Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ শুক্রবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

দেশে নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ থাকায় ব্যবসায়ীদের স্বস্তি

রায়হান শোভন
প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:০১ PM
আপডেট: ১২ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:১১ PM

bdmorning Image Preview


বিগত বছরগুলোতে দেশে নির্বাচন দ্বারপান্তে আসলেই অনেকটা তড়িঘড়ি করে শুরু হয়ে যেত নানা রকম দাবি দাওয়া নিয়ে আন্দোলন ও হরতাল। বিগত দুটি নির্বাচনের আগে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ থাকার ফলে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে ব্যবসায়ীরা। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়লেও দেশে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ থাকায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ রিকন্ডিশন্ড ভেহিক্যালস ইম্পোর্টার্স অ্যান্ড ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মো. হাবিব উল্লাহ ডন বিডিমর্নিংকে বলেন, বিগত কয়েক বছর ধরে আমরা তেমন রাজনৈতিক দাঙ্গা-হাঙ্গামা দেখিনি। এটা খুব ইতিবাচক বিষয়। কেননা দলগুলো বুঝতে পেরেছে দেশের অর্থনীতিকে পঙ্গু করে রাজনীতি চলে না। বরং অর্থনীতির চাকা সচল থাকলেই দেশ সমৃদ্ধির দিকে আগাবে। নির্বাচন আসতে প্রায় দেড় মাস বাকি। আশা করি সামনের সময়েও দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকবে। দেশে কোনো রকম মারামারি কাটাকাটি না হলে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যেতে পারবো।

তিনি আরও বলেন, তবে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ব্যবসা-বাণিজ্যে কিছুটা ধীরগতি কাজ করে বটে। কেননা মানুষের মধ্যে কিছুটা ভয়ভীতি কাজ করে যার ফলে লোকাল ব্যবসায়ীরা কিছুটা ক্ষতির সম্মূখীন হয়ে থাকে।

হাবিব উল্লাহ ডন বলেন, আশা করছি সকল দলের অংশগ্রহণে একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে। আর দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য আরও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে।

আউটসোর্সিং লজিস্টিক সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশনের মো. আবু নাসের বিডিমর্নিংকে বলেন, আমাদের দেশে বিগত দুটি নির্বাচনের আগে খুব অরাজগতা সৃষ্টি হয়েছিল। যার মাশুল গুনতে হয়েছিল ব্যবসায়ী সমাজকে।

তিনি বলেন, বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী সংলাপের মাধ্যমে দেশে সুষ্ঠু রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন। সবকিছু ঠিক থাকলেও দেশে শান্তিপুর্ণ পরিবেশে অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশে শান্তিপুর্ণ অবস্থা বিরাজ করলে ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে। বর্তমানে দেশে ভালো পরিবেশ থাকায় ব্যবসা-বাণিজ্য স্বাভাবিক অবস্থায় আছে।

বাংলাদেশ ট্যানারস এসোসিয়েশানের সভাপতি শাহীন আহমেদ বলেন, ব্যবসা বাণিজ্যের অবস্থা খুব বেশি একটা ভালো যাচ্ছে না। আর সামনে আরো ধীরগতি থাকবে কেননা এখনতো অফ সিজন।

তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের সাথে তাদের চামড়া ব্যবসার কোনো যোগসূত্র নেই। তাই নির্বাচনের প্রভাবে ব্যবসা ভালো বা খারাপ হওয়ার কোনো অবকাশ নেই।

উল্লেখ্য যে, ২০১৩ সালে দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশে শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন (এফবিসিসিআই), ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) এবং ইন্টারন্যাশন্যাল চেম্বার অব কমার্স বাংলাদেশের (আইসিসিবি) হিসাবে এক দিনের হরতালে ক্ষতি হয় ১ হাজার ৫৪০ থেকে ১ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। সে হিসাবে জানুয়ারি মাসের ১১ দিনের হরতাল-অবরোধে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষতি হয়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকারও বেশি।

নির্বাচনকেন্দ্রিক রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ২০১৩ সালে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের এক লাখ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হয়। এই হিসাব এফবিসিসিআইয়ের। ওই বছরের জানুয়ারি থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত হরতাল-অবরোধ হয় ৬২ দিন।

Bootstrap Image Preview