Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৯ শুক্রবার, জুলাই ২০১৯ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

বিএনপি-জামায়াতকে ক্ষমতায় বসাতে আন্তর্জাতিকভাবে লবিং করছে আইএসআই

বিডিমর্নিং ডেস্ক-
প্রকাশিত: ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:৩৭ PM
আপডেট: ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০২:৫১ PM

bdmorning Image Preview


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তৎপর হয়ে উঠেছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনগুলো। বিএনপি এবং জামায়াতকে ক্ষমতায় বসাতে বিভিন্নভাবে সহায়তা করছে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার আইএসআই। গত ৬ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ভারতের আসাম প্রদেশের  অন্যতম গণমাধ্যম আসাম টাইমস।

বৃস্পতিবার প্রকাশিত আসাম টাইমসের ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী নির্বাচনে বাংলাদেশে জামায়াত নিয়ন্ত্রিত সরকার প্রতিষ্ঠায় তৎপর পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। সেজন্যে আইএসআই কর্মকর্তারা লন্ডনে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও জামায়াত নেতা ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে বৈঠক করেছে। মার্কিন সিনেট ও কংগ্রেসের সাথেও নিয়মিসত যোগাযোগ রক্ষা করছে আইএসআই।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমসের ঐ প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং কানাডাসহ পশ্চিমা দেশগুলির উল্লেখযোগ্য সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর সাথে জামায়াতের গভীর নেটওয়ার্ক রয়েছে। এই সংগঠনগুলো জামায়াতের পক্ষে বহিবিশ্ব থেকে বিভিন্নভাবে তহবিল আদায় করছে এবং তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নের জন্য ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলোকে সব সময় ক্ষমতা থেকে সরানোর চক্রান্তে লিপ্ত থাকে।

আন্তর্জাতিক একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে ওঠে এসেছে ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশের বিপক্ষে জামায়েতের সহিংসতার চিত্র। সেই সময়ে জামায়েতের এমন সহিংসতামূলক কর্মকাণ্ডগুলো দক্ষিণ এশিয়া জুড়ে নিন্দিত হয়েছে। মৌলবাদী সংগঠনগুলো এভাবেই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ইন্টার কানেক্টটিভিটি বৃদ্ধি করে যুগের পর যুগ সহিংস কর্মকাণ্ড করে গেছে। বাংলাদেশ ও ভারতে জেআই নেতারা এখনো তালেবান সন্ত্রাসীদের সমর্থন করছে। তাদের অনুসারীরা মারা গেলে শোকও প্রকাশ করেছে।

আন্তর্জাতিক গোয়েন্দা সংস্থারগুলোর প্রতিবেদনে ওঠে এসেছে আমেরিকা ও উন্নত বিশ্বে বাংলাদেশের জামায়ায়েত কর্মীদের অনেক বড় বড় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এইসব প্রতিষ্ঠানগুলো আমেরিকান মুসলমানদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন নামেই পরিচিত। এইসব প্রতিষ্ঠানগুলির অর্থায়নে বাংলাদেশ, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন জঙ্গি সমর্থক গোষ্টির কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের সমন্বয় সাধনে আর্থিক সহায়তা গেছে এইসব প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে।

এই রকম একটি প্রতিষ্ঠান আইসিএনএ। আইসিএনএ রেলিফের প্রাক্তন চেয়ারম্যান মহসিন আনসারী একজন জেআই সদস্য হিসেবে চিহ্নিত। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে  বাঙালি হত্যাকারীদেরকে ‘নায়ক’ উল্লেখ করে আনসারী পাকিস্তানীদের কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে রইলেন। সেই আনসারি যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত নিজামীর প্রশংসা করেছেন। ২০১৬ সালে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী ও জামায়াত আমীর মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুর পর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করতে আইসিএনএকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আনসারী। শুধু বাংলাদেশ নয়, জেআই সদস্য মহসিন আনসারী বিশ্বের ইসলামপন্থী মৌলবাদি রাজনীতিবিদদের প্রশংসা করেন বিভিন্ন সময়।

এবার বিএনপি, জামায়াতকে ক্ষমতায় বসানোর জন্যে পাকিস্তান আন্তর্জাতিক জঙ্গিবাদ ব্লকগুলো ব্যবহারের চেষ্টা করছে। সেজন্যে আগামী ৩০ ডিসেম্বরকে তারা টার্গেট করেছে তারা। ধর্মনিরপেক্ষ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে পারলেই বাংলাদেশ হবে মৌলবাদি ও জঙ্গিবাদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর তৎপরতা ও ষড়যন্ত্রকে গুরুত্বের সাথে দেখছেন রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা। তাঁরা মনে করেন, বাংলাদেশের ক্ষমতায় যদি জামায়াত বিএনপি আসে, তাহলে আবারো জঙ্গিবাদের উত্থান হবে। আঞ্চলিক রাজনীতিরি  জন্য যা চরম হুমকি হয়ে দাঁড়াবে। তাই নির্বাচন ঘিরে জামায়াত বিএনপির এমন তৎপরতার বিষয়ে  সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান বিশ্লেষকদের।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এই মুহুর্তে আরো মনে করেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মৌলবাদী বিপ্লবী ইসলামপন্থীদের হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করার ক্ষমতা রাখেন। বাংলাদেশের বন্ধু হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই মুহুর্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সহযোগিতা করবেন।

 

Bootstrap Image Preview