Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১২ বুধবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

গুলশান লেকে ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচলে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৩০ PM
আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৩০ PM

bdmorning Image Preview
ফাইল ছবি


রাজধানীর হাতিরঝিলের গুলশান লেকে পুলিশ প্লাজার পেছন থেকে গুলশান বাড্ডা লিংক রোডে ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) জনস্বার্থে করা এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি তারিকুল হাকিম ও বিচারপতি সোহরাওয়ারদীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম।

আদালতের সূত্রে জানা যায়- গুলশান লেকে ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ওয়াটার ট্যাক্সির সৃষ্ট ঢেউয়ের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা মেরামত না হওয়া পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। গুলশান বাড্ডা লেকের তীরবর্তী ওয়াকওয়ে ধসের কারণে লেকপাড়ের ভবনগুলো ঝুঁকির সম্মুখীন হওয়ায় ট্যাক্সি চলাচল কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান এবং ওয়াটার ট্যাক্সি পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান করিম গ্রুপ, আইজিপি, ডিএমপি কমিশনারকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

হাইকোর্টে এ রিট আবেদনটি দায়ের করেন গুলশান সোসাইটির সেক্রেটারি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ।

ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ বলেন, লেকপাড় বাঁধানো এবং ওয়াকওয়ে সংস্কারে দেওয়া হয়েছে। ইতোপূর্বে গুলশান বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে গত সেপ্টেম্বরে একটি স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান চালানো হয়। এর ফলশ্রুতিতে কিছুদিন ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু লেক পাড় না বেঁধে এবং ওয়াকওয়ে সংস্কার না করে আবারও ওয়াটার ট্যাক্সি চালানো শুরু হয়। এ অবস্থায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

Bootstrap Image Preview