Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১২ বুধবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নোয়াখালীতে পৃথক পৃথক মামলার ৩৪ আসামি গ্রেফতার

জামশেদুর রহমান, সেনবাগ (নোয়াখালী) প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০২:১৭ PM
আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৫:১০ PM

bdmorning Image Preview


নোয়াখালীর বিভিন্ন উপজেলায় অভিযান চালিয়ে গত এক সপ্তাহে পৃথক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত ৩৪ জন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, গত সপ্তাহের শুরুতেই শনিবার (১০ নভেম্বর) নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার মীরওয়ারীশপুর ইউনিয়নের লালপুর গ্রামে চৌমুহনী পুলিশ ফাঁড়ির এসআই (নিঃ) বিপ্লব বড়ুয়া ও এএসআই সালা উদ্দিনের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে ১১০পিস ইয়াবাসহ ২মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সোনাইমুড়ী উপজেলার আমিশা পাড়া ইউনিয়নের জমাদার বাড়ীর খোরশেদ আলমের পুত্র মো: রিয়াদ হোসেন (২৫) ও বেগমগঞ্জ উপজেলার কোটরা মহব্বতপুর গ্রামের দুলামিয়া সেরাং বাড়ীর ইছহাকের পুত্র মো: সামছুল আলম (২৮) কে গ্রেফতার করা হয়।

একইদিন বেগমগঞ্জ উপজেলা ও সেনবাগ উপজেলায় জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের অভিযানে ৩৬পিস ইয়াবাসহ ৩জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- চৌমুহনী পৌরসভাস্থ করিমপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফার পুত্র মো: জাবেদ হাসান (৩৫), মৃত নুর ইসলামের পুত্র মো: জাহাঙ্গীর আলম (৪২), ও সেনবাগ উপজেলা মইজদীপুর গ্রামের আব্দুস সালামের পুত্র মোর্শেদ আলম (৩০) কে গ্রেফতার করা হয়।

ওইদিনই নোয়াখালীর সেনবাগ থানা পুলিশ এক অভিযান চালিয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন (৪৫) কে ২১পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করা হয়। গিয়াস উদ্দিন উপজেলার কাদরা ইউনিয়নের দক্ষিন কাদরা গ্রামের দনু মিয়াজ বাড়ির মৃত ছেরাজুল হকের ছেলে। তার বিরুদ্ধে থানায় তিনটি মাদকের মামলা রয়েছে।

এছাড়াও রবিবার (১১ নভেম্বর) সকালে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ ও চৌমুহনী পৌরসভার হাজীপুরে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের অভিযানে ৯৩পিস ইয়াবাসহ ৫জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- চৌমুহনী পৌরসভাস্থ হাজীপুর গ্রামের এছহাক মিয়ার পুত্র মো: আমির হোসেন (৪৩), পৌর হাজীপুর গ্রামের সামছুল হকের পুত্র মো: একরামুল হক সোহেল (৩২), সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের মইজদীপুর গ্রামের মৃত লোকমান মিয়ার পুত্র মো: হারুন ওরপে কসাই হারুন (৪৫), একই গ্রামের আব্দুল সাত্তারের পুত্র মো: আব্দুল গফুর (৪৩) ও নুরল হকের পুত্র জাকির হোসেন টিপু (১৮) কে ইয়াবাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

একইদিন সুধারাম ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের অভিযানে ১৬০পিস ইয়াবাসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ধর্মপুর গ্রামের মো: মোস্তফার পুত্র মো: কামাল উদ্দিন (৩৭), পশ্চিম শুল্লকিয়া গ্রামের মৃত আব্দুস সহিদের পুত্র মো: জামাল উদ্দিন (৩৯), একই গ্রামের মৃত জসিম উদ্দিনের পুত্র মো: হারুন (৩৮) ও চৌমুহনী পৌরসভার হাজীপুর গ্রামের মো: শাহাজাহানের পুত্র মো: ওসমান গণি (২৬) কে গ্রেফতার করা হয়।

নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) ওসি আবুল খায়ের তাদেরকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এদিকে সোমবার (১২ নভেম্বর) সকালে মীরওয়ারিশপুর এলাকায় স্থানীয় জনতা ২জন মাদক বিক্রেতাকে আটক করে আইন শৃংখলা বাহিনীর হাতে সোপর্দ করেন। পরে একই স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে এক মাদক ব্যাবসায়ীকে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এছাড়াও গত মঙ্গলবার (১৩ নভেম্বর) নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে জাহাঙ্গীর আলম নামে এক মাদক ব্যাবসায়ীকে ইয়াবাসহ ধরে পুলিশে দিয়েছে পরিবারের সদস্যরা। পরে ভ্রাম্যমান আদালত তাকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

এরপর বুধবার (১৪ নভেম্বর) নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১৪৭পিস ইয়াবাসহ ৪জনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- শরীফপুর গ্রামের মৃত চান মিয়ার পুত্র মো: জাহিদ (২২), হাজীপুর গ্রামের সোলেমানের পুত্র গিয়াস উদ্দিন মনু (২৩), নরোত্তমপুর গ্রামের হুমায়ুন কবিরের পুত্র আব্দুল্লাহ আল নোমান (২৩), গণিপুর গ্রামের বাহার উদ্দিনের পুত্র সবুজ উদ্দিন মহিন (২৪) কে গ্রেফতার করা হয়।

একইদিন নোয়াখালীর সেনবাগে বিদেশি মদসহ ৩ মাদক কারবারীকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- বেগমগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপুর এলাকার জহিরুল আলমের ছেলে মনজুর আলম তারেক (২৭), একই এলাকার মমতাজ মিয়ার ছেলে এমাম হোসেন (২৪) ও প্রতাপ দত্তের ছেলে পলাশ দত্ত (২৩)। 

এছাড়াও নোয়াখালীর সেনবাগ থানা পুলিশ এক অভিযান চালিয়ে ৭ মামলার পলাতক আসামী আলা উদ্দিন (৪১) কে ৬০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে। আলা উদ্দিন উপজেলার ছাতারপাইয়া ইউনিয়নের লেমুয়া হাজী বাড়ির মৃতঃ আবুল খায়ের সওদাগরের ছেলে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট থানায় ৫টি ও সেনবাগ থানায় দুইটি সহ ৭টি মামলা রয়েছে। 

এদিকে বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) বেগমগঞ্জ উপজেলায় জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি পুলিশের পৃথক পৃথক অভিযানে ১৩২পিস ইয়াবাসহ ১১জনকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বেগমগঞ্জ উপজেলার মীর আলীপুর গ্রামের আব্দুল মান্নানের পুত্র মো: জামাল (২০), রামনাথপুর গ্রামের আবু তাহেরের পুত্র মো: ইয়াসিন আরাফাত (২৩), মধুপুর গ্রামের মৃত মতিন মিয়ার পুত্র মো: কাউসার (২৬), একই গ্রামের আক্তরের জামানের ছেলে জহিরুল ইসলাম (৩২), পূর্ব ঘাটলা গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র আনোয়ার হোসেন মানিক (৩০), লতিফপুর গ্রামের মো: লোকমানের পুত্র মো: সুমন (৩০), রসুলপুর গ্রামের মৃত কোরবান আলীর পুত্র মো: ফারুক (৪১), সুধারাম থানাধীন কাঞ্চনপুর গ্রামের মৃত আঃ ছাত্তারের পুত্র সাইফ উদ্দিন (৩৮), লোকমান মিয়ার পুত্র মো: খালেক (২৫), দেবীপুর গ্রামের মৃত বাচ্ছু মিয়ার পুত্র মো: মিজানুর রহমান (২৮) কে গ্রেফতার করা হয়। 

এ ব্যাপারে নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) ওসি আবুল খায়ের জানান, নোয়াখালীতে মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদক নিমূলে কাজ করে যাচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। মাদক দূর করতে সবাইকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীদের মাদক ব্যবসায়ীদের তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করার আহ্বান জানান তিনি। 
 

Bootstrap Image Preview