Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ শুক্রবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ঈশ্বরদীতে পুলিশ-ডাকাত সংঘর্ষ আহত ৭

গোপাল অধিকারী, ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:১৪ PM
আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:১৪ PM

bdmorning Image Preview


ঈশ্বরদীর ভাড়ইমারীতে ডাকাতদের গ্রেফতার করতে গিয়ে ককটেলের আঘাতে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হকসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।

গতকাল রবিবার রাত দেড় টায় ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া ইউনিয়নের ভাড়ইমারী-দাদপুর সড়কের মধ্যবর্তী স্থান চুড়িয়ালা ঘাট সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ গুলিবিদ্ধ দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে।  

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল রবিবার রাত দেড় টায় ১০ থেকে ১২ জনের ডাকাত দল ভাড়ইমারী এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হকের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে ডাকাত দলের সদস্যরা পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে ককটেল নিক্ষেপ করে।

এসময় পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে ডাকাত সদস্যরা পিছু হটে। পুলিশ ধাওয়া দিয়ে গুলিবিদ্ধ ডাকাত দলের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ঈশ্বরদীর আওতাপাড়া গ্রামের মোজ্জামেল হক মল্লিকের ছেলে ফারুক হোসেন , চুয়াডাঙ্গা জেলার গোগাইল এলাকার ফজলু মন্ডলের ছেলে মফিজুল ইসলাম। আহত ডাকাত সদস্যদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ককটেলের খোসা, দেশীয় অস্ত্র চাইনিজ কুড়াল ও শাবল উদ্ধার করেন।

অপরদিকে, ডাকাতের নিক্ষেপকৃত ককটেলের আঘাতে আহত হয়েছেন- ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহরুল হক, ঈশ্বরদী থানার এস আই ইব্রাহিম হোসেন, কন্সটেবল গৌতম রায়, মোজাম্মেল হক ও শামিউল ইসলাম। আহত পুলিশ সদস্যরা ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ডাকাতদের গ্রেফতার ও পুলিশ সদস্যদের আহতের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহা উদ্দিন ফারুকী বলেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সদস্য। ফারুক হোসেন তিনটি মামলার পলাতক আসামি।
 

Bootstrap Image Preview