Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ, ৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রাজীবুল হাসান, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:০১ PM
আপডেট: ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:০১ PM

bdmorning Image Preview
প্রতীকী


কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে পুলিশ সাথে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল মিল্লাদকে প্রধান আসামিসহ ৫৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত সাড়ে ৪শ' বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মামলা হয়েছে।

সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) দিবাগত মধ্যরাতে পুলিশ বাদী হয়ে এই মামলাটি দায়ের করে।

আটককৃত ৬ জন উক্ত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আজ মঙ্গলবার তাদেরকে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশ জানায়। তারা হলেন নাজির মিয়া (২৪), কাজল মিয়া (২৬), মো. সাগর (১৮), কালাম (৪০), শামীম (১৯) ও আবদুল্লাহ গালিব (২০)।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, গতকাল সোমবার বিকাল সোয়া ৪টায় কিশোরগঞ্জ-৬ (ভৈরব-কুলিয়ারচর) আসনে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী শরীফুল আলম প্রায় এক দেড় হাজার কর্মী নিয়ে মিছিল করে কুলিয়ারচর বাজারে যাওয়ার পথে থানার সামনে পুলিশ মিছিলটি আটকিয়ে দেয়। এসময় সরকারের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক বক্তব্যসহ বেগম খালেদার মুক্তি দাবি করছিল মিছিলকারিরা।

ঘটনার সময় পুলিশ মিছিলে নেতৃত্বকারী উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল মিল্লাদকে অনুরোধ করা সত্ত্বেও তারা মিছিল নিয়ে বাজার আগাতে চাইলে পুলিশের সাথে তর্কবিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে মিছিলকারীরা পুলিশের ওপর ইট পাটকেল লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ শুরু করলে পুলিশ ৭০ রাউন্ড রাবার গুলি ছুঁড়লে বিএনপির নেতাকর্মীরা পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ বিএনপির সংঘর্ষে পুলিশসহ ১৫ জন আহত হয়। এই ঘটনায় পুলিশকে মারধোর এবং সরকারী কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ এনে  সোমবার রাতে একটি মামলা করা হয়।

বিএনপির মনোনিত প্রার্থী শরীফুল আলম জানান, আমার নেতাকর্মীরা গণসংযোগে বের হলে পুলিশ অযথা তাদের ওপর আক্রমণ করে গুলি চালিয়ে আমার ১০ জনকে আহত করে। পুলিশ আমিসহ আমার নেতাকর্মীদেরকে প্রচার চালাতেই দিচ্ছে না।

কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নান্নু মোল্লা জানান, নুরুল মিল্লাদের নেতৃত্বে প্রায় এক দেড় হাজার বিএনপির নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়ে বাজারে যাচ্ছিল যা নির্বাচনী আইনের লঙ্ঘন। পুলিশ মিছিলকারীদের বাধা দিলে তারা পুলিশের ওপর ইট পাটকেল লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমন শুরু করে।

এসময় পুলিশ আত্মরক্ষার্থে ৭০ রাউন্ড গুলি ছুড়ঁতে বাধ্য হয় বলে তিনি জানান। ঘটনায় ৫০০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

Bootstrap Image Preview