Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ শুক্রবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ছাত্রলীগ নেতা রনির সাহসিকতায় জেএসসি পরীক্ষা দিল ৩০ শিক্ষার্থী

বিডিমর্নিং ডেস্ক-
প্রকাশিত: ০১ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:০৩ PM
আপডেট: ০১ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৫৭ PM

bdmorning Image Preview


চট্টগ্রামে প্রধান শিক্ষকের ভুলে কদম মোবারক এম ওয়াই উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩০ জন জেএসসি পরীক্ষার্থী এডমিট কার্ড পায়নি। আর সেসব শিক্ষার্থীর পাশে দাঁড়িয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি।

গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে এ ব্যাপারে নিজের ফেসবুক পেইজে একটি স্ট্যাটাস দেন ছাত্রলীগের এ নেতা।

নুরুল আজিম রনির ফেসবুক সেই পোস্টটি বিডিমর্নিং পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল-

বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে জেএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। কদম মোবারক এম ওয়াই উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩০ জন জেএসসি পরীক্ষার্থী স্কুলের উঠানে আগের রাতে কান্না করছে, মা-বাবার তা দেখে চোখ ছলছল করছে। সহ্য করা যায়?

সারাদিন হেডমাষ্টারের দেখা নাই, মোবাইল নম্বর বন্ধ বলছে, এডমিট কার্ডেরও হদিস নাই। যাই হোক রাত ৮ টায় ১৭ জনের এডমিট কার্ড উদ্ধার করা হলেও বাকী ১৩ জনের এডমিট কার্ড পাওয়া যায়নি। জেলা প্রশাসন ও শিক্ষা বোর্ডের সহায়তায় হেডমাষ্টারকে রাত ১১ টায় শিক্ষার্থীদের সামনে আনার পর তিনি জানালেন, ১৩ জনের ফরম পূরন ভুলে করা হয়নি। কেমন লাগে শুনতে?

বাংলাদেশের শিক্ষক সমাজে নৈতিক অবস্থান টলোমলো হলেও জেলা প্রশাসন ও শিক্ষা প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করে রাত ১২ টায় ১৩ জন পরীক্ষার্থীকে জানাতে পারলাম যে, মানবিক বিবেচনায় সকালে ফরম পুরন করে তোমরা পরীক্ষা দিতে পারবা।

সারাদিনের অর্জন এই আত্মতৃপ্তিটুকু। সম্মিলিত বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ছোট ভাই শাহাদাত সালাম শাওনকে ধন্যবাদ । খুব কষ্ট করলি সারাদিন বাচ্চাগুলোর জন্য। সকল জেএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য শুভ কামনা।

এদিকে আজ বৃহস্পতিবার সকালের দিকে জে.এস.সি পরীক্ষা শুরুর মাত্র এক ঘন্টা আগে বাকি ১৩ শিক্ষার্থীর ফরম পুরনের ব্যবস্থা করে দেন ছাত্রলীগের এই নেতা।

এ নিয়ে নিজের ফেসবুক পেইজে রনি লিখেন, সকাল ৯ টা। জে.এস.সি পরীক্ষা শুরুর মাত্র এক ঘন্টা আগে মানবিক কারনে ভূক্তভোগি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরনের সুযোগ করে দেয় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড,চট্টগ্রাম। কদম মোবারক এম ওয়াই উচ্চ বিদ্যালয়ের ভুক্তভোগী শিক্ষার্থিদের সবার হাতে এরপরেই প্রবেশপত্র তুলে দেওয়া হয়েছে।

‘শিক্ষকতার মতো মহান পেশাকে কলঙ্কিত মুক্ত করুন। অনৈতিক কাজে লিপ্ত, ধোঁকাবাজ, চরিত্রহীন, প্রতারক, অর্থলোভী মানুষের শরীর থেকে শিক্ষকতার মতো পবিত্র পোষাক খুলে ফেলুন’

সমাজের সবচেয়ে সৎ, চরিত্রবান, নৈতিক চরিত্রের অধিকারী মানুষটি হবে আমাদের সম্মানিত শিক্ষক, সেই স্বপ্নে দিন গুনছি—

উল্লেখ্য, গত বছর হালিশহর ইডেন স্কুলেও ১১৫ জন জেএসসি পরীক্ষার্থীর ফরম পূরন না করেই অর্থ আত্মসাত করা হয়েছিলো। হেডমাষ্টারকে আটক করে সেবারও শিক্ষা বোর্ডকে অনুরোধ জানিয়ে পরীক্ষার আগের দিন ফরম পূরন করা হয়েছিলো। মাষ্টার নামের লেবাস লাগানো বিবেকহীন মানুষগুলো ভালো হয়ে যাও।

প্রসঙ্গত, আজ বৃহস্পতিবার থেকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এতে ২৬ লাখ ৭০ হাজার ৩৩৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। এদের মধ্যে ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৬০১ জন ছাত্রী এবং ১২ লাখ ২৩ হাজার ৭৩২ জন ছাত্র।

আট বোর্ডের অধীনে এবার জেএসসিতে ২২ লাখ ৬৭ হাজার ৩৪৩ জন এবং মাদরাসা বোর্ডের অধীনে জেডিসিতে ৪ লাখ ২ হাজার ৯৯০ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে।

Bootstrap Image Preview