Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ শুক্রবার, নভেম্বার ২০১৯ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

কমেছে দেশি পেঁয়াজেরঝাঁজ, বেড়েছে মুরগির দাম পেঁয়াজ মুরগি

রায়হান শোভন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:১৬ AM
আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:১৬ AM

bdmorning Image Preview


প্রায় একমাস স্থিতিশীল থাকার পর ফের বাড়তে শুরু করেছে মুরগির দাম। তবে কিছুটা কমেছে দেশি পেঁয়াজের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে বয়লার মুরগির দাম কেজিতে বেড়েছে ১০-২০ টাকা। অপরিবর্তিত রয়েছে বেশিরভাগ সবজির দাম।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, রামপুরা, মালিবাগ, হাজীপাড়া, খিলগাঁও, সেগুনবাগিচা এবং শান্তিনগরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজার ঘুরে জানা গেছে, বাজারে প্রতি কেজি বয়লার মুরগির বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১২০-১৩০ টাকা কেজি। সপ্তাহর ব্যবধানে  আজ বাজারে বয়লার মুরগির বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা। বয়লারের পাশাপাশি দাম বেড়েছে ডিমপাড়া সাদা মুরগিরও। গত সপ্তাহে ১৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া সাদা মুরগি আজ বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা কেজি।

মুরগির দাম বাড়ার কারণ হিসাবে সেগুনবাগিচার ব্যবসায়ী মো. মিজান বলেন, কোরবানির ঈদের পর থেকেই মুরগির দাম কম ছিল। এখন প্রায় সব বাসায় কোরবানির মাংস শেষ হয়ে এসেছে। ফলে মুরগির চাহিদা কিছুটা বেড়েছে। আর চাহিদা বাড়ায় দামও বেড়েছে।

হাজীপাড়ার ব্যবসায়ী মো. রইস বলেন, গত সপ্তাহেও বয়লার মুরগি প্রতি কেজি বিক্রি করেছি ১২০ টাকা। কিন্তু সে সময় বিক্রি খুব একটা ছিল না। এখন দাম বেড়ে ১৩০ টাকা হলেও বিক্রি গত সপ্তাহের তুলনায় অনেক বেশি।

এদিকে গত সপ্তাহের তুলনায়  কিছুটা কমেছে পেঁয়াজের দাম। গত সপ্তাহে বাজারে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া দেশি পেঁয়াজের দাম ৫ টাকা কমে আজ (শুক্রবার) বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকায়। তবে আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ আগের সপ্তাহের মতোই ৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

পেঁয়াজের দাম কমার কারণ হিসেবে শান্তিনগরের ব্যবসায়ী মো. জুয়েল বলেন, আড়ৎ থেকে আমরা এখন কম দামে পেঁয়াজ আনতে পারছি, যে কারণে বিক্রিও করছি কম দামে। আমাদের ধারণা, আমদানি করা পেঁয়াজের দাম কমার কারণে দেশি পেঁয়াজের দাম কমেছে।

অন্যদিকে বাজারে মুরগি ও পেঁয়াজের দাম উঠা-নামা করলেও সপ্তাহের ব্যবধানে অপরিবর্তিত রয়েছে বেশিরভাগ সবজির দাম। গত কয়েক সপ্তাহের মতো বাজারের এখনও সব থেকে দামি সবজি শিম। এমনকি গত সপ্তাহের তুলনায় এ সবজিটির দাম কিছুটা বেড়েছে। বাজার ও মানভেদে শিমের বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা কেজিতে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৮০-১০০ টাকা। বাজারের আরেক দামি সবজি টমেটো। গত সপ্তাহের মতো বাজার ভেদে ৭০-১০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে পাকা টমেটোর। গাজরও আগের সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা কেজি।

তবে দাম বেড়েছে শীতের আগাম সবজি ফুলকপির। ছোট আকারের প্রতিপিস ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা, যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩০-৩৫ টাকা। তবে পাতাকপি আগের সপ্তাহের মতো ২৫-৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আমদানি করা প্রতি কেজি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়। দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকায়। এদিকে প্রতি কেজি দেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ১১০-১২০ টাকায়। আর আমদানি করা প্রতি কেজি আদা বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর মাছের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি রুই মানভেদে ২৪০-৪০০ টাকা, কাতলা ৩৫০-৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০-২০০, আইড় ৭০০-৮০০ টাকা, মেনি মাছ ৪৫০-৫০০, বেলে ৩৬০-৫০০ টাকা, বাইন ৪০০-৬০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৫৫০-৮০০ টাকা, পুঁটি ২০০০-৩০০ টাকা, পোয়া ৪০০-৬০০ টাকা, মলা ৩২০-৪০০ টাকা, পাবদা ৪০০-৫০০ টাকা, বোয়াল ৪৫০-৫০০ টাকা, শিং ৪০০-৮০০, দেশি মাগুর ৫০০-৭০০ টাকা, শোল ৫০০-৭০০ টাকা, পাঙ্গাস ১৪০-১৬০ টাকা, চাষের কৈ ২০০-২৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকায়।

Bootstrap Image Preview