Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ বৃহস্পতিবার, নভেম্বার ২০১৮ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ধর্মীয় সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করে একই উঠানে মসজিদ ও মন্দির

আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০১:১৩ PM
আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০১:১৩ PM

bdmorning Image Preview


এক পাশে ধূপ কাঠি, আর অন্য পাশে আতরের সুঘ্রাণ। মসজিদে জিকির চলছে, মন্দিরে উলুধ্বনি দিচ্ছে। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার এটিকে বিশ্বাস করে এভাবে ধর্মীয় সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করে যুগ যুগ ধরে চলছে একই উঠানে দু'টি ধর্মীয় উপাসনালয়ের কার্যক্রম।  

ধর্মীয় সম্প্রীতির এমন উজ্জ্বল নিদর্শন তৈরি হয়েছে, লালমনিরহাট জেলা শহরের কালীবাড়ী এলাকার একই উঠানে অবস্থিত পুরান বাজার জামে মসজিদ ও কালীবাড়ী কেন্দ্রীয় মন্দিরে। যে যার মতো ধর্ম পালন করে চলেছেন।  

কেন্দ্রীয় কালীবাড়ী মন্দির কমিটির কোষাধ্যক্ষ সনদ চন্দ্র সাহা জানান, প্রায় দেড়শ বছর আগে কালীমন্দির হিসেবে এ মন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। যার কারণে এলাকাটির নামকরণও হয় কালীবাড়ী। পরে এখানে বাজার গড়ে উঠলে বাজারের ব্যবসায়ী ও শহরের মুসলমানরা মন্দিরের পাশেই প্রতিষ্ঠা করেন পুরান বাজার জামে মসজিদ। সেই থেকে এক উঠানে চলছে মসজিদ ও মন্দির দুই ধর্মের দুই উপাসনালয়ের কার্যক্রম। এখন চলছে শারদীয় দুর্গোৎসব।

তিনি আরো জানান, পূজা শুরুর আগে মসজিদ ও মন্দির কমিটি বসে অনেক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আযানের সময় থেকে নামাজের প্রথম জামায়াত শেষ হওয়া পর্যন্ত মন্দিরের মাইক, ঢাক ঢোলসহ যাবতীয় শব্দ বন্ধ থাকে। নামাজের প্রথম জামায়াত শেষ হলে মন্দিরের কার্যক্রম স্বাভাবিক হয়। মসজিদ কমিটি'র লোকজন আমাদের সহযোগিতা করেন। ফলে সামান্যতম বিশৃঙ্খলাও হয় না এখানে।   

পুরান বাজার জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফজল মিয়া জানান, পবিত্র কোরআন শরীফে উল্লেখ আছে, আল্লাহ আমাদের এক আদম ও হাওয়া থেকে সৃষ্টি করে বিভিন্ন শ্রেণি, বর্ণ, গোত্র, ধর্মে বিভক্ত করে দিয়েছেন। যেনো আমরা একে অপরের সর্ম্পকে চিনতে ও জানতে পারি। সেই বিশ্বাস থেকেই ধর্মীয় সম্প্রীতির এটি একটি জ্বলন্ত উদাহরণ।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ বলেন, 'ধর্ম যার যার, উৎসব সবার' এটিই এখানকার মানুষ বিশ্বাস করেন। যার প্রমাণ এক উঠানে কেন্দ্রীয় কালীবাড়ী মন্দির ও পুরান বাজার জামে মসজিদ। মসজিদ কমিটির লোকজন শারদীয় দুর্গোৎসবে যেনো কোনো সমস্যা না হয় সে জন্য মন্দির কমিটিকে বেশ সহযোগিতা করেন। সত্যি এটি ধর্মীয় সম্প্রীতির এটি একটি বড় উদাহরণ।
 

Bootstrap Image Preview