করা হয়েছে।

পরে মেলাপ্রাঙ্গণ ঘুরে দেখেন তিনি। এবছর মেলায় ২২টি দেশের ৬শ ৫ টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। এবার নতুন করে চার থেকে পাঁচটি প্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে। তবে দেশিয় প্যাভিলিয়ন মাত্র ২৬টি। তাই এবার একক দেশগুলোকে প্রাধান্য দেওয়া হবে। দেশগুলো হলো- ভারত, পাকিস্তান, চীন, ব্রিটেন, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, ভুটান, নেপাল, মরিশাস, ভিয়েতনাম, মালদ্বীপ, রাশিয়া, আমেরিকা, জার্মানি, সোয়াজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, হংকংসহ বিভিন্ন দেশ।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় সার্বক্ষণিক নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মেলাস্থলে সব ধরনের হকার ও ভিক্ষুক নিষিদ্ধ থাকবে। ফুডকোর্টের অনিয়ম রুখতে বাধ্যতামূলক রাখতে হবে মূল্যতালিকা। এছাড়া মেলায় থাকবে ফায়ার ইউনিটি ও মেডিকেল টিম। বিভিন্ন স্থানে পাঁচটি বিশ্রামাগারের ব্যবস্থা থাকবে। ধূলো কমাতে পানি ছিটানো হবে। মেলার পরিবেশ পরিষ্কার রাখতে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ইভটিজিং রোধে মেলা প্রাঙ্গণে পুলিশের বিশেষ টিম দায়িত্ব পালন করবে।

ইপিবি সূত্র জানায়, মেলায় সবমিলিয়ে ৫৫০টি স্টল থাকবে। এর মধ্যে সংরক্ষিত নারী স্টল থাকবে ২০টি, প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ৬০টি, প্রিমিয়ার মিনি প্যাভিলিয়ন ৩৮টি, সাধারণ প্যাভিলিয়ন ১৮টি, সাধারণ মিনি প্যাভিলিয়ন ২৯টি, প্রিমিয়ার স্টল ৬৭টি, রেস্টুরেন্ট তিনটি, সংরক্ষিত প্যাভিলিয়ন নয়টি, সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন ছয়টি, বিদেশি প্যাভিলিয়ন ২৬টি, সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন নয়টি, বিদেশি প্রিমিয়ার স্টল ১৩টি, সাধারণ স্টল ২০১টি ও ফুড স্টল ২২টি। এছাড়া মেলায় বিভিন্ন অব্যবস্থাপনা রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ভোক্তা অধিদফতরের কর্মকর্তারা সার্বক্ষণিক নজরদারি করবেন। মেলায় থাকছে মা ও শিশু কেন্দ্র, শিশুপার্ক, ই-পার্ক ও পর্যাপ্ত এটিএম বুথ। থাকছে রেডিমেড গার্মেন্টস পণ্য, হোমটেক্স, ফেব্রিকস পণ্য, হস্তশিল্প, পাট ও পাটজাত পণ্য, গৃহস্থালি ও উপহারসামগ্রী, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য। আরও থাকবে তৈজসপত্র, সিরামিক, প্লাস্টিক পলিমার পণ্য, কসমেটিকস হারবাল ও প্রসাধনী সামগ্রী। থাকবে খাদ্য ও খাদ্যজাত পণ্য, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস সামগ্রী, ইমিটেশন ও জুয়েলারি, নির্মাণ সামগ্রী ও ফার্নিচার সামগ্রী।

মেলাটি আজ হতে ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা হতে রাত ১০টা পর্যন্ত চলবে। প্রবেশ মূল্য ৩০টাকা।  এছাড়া এবার মেলার টিকিট অনলাইনেও পাওয়া যাবে।

Bootstrap Image Preview