Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ রবিবার, নভেম্বার ২০১৯ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

‘এমভি রফরফ’ লঞ্চে আগুন, অল্পের জন্য রক্ষা পেল ৫০০ যাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০২:৪১ PM
আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৩:১৫ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত


চাঁদপুর লঞ্চঘাটে যাত্রীবাহী ‘এমভি রফরফ’ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন পাঁচ শতাধিক যাত্রী।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে লঞ্চটি চাঁদপুর টার্মিনাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে।

এমভি রফরফের ইঞ্জিন রুম থেকে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হয়ে এ আগুন লাগে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী লক্ষ্মীপুর এলাকার যাত্রী শাহ আলম জানান, সকাল সাড়ে নয়টায় ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয় লঞ্চটি। ঘাট পার হওয়ার সময় হঠাৎ করে ইঞ্জিনে আগুন ধরে যায়। চালক দ্রুত লঞ্চটি ঘাটে ভেড়ান। তখন লঞ্চে থাকা যাত্রীরাও চিৎকার করতে করতে দ্রুত লঞ্চ থেকে নামতে শুরু করেন। তবে হতাহত হওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

জানা গেছে, লঞ্চের আগুন নেভাতে এবং আতঙ্কিত হয়ে যাত্রীরা ছোটাছুটি করতে গিয়ে অন্তত ১৫ জন আহত হন। অগ্নিকাণ্ডে লঞ্চের ইঞ্জিন, জেনারেটর, পাওয়ার সেকশন, হাওয়া মেশিন ও ডায়াস মেশিনসহ আট কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি লঞ্চ কর্তৃপক্ষের।

লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে চাঁদপুর উত্তর, দক্ষিণ ও নৌ-ফায়ার স্টেশনের তিনটি ইউনিট পৌনে এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

মেসার্স রাকিব ওয়াটার ওয়েজ কোম্পানির ম্যানেজার মো. ফরিদ আহম্মেদ বলেন, অগ্নিকাণ্ডে আমাদের লঞ্চের ইঞ্জিন, কেবিন ও আসবাবপত্র পুড়ে প্রায় আট কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

রফরফ লঞ্চের মাস্টার মো. মামুনুর রশিদ বলেন, ইঞ্জিনটি চালু করার পরপরই বিকট শব্দ হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হয়ে এ আগুন লাগে। দুর্ঘটনা এড়াতে তাৎক্ষণিক যাত্রীদের টার্মিনালে নামিয়ে দেয়া হয়। এরপর লঞ্চে থাকা ও আশপাশের লঞ্চের স্টাফ, নৌ-টার্মিনালে থাকা ব্যবসায়ীরা এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালান। ২০ মিনিট পর ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট এসে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনে।

খবর পেয়ে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির, কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশন কমান্ডার লে. এনায়েত উল্লাহ ও বন্দর পরিবহন কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

চাঁদপুর ফায়ার স্টেশনের উপ-পরিচালক রতন কুমার বলেন, আমাদের তিনটি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত শেষে জানানো হবে।

চাঁদপুর নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, লঞ্চটি ঘাটের কাছে থাকায় বড় ধরনের ক্ষতি থেকে সবাই রক্ষা পেয়েছে।

Bootstrap Image Preview